সিনিয়র বুশ মারা গেছেন

0
481
Print Friendly, PDF & Email
সিনিয়র বুশ মারা গেছেন

যুক্তরাষ্ট্রের ৪১তম প্রেসিডেন্ট জর্জ এইচ ডব্লিউ শুক্রবার রাতে ৯৪ বছর বয়সে মারা গেছেন। তার অফিসের এক বিবৃতিতে, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় নৌবাহিনীর একজন পাইলট এবং টেক্সাসের ধনকুবের তেল ব্যবসায়ী ধনকুবের সিনিয়র বুশের মৃত্যুর খবর জানানো হয়েছে।

বুশ পরিবারের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, ৯৪ বছর বয়সে তিনি মারা গেছেন। স্নায়ুযুদ্ধের সমাপ্তিতে ভূমিকার কারণে সিনিয়র বুশ সুপরিচিত ছিলেন।

আট মাসেরও কম সময় আগে তার স্ত্রী বারবারা বুশ ৭৩ বছর বয়সে মারা গিয়েছিলেন।

বুশের নাতি জর্জ পি বুশ এক টুইট বার্তায় লিখেন, তিনি একজন মহান মানুষের চেয়েও বেশি কিছু ছিলেন; তিনি একজন ভালো মানুষ ছিলেন।

তিনি আরও লিখেন, তিনি যেমন সাহসী ছিলেন তেমনি সমবেদীও ছিলেন। দেশের প্রতি তার উৎসর্গকে কেবল পরিবারের প্রতি একনিষ্ঠতার সঙ্গে তুলনা করা যায়।

সিনিয়র বুশ এক ধরনের পারকিনসন রোগে ভুগছিলেন। ফলে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে হুইলচেয়ার বা মোটরচালিত স্কুটারে করে তিনি চলাফেরা করতেন। এসময় তিনি হাসপাতালে যাওয়া-আসার মধ্যেই ছিলেন।

গত এপ্রিলে স্ত্রীর বারবারার শেষকৃত্যানুষ্ঠানে যোগ দেয়ার পরদিন তার রক্তের ভেতর ছড়িয়ে পড়া এক সংক্রমণের কারণে তাকে চিকিৎসা নিতে হয়। তারও আগে ২০১৩ সালে শ্বাসনালীর প্রদাহের কারণে এতোটাই ভোগেন যে, তার ছেলে জর্জ ডব্লিউ বুশ বাবার জন্য স্তুতি আয়োজনের পরিকল্পনা করেন।

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট রোনাল্ড রিগানের অধীনে দুই দফায় ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে ছিলেন সিনিয়র বুশ। পরবর্তীতে তিনি ১৯৮৯ থেকে ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্বপালন করেন। এর আগে ৭০-র দশকে তিনি গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ’র পরিচালক হিসেবেও কর্মরত ছিলেন।

বর্ষীয়ান এই রাজনীতিকের ছেলে জর্জ ডব্লিউ বুশ যুক্তরাষ্ট্রের ৪৩তম প্রেসিডেন্ট ছিলেন। সিনিয়র বুশ পাঁচ সন্তান এবং ১৭ জন নাতি-নাতনি এবং আটজন প্রপ্রৌত্র-প্রপ্রৌত্রী রেখে গেছেন।

শেয়ার করুন