২৪ ঘণ্টা পর পাওয়া গেল নোয়াখালীর ব্যবসায়ীকে

0
311
Print Friendly, PDF & Email

অপহরণের ২৪ ঘণ্টা পর আজ শনিবার সকালে চোখ বাঁধা অবস্থায় রাস্তার পাশে পাওয়া গেছে নোয়াখালীর ব্যবসায়ী আবুল বাসারকে। বেগমগঞ্জ উপজেলার জিরতলী ইউনিয়নের বাংলাবাজারের প্রধান সড়কের পাশে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তাঁকে পাওয়া যায়।

বেগমগঞ্জ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার কাজী এহসানুল কবির জানান, অপহরণকারীরা একটি গাড়িতে করে তাঁকে নিয়ে আসে। পরে ওই এলাকায় তাঁকে রাস্তায় ফেলে রেখে যায়। পরে আবুল বাসারকে বেগমগঞ্জ থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।

আবুল বাসারের বড় ভাইয়ের মেয়ের স্বামী জাহাঙ্গীর আলম জানান, পরিবারের সদস্যরা এখনো তাঁর সঙ্গে কথা বলতে পারেননি। তবে আবুল বাসারের গায়ে আঘাতের চিহ্ন আছে। তিনি কিছুটা অসুস্থ।

অপহূত আবুল বাসার উত্তর আলাইয়াপুর গ্রামের মো. ফয়েজ কন্ট্রাক্টরের ছেলে। গতকাল শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে একদল সন্ত্রাসী তিনটি মোটরসাইকেলে গিয়ে আবুল বাসারকে বাড়ির সামনে থেকে অস্ত্রের মুখে তুলে নিয়ে যায়। বেগমগঞ্জ উপজেলার আলাইয়াপুর ইউনিয়নের উত্তর আলাইয়াপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এর পর থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। অপহরণের পর গতকাল লোক মারফত অপহরণকারীরা পরিবারের কাছে পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে।

গতকালও নারায়ণগঞ্জ থেকে সৈয়দ সাইফুল ইসলাম নামের এক ব্যবসায়ীকে অপহরণের ২৪ ঘণ্টা পর একটি হোটেলের সামনে ফেলে রেখে যায় অপহরণকারীরা।

এর আগে গত ২৯ এপ্রিল সদর উপজেলার এওজবালিয়া ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি ও সাবেক ইউপি সদস্য আবুল হোসেন ওরফে আবদুলকে অপহরণ করে একদল সন্ত্রাসী। পরে বিভিন্ন মহলের চাপের মুখে সাড়ে ছয় ঘণ্টা পর তাঁকে ছেড়ে দেয় অপহরণকারীরা। স্থানীয় ও পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আবুল বাসার দীর্ঘদিন প্রবাসে ছিলেন। কয়েক মাস আগে দেশে ফিরে তিনি মাটির ব্যবসা ও মাছের খামারের ব্যবসা শুরু করেন। সূত্র জানায়, অপহরণকারী দলের মধ্যে এলাকার সন্ত্রাসী ফরহাদ, মহিন, জাঙ্কা ও রুবেলকে স্থানীয় লোকজন চিনতে পেরেছেন। গতকাল রাতে পুলিশ সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের পরিবারের চার সদস্যকে আটক করে।

শেয়ার করুন