ইবিতে পাস মার্ক কমিয়েও ৯৪ শতাংশ ফেল

0
194
Print Friendly, PDF & Email

ফের শর্ত শিথিল করে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের øাতক সম্মান ১ম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় ‘সি’ ও ‘ডি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রকশিত ফলে ‘ডি’ ইউনিটে পাসের হার ৫ দশমিক ৮৪ শতাংশ। রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. রাশিদ আসকারীর কাছে এ ফল হস্তান্তর করেন ইউনিট সমন্বয়কারীরা।

শর্ত শিথিলের পর প্রকাশিত ফলে, ‘ডি’ ইউনিটে পাসের হার ৫ দশমিক ৮৪ শতাংশ। এই ইউনিটের ৩য় শিফটে এমসিকিউ’র পাস মার্ক ৪০ শতাংশের বদলে করা হয়েছে ৩০ শতাংশ। আর লিখিততে পাস নম্বর ৭ থেকে কমিয়ে ৫ করা হয়েছে। এই ইউনিটে তিন শিফটে ৫৫০টি আসনের জন্য ১৫ হাজার ৭৩৮ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন।
তবে পাস করেন মাত্র ৯৯৫ জন। এই ইউনিটে ১ম শিফটে ২১৪টি, ২য় শিফটে ২১৫টি এবং ৩য় শিফটে ১২১টি আসন রয়েছে। এর মধ্যে ৩য় শিফটে এমসিকিউ ও লিখিততে শর্ত পূরণ করে পাস করেন ১০২ জন। ফলে ফাঁকা থেকে যায় ১৯টি আসন। এই ফাঁকা আসন পূরণ করতে শর্ত শিথিল করেছে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা কমিটি।

‘ডি’ ইউনিট সমন্বয়ক ড. মমতাজুল ইসলাম জানান, আসন ফাঁকা থাকায় আসন পূরণ করতে এবং অপেক্ষমাণ তালিকা দিতে শর্ত শিথিল করা হয়েছে। একই সঙ্গে ‘সি’ ইউনিটের লিখিত পরীক্ষায় শর্ত শিথিল করা হয়েছে। শর্ত শিথিলের পর পাসের হার ১৩.৯৫ শতাংশ। তবে শর্ত শিথিলের আগে পাসের হার ৫.১১ শতাংশ ছিল। শর্ত শিথিল করে পাস নম্বর ৭ এর পরিবর্তে ৩ করা হয়েছে। বাণিজ্য শাখায় আসন ফাঁকা থাকায় এ সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। এই ইউনিটে ৪৫০টি আসনের মধ্যে বাণিজ্য শাখার জন্য ৩৬০টি এবং অবাণিজ্য শাখার জন্য ৯০টি আসন রয়েছে।

ফের শর্ত শিথিল করে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের øাতক সম্মান ১ম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় ‘সি’ ও ‘ডি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রকশিত ফলে ‘ডি’ ইউনিটে পাসের হার ৫ দশমিক ৮৪ শতাংশ। রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. রাশিদ আসকারীর কাছে এ ফল হস্তান্তর করেন ইউনিট সমন্বয়কারীরা।

শর্ত শিথিলের পর প্রকাশিত ফলে, ‘ডি’ ইউনিটে পাসের হার ৫ দশমিক ৮৪ শতাংশ। এই ইউনিটের ৩য় শিফটে এমসিকিউ’র পাস মার্ক ৪০ শতাংশের বদলে করা হয়েছে ৩০ শতাংশ। আর লিখিততে পাস নম্বর ৭ থেকে কমিয়ে ৫ করা হয়েছে। এই ইউনিটে তিন শিফটে ৫৫০টি আসনের জন্য ১৫ হাজার ৭৩৮ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন।
তবে পাস করেন মাত্র ৯৯৫ জন। এই ইউনিটে ১ম শিফটে ২১৪টি, ২য় শিফটে ২১৫টি এবং ৩য় শিফটে ১২১টি আসন রয়েছে। এর মধ্যে ৩য় শিফটে এমসিকিউ ও লিখিততে শর্ত পূরণ করে পাস করেন ১০২ জন। ফলে ফাঁকা থেকে যায় ১৯টি আসন। এই ফাঁকা আসন পূরণ করতে শর্ত শিথিল করেছে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা কমিটি।

‘ডি’ ইউনিট সমন্বয়ক ড. মমতাজুল ইসলাম জানান, আসন ফাঁকা থাকায় আসন পূরণ করতে এবং অপেক্ষমাণ তালিকা দিতে শর্ত শিথিল করা হয়েছে। একই সঙ্গে ‘সি’ ইউনিটের লিখিত পরীক্ষায় শর্ত শিথিল করা হয়েছে। শর্ত শিথিলের পর পাসের হার ১৩.৯৫ শতাংশ। তবে শর্ত শিথিলের আগে পাসের হার ৫.১১ শতাংশ ছিল। শর্ত শিথিল করে পাস নম্বর ৭ এর পরিবর্তে ৩ করা হয়েছে। বাণিজ্য শাখায় আসন ফাঁকা থাকায় এ সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। এই ইউনিটে ৪৫০টি আসনের মধ্যে বাণিজ্য শাখার জন্য ৩৬০টি এবং অবাণিজ্য শাখার জন্য ৯০টি আসন রয়েছে।

ফের শর্ত শিথিল করে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের øাতক সম্মান ১ম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় ‘সি’ ও ‘ডি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

প্রকশিত ফলে ‘ডি’ ইউনিটে পাসের হার ৫ দশমিক ৮৪ শতাংশ। রোববার বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. রাশিদ আসকারীর কাছে এ ফল হস্তান্তর করেন ইউনিট সমন্বয়কারীরা।

শর্ত শিথিলের পর প্রকাশিত ফলে, ‘ডি’ ইউনিটে পাসের হার ৫ দশমিক ৮৪ শতাংশ। এই ইউনিটের ৩য় শিফটে এমসিকিউ’র পাস মার্ক ৪০ শতাংশের বদলে করা হয়েছে ৩০ শতাংশ। আর লিখিততে পাস নম্বর ৭ থেকে কমিয়ে ৫ করা হয়েছে। এই ইউনিটে তিন শিফটে ৫৫০টি আসনের জন্য ১৫ হাজার ৭৩৮ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন।
তবে পাস করেন মাত্র ৯৯৫ জন। এই ইউনিটে ১ম শিফটে ২১৪টি, ২য় শিফটে ২১৫টি এবং ৩য় শিফটে ১২১টি আসন রয়েছে। এর মধ্যে ৩য় শিফটে এমসিকিউ ও লিখিততে শর্ত পূরণ করে পাস করেন ১০২ জন। ফলে ফাঁকা থেকে যায় ১৯টি আসন। এই ফাঁকা আসন পূরণ করতে শর্ত শিথিল করেছে কেন্দ্রীয় ভর্তি পরীক্ষা কমিটি।

‘ডি’ ইউনিট সমন্বয়ক ড. মমতাজুল ইসলাম জানান, আসন ফাঁকা থাকায় আসন পূরণ করতে এবং অপেক্ষমাণ তালিকা দিতে শর্ত শিথিল করা হয়েছে। একই সঙ্গে ‘সি’ ইউনিটের লিখিত পরীক্ষায় শর্ত শিথিল করা হয়েছে। শর্ত শিথিলের পর পাসের হার ১৩.৯৫ শতাংশ। তবে শর্ত শিথিলের আগে পাসের হার ৫.১১ শতাংশ ছিল। শর্ত শিথিল করে পাস নম্বর ৭ এর পরিবর্তে ৩ করা হয়েছে। বাণিজ্য শাখায় আসন ফাঁকা থাকায় এ সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ। এই ইউনিটে ৪৫০টি আসনের মধ্যে বাণিজ্য শাখার জন্য ৩৬০টি এবং অবাণিজ্য শাখার জন্য ৯০টি আসন রয়েছে।

শেয়ার করুন