রাঙামাটিতে জনসংহতি সমিতির ৬০ নেতাকর্মীকে অপহরণ

0
224
Print Friendly, PDF & Email

রাঙামাটি: রাঙামাটিতে জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) ৬০ নেতাকর্মীকে অপহরণের অভিযোগ করেছেন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির নেতাকর্মীরা।

শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রাঙামাটি শহর থেকে লংগদুতে ফেরার সময় নৌপথে একটি ইঞ্জিন চালিত বোট গতিরোধ করে জনসংহতি সমিতি(জেএসএস) ও এর অঙ্গ সংঠনের ৬০ নেতাকর্মীকে অস্ত্রের মুখে অপহরণ করা হয় বলে অভিযোগে প্রকাশ।

জনসংগতি সমিতির তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক সজিব চাকমা সাংবাদিকদের জানান, শুক্রবার রাঙামাটি শহরে জেএসএস’র ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন শেষে শনিবার সকালে লংগদু জেএসএস’র সাধারণ সম্পাদক মনি শংকর চাকমা, যুব সমিতির সাধারণ সম্পাদক জসো চাকমা, পিসিপির সভাপতি বিনয় সাধন চাকমা, সাধারণ সম্পাদক সুজন চাকমা ও সাংগঠনিক সম্পাদক অমর চাকমাসহ ৬০ নেতাকর্মীরা একটি  ইঞ্জিন চালিত বোট যোগে লংগদুতে ফিরছিলেন।  

এ সময় তারা বরকল উপজেলার বরুণাছড়ি ১০নং এলাকায় পৌঁছালে ইউনাইটেড পিপল ডেমোক্রেটিক পার্টির (ইউপিডিএফ) সশস্ত্র গ্রুপ তাদের বোট গতিরোধ করে অস্ত্রের মুখে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়।   

অপহরণের খবর শুনে লংগদু থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গেছে।

এদিকে, ইউপিডিএফের রাঙামাটি জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক বাবলু চাকমা  বলেন, এ রকম কোনো ঘটনার সঙ্গে আমরা জড়িত নই। আর অপহরণ ঘটনা ঘটে থাকলে তা জেএসএসের অভ্যন্তরীণ কোন্দল।”

লংগদু থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রেজাউল হক বলেন, ‍“অপহরণের ঘটনা শুনেছি। তবে, পুরোপুরি ঘটনা এখনও নিশ্চিত করে জানতে পারিনি। আমি ঐ এলাকায় যাচ্ছি। পরে বিস্তারিত জানা যাবে।”

এ বিষয়ে বরকল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল করিম জানান, “আমি যতদূর শুনেছি, অপহরণের ঘটনাটি ঘটেছে লংগদু উপজেলার ছোটকাটটলীতে। আমার এলাকায় এটি ঘটেনি।”

 ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০১৩

শেয়ার করুন