হরতালের প্রথম দিনে সারাদেশে ১৭ গাড়িতে আগুন : বাসে পেট্রলবোমা হামলা

0
150
Print Friendly, PDF & Email

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের টানা অবরোধ ও ৭২ ঘণ্টা হরতালের প্রথম দিনে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যানবাহন ভাঙচুর ও ১৭ টি গাড়িতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এরমধ্যে রাজধানীতে চারটি গাড়িতে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এসব ঘটনায় আহত হয়েছে অর্ধশতাধিক মানুষ। সারাদেশে আটক করা হয়েছে কমপক্ষে দুইশতাধিক বিএনপি, জামায়াত ও শিবিরের নেতাকর্মীকে।

রোববার ছিল ৭২ ঘন্টা হরতালের প্রথম দিন। সকাল থেকে দেশের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলায় হরতালের সমর্থনে এসব ঘটনা ঘটে।

রাজধানীর বাড্ডা ও নিউমার্কেট এলাকায় দুইটি বাসে পেট্রলবোমা হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় দুটি বাসেই আগুন ধরে যায়। এছাড়াও জজকোর্ট ও পরীবাগ এলাকায় বাসে অগ্নিকা-ের ঘটনা ঘটেছে। তবে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

শীর্ষ নিউজের বিভিন্ন জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধিদের পাঠানো তথ্যে জানা গেছে :

বগুড়া

বগুড়া মহাসড়কে তিনটি পণ্যবাহী ট্রাকে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। রোববার দুপুর ২টা পর্যন্ত মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে এ অগ্নিসংযোগের ঘটনাগুলো ঘটে। বেলা সাড়ে ১২টার দিকে বগুড়া-নওগাঁ মহাসড়কে সদরের এরুলিয়াতে ১টি ট্রাকে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা, দুপুর দেড়টার দিকে বগুড়া-রংপুর মহাসড়কে শহরতলীর বারপুর এলাকায় ১ টি এবং দুপুর ২ টার দিকে চারমাথা এলাকায় মুক্তি বিড়ি ফ্যাক্টরির সামনে আরো ১ টি পণ্যবাহী  ট্রাকে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা।

ফেনী

হরতালের প্রথম দিন ফেনী শহরের ট্রাংক রোড জিরো পয়েন্টে ছয়টি অটোরিকশা এবং বড় বাজার এলাকার তাকিয়া রোডে দুটি ট্রাকে আগুন দিয়েছে হরতাল সমর্থকরা। তাকিয়া রোড এলাকায় আরও তিনটি ট্রাক ভাংচুর করা হয়েছে বলে ফেনী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শাহীনুজ্জামান জানান। শহরের মহিপাল, শহীদুল্লাহ কায়সার সড়ক, কুমিল্লা বাসস্ট্যান্ডসহ বিভিন্ন স্থানে হরতালকারীরা বিচ্ছিন্নভাবে পিকেটিংয়ের চেষ্টা চালায় বলেও জানান তিনি। এছাড়া হরতালের আগের রাতে সদর উপজেলার বালিগাঁও এলাকায় হাতবোমা বিস্ফোরণে এক হিউম্যান হলার যাত্রী আহত হয়েছেন।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হরতালের প্রথম দিনে পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের সংঘর্ষে আনিসুর রহমান নামের এক পুলিশ সদস্যসহ ৫ জন আহত হয়েছেন। আহত পুলিশ সদস্যকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে। রোববার দুপুরে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, হরতালের প্রথম দিনে জেলা শহরের রেলগেট এলাকায় বিএনপি কর্মীরা সুবর্ণ এক্সপ্রেস ট্রেন লক্ষ করে ককটেল ছুঁড়ে। ট্রেনের দরজা-জানালা বন্ধ থাকায় কোনো ক্ষয়-ক্ষতি হয়নি। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে বিএনপি কর্মীদের ধাওয়া দিলে বিএনপির নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ককটেল ও ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। এসময় বিএনপি কর্মীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ শুরু হয়। সংঘর্ষে সদর মডেল থানার পুলিশ সদস্য আনিসুর রহমান গুরুতর আহত হয়েছে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ছুঁড়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে।

হবিগঞ্জ

হবিগঞ্জ শহরের পোদ্দার বাড়ি এলাকায় হরতাল সমর্থকদের মিছিল থেকে ১০ টি গাড়ি ভাংচুর ও একটি ট্রাকে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটে রোববার দুপুরে। জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক সেলিমের সমর্থকরা এ মিছিলে অংশ নেন। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে বলে হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি নাজিম উদ্দিন জানান। এ ঘটনায় আহত এক যাত্রীকে গুরুতর অবস্থায় হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে তার পরিচয় জানা যায়নি।

নরসিংদী

২০ দলীয় জোটের টানা ৭২ ঘণ্টার হরতালের সমর্থনে মিছিল করেছে জেলা বিএনপি। রোববার সকাল ১১টার দিকে শহরের চিনিশপুরস্থ কার্যালয় থেকে মিছিলটি বের করা হয়। জেলা বিএনপির সভাপতি খায়রুল কবির খোকনের নেতৃত্বে মিছিলটি ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে উঠতে চাইলে বাধা দেয় পুলিশ। পরে পুলিশি বাধার মুখে পড়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে নেতৃবৃন্দ। এসময় জেলা বিএনপি-অঙ্গসংগঠন ও ২০ দলীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

গাইবান্ধা

হরতালের আগের রাতে গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরে ঢাকাগামী একটি নৈশকোচে ভাঙচুর এবং পলাশবাড়ী উপজেলা পল্লী বিদ্যুৎ বিতরণ কেন্দ্রের কাছে বোমাবাজি করেছে শিবির কর্মীরা। সাদুল্লাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আব্দুল হাকিম আজাদ জানান, শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সাদুল্লাপুর শহরের দিকে আসার পথে ঢাকাগামী শাওন এন্টারপ্রাইজের ওই বাসে শিবিরকর্মীরা একের পর এক ইট ছোড়ে। এতে বাসের সামনের ও দুই পাশের জানালার বেশ কিছু কাঁচ ভেঙে যায়। প্রায় একই সময়ে অবরোধকারীরা পলাশবাড়ী উপজেলা আদর্শ কলেজ সড়কে পল্লী বিদ্যুৎ বিতরণ কেন্দ্রের কাছে একটি হাতবোমা ফাটিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায় বলে পলাশবাড়ী থানার ওসি মজিবুর রহমান জানান। তবে এ দুই ঘটনায় কারও আহত হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি।

পিরোজপুর

রোববার সকালে পিরোজপুরের বাইপাস সড়কে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেছে হরতাল সমর্থকরা। এছাড়া আগের রাতে শহরের পুরাতন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অবরোধকারীরা একটি যাত্রীবাহী বাস পুড়িয়ে দিয়েছে বলে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু আশরাফ জানান। তিনি বলেন, নাশকতায় জড়িত সন্দেহে জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে মোট আটজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

শেয়ার করুন