অভিযোগ ওঠার পর পদত্যাগ করলেন শিক্ষক সাদমান

0
195
Print Friendly, PDF & Email

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গীত বিভাগের প্রভাষক সাদমান তাহরীফ প্রত্যয় এর স্থায়ী বহিষ্কারের দাবিতে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের স্বাক্ষরিত অভিযোগ পত্র প্রদান এবং বিভাগে বিক্ষোভ মিছিল করেন শিক্ষার্থীরা।

এদিকে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে বিভিন্ন অভিযোগ দেওয়ায় সঙ্গীত বিভাগের প্রভাষক সাদমান তাহরীফ প্রত্যয় সেচ্ছায় পদত্যাগ করেছেন বলে তিনি নিজেই জানিয়েছেন কালের কণ্ঠকে।

সঙ্গীত বিভাগের সকল শিক্ষকদের নিয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক সাদমান তাহরীফ প্রত্যয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অশ্লীল, অসম্মানজনক ছবি সহ বিভিন্ন মন্তব্য করার অভিযোগে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা ক্ষুব্ধ হয়ে মঙ্গলবার রেজিস্ট্রার বরাবর লিখিত অভিযোগ প্রদান করেন এবং স্থায়ী বহিষ্কারের দাবিতে ক্যাম্পাসে মৌনমিছিল করেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার ১১টায় উপাচার্যের সাথে দেখা করে অভিযুক্ত শিক্ষককে দ্রুত সময়ের মধ্যে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করার দাবি জানান সঙ্গীত বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আপত্তিকর ভাষা ব্যবহার, নারী শিক্ষার্থীদেরকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য ও পরীক্ষায় নম্বরে স্বজনপ্রীতি করার অভিযোগে প্রভাষক সাদমান তাহরীফ প্রত্যয় এর স্থায়ীভাবে বহিষ্কার দাবিতে গত (২ জানুয়ারি) শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল করেন।

শিক্ষার্থীদের এ অভিযোগের ভিত্তিতে পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন অভিযুক্ত শিক্ষককে সে সময়ে চলমান সকল শিক্ষাবর্ষের ক্লাস থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছিল। প্রভাষক সাদমান তাহরীফ প্রত্যয় ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গীত বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন। দীর্ঘদিন ধরে ওই বিভাগের অস্থায়ী শিক্ষক হিসেবে শিক্ষকতা করছেন।

এ বিষয়ে প্রভাষক সাদমান তাহরীফ প্রত্যয় এর কাছে জানতে চাইলে তিনি কালের কণ্ঠ’কে জানান, এ বিষয়ে আমি কিছু বলতে চায় না। তবে আমি নিজ থেকে সেচ্ছায় পদত্যাগ করেছি। পদত্যাগপত্রটি কুরিয়ারে পাঠিয়ে দিয়েছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) ড. মো. হুমায়ুন কবীর জানান, সঙ্গীত বিভাগের প্রভাষক সাদমান তাহরীফ প্রত্যয় এর নামে বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের অভিযোগ পেয়েছি। অতিদ্রুত অভিযোগের ভিত্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন