আইডিয়া নিয়ে আসুন, সহায়তা পাবেন: পলক

0
381
Print Friendly, PDF & Email

তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক যে কোনো উদ্ভাবনী ‘আইডিয়ার’ জন্য সরকার সহায়তা দিতে প্রস্তুত আছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

ডিজিটাল বিপণন নিয়ে ঢাকায় আন্তর্জাতিক সম্মেলন
বাংলাদেশে ডিজিটাল বিপণন নিয়ে কাজ করছে বা কাজ করতে আগ্রহী- এমন প্রতিষ্ঠানের ৩০০ শতাধিক প্রতিনিধির এক মিলনমেলায় সোমবার প্রতিমন্ত্রীর এই আশ্বাস আসে।

কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে ডিজিটাল বিপণন সম্মেলনে তিনি বলেন, “আপনাদের কাছে কোনো উদ্ভাবনী আইডিয়া থাকলে আমাদের সঙ্গে শেয়ার করবেন। এ ধরনের প্রডাক্টকে আরও উন্নত করা, বৈশ্বিক পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া এবং বাণিজ্যিকভাবে চালু করতে আমরা সহযোগিতা করব।”

দিনব‌্যাপী এই সম্মেলনের বিভিন্ন উপস্থাপনায় সোশাল মিডিয়া, মোবাইল মার্কেটিং, কনটেন্ট মার্কেটিং, বিগ ডেটা এবং রিয়েল টাইম মার্কেটিংসহ ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের বিভিন্ন দিক উঠে আসে।

বিজ্ঞাপনী সংস্থা বিটপি লিও বার্নেট এবং মাইটি বাইটের যৌথ আয়োজনে এ সম্মেলনের প্রধান অতিথি ছিলেন জুনাইদ আহমেদ পলক।

তিনি জানান, উদ্যোক্তাদের সহায়তা এবং ডিজিটাল উদ্ভাবনীতে প্রণোদনা দিতে সরকার ‘ইনোভেশন ডিজাইন অ্যান্ড এন্টারপ্রেনারশিপ একাডেমি’ প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নিয়েছে।

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ‌্যে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে নতুন নতুন অনুষঙ্গ আসছে মন্তব্য করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, “ছয় কোটি ইন্টারনেট ইউজার যদি না থাকত, টার্গেটেড অডিয়েন্স যদি না থাকত, তাহলে ডিজিটাল মার্কেটিং নিয়ে ভাবতে পারতাম না। আমাদের সরকারের দিক থেকে দায়িত্ব হচ্ছে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মকে তৈরি এবং টার্গেট অডিয়েন্সের সঙ্গে যুক্ত করা।”

সরকার ডিজিটাল অগ্রযাত্রার জন্য তিনটি বিষয় নিয়ে কাজ করছে মন্তব্য করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, “অ্যাভেইলেবিলিটি, অ্যাফোর্ডেবিলিটি অ‌্যান্ড অ্যাওয়ারনেস… আমাদের সর্বত্র থ্রি-জি নেটওয়ার্ক ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে, দাম কমিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং ইন্টারনেট ব্যবহারের সচেতনতা ও যৌক্তিকতা নিয়ে সরকার কাজ করছে।”
এ কাজে আরও বেশি মানুষকে যুক্ত করতে সরকার বিভিন্ন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে নিয়ে কাজ করছে বলে জানান তিনি।

জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, সনাতন গণমাধ্যমগুলো এখন ‘নিউ মিডিয়ার’ দিকে ঝুঁকছে, তারা অনলাইন সংস্করণে তাদের কনটেন্ট ও বিজ্ঞাপন দিচ্ছে; লাইভ স্ট্রিমিং করছে।

“আমাদের দেশের অনেক কোম্পানি আছে যারা দেশেই কাজ করে অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করছে। স্থানীয় এ অভিজ্ঞতা নিয়েই তারা বৈশ্বিক ব্যবসার দিকে ঝুঁকেছে।”

সরকার শিক্ষা-স্বাস্থ্য, ব্যবসা-বাণিজ্য, কর্মসংস্থান ও নিরাপত্তাসহ উন্নয়নের সব কার্যক্রমে আইসিটিকে যুক্ত করে এগিয়ে নিয়ে যেতে চায় বলে জানান তিনি।

সকালে জার্মানির মিডিয়াকম বিয়ন্ড অ্যাডভার্টাইজিংয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নরম‌্যান ভাগনারের উপস্থাপনার মধ্য দিয়ে সূচনা হয় সম্মেলনের।

ভাগনার ডিজিটাল আধেয় ও ডেটা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন এবং তার প্রতিষ্ঠান মিডিয়াকমের তৈরি শেল, ডয়েচে টেলিকম ও জিলেটসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনী ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠানে দেখান।

এরপর এস্তোনিয়ার বেস্ট মার্কেটিং ইন্টারন্যাশনালের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হান্ডো সিনিসালু তার উপস্থাপনা নিয়ে হাজির হন। তার আলোচনায় উঠে আসে জার্মানির ‘অ্যাবভোকার্ড’ ইন্সুরেন্স, আইরিশ মস সিরাপসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের নানা দিক।

বাংলাদেশের গ্রামীণফোনের ব্র্যান্ড কমিউনিকেশনসের লিড স্পেশালিস্ট রেফায়েত আহমেদের উপস্থাপন করেন কনটেন্ট মার্কেটিং ও আইডিয়া জেনারেশনের নানা পদ্ধতি।

ভারতের ইন্টারফেস বিজনেস সলিউশনসের (আইবিএস) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিক্রম ভাস্কর গঙ্গোপাধ্যায়ের উপস্থাপনায় আসে কোটাক ব্যাংকের ‘হ্যাশট্যাগ’ ব্যাংকিংসহ সনাতন পদ্ধতির বাইরে আসা বিভিন্ন কোম্পানির বিপণন ব্যবস্থার নানা দিক।

সম্মেলনের অন‌্যতম আয়োজক সংস্থা বিটপির ডিজিটাল মার্কেটিং পরিচালক নওশের রহমান বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে যারা এখন অগ্রগণ্য, তারা এ সম্মেলনে ‘বিভিন্ন টুলস নিয়ে’ আলোচনা করেছেন, যা থেকে বাংলাদেশে এ খাতের কর্মীরা নতুন নতুন ধারণা পেয়েছেন।
বিটপির ব্যবস্থাপনা পরিচালক সারাহ আলী জানান, এখন থেকে প্রতিবছরই এই সম্মেলনের আয়োজন করা হবে।

‘দ‌্য বেস্ট অফ ডিজিটাল মার্কেটিং ওয়ার্ল্ড ট্যুর ২০১৬’-এর অংশ হিসেবে অনুষ্ঠিত হয় বেস্ট অফ ডিজিটাল মার্কেটিং সম্মেলন। গত জানুয়ারিতে লাটভিয়ার রাজধানী রিগাতে শুরু হয়ে আমস্টারডাম, ইস্তাম্বুল, ম্যানিলা ও কুয়ালালামপুরে এ সম্মেলন হয়েছে।

ফিনানশিয়াল টেকনোলজিভিত্তিক (ফিনটেক) প্রতিষ্ঠান ‘ডি-মানি’র সহযোগিতায় এ সম্মেলনের মিডিয়া পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম, দৈনিক ইত্তেফাক, ঢাকা ট্রিবিউন ও একাত্তর টেলিভিশন।

শেয়ার করুন