পোশাক খাতে সহায়তা অব্যাহত থাকবে: প্রধানমন্ত্রী

0
58
Print Friendly, PDF & Email

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নানা সমস্যা মোকাবেলা করে দেশের তৈরি পোশাক খাত এগিয়ে চলেছে। যখনই এ খাত কোনো সঙ্কটে পড়েছে সরকার পাশে থেকেছে। এ খাতে সরকারে সহায়ক ভূমিকা পালন আগামী দিনেও অব্যাহত থাকবে। রোববার সকালে বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সম্মেলন কেন্দ্রে তিন দিনের ঢাকা অ্যাপারেলস সামিটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে তৈরি পোশাক খাতের উন্নয়নে অনেক পদক্ষেপ নিয়েছে। ২০০৯ সালে আমরা যখন আবার ক্ষমতায় আসি তখন বিশ্বব্যাপী মন্দা চলছিল। সরকার মন্দা মোকাবেলায় দ্রুত পদক্ষেপ নেয়। তৈরি পোশাক খাতে প্রণোদনার ঘোষণা দেয়। তিনি বলেন, দেশের রপ্তানি আয়ের প্রায় ৮০ শতাংশ আসে তৈরি পোশাক খাত থেকে। ২০ শতাংশ মানুষ প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে এই খাতের ওপর নির্ভরশীল। পরে তিনি ৩ দিনব্যাপী ঢাকা অ্যাপারেল সামিটের উদ্বোধন ঘোষণা করেন। অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ১৯৭২ সালে আমরা তৈরি পোশাক খাতে যাত্রা শুরু করেছিলাম। তখন এ খাত থেকে আমাদের আয় ছিল ৩৪৮ মিলিয়ন ডলার। বর্তমানে তৈরি পোশাক খাতে আমাদের আয় ৩০ বিলিয়ন ডলারের বেশি। ২০২১ সালের মধ্যে তৈরি পোশাক খাতে আয় ধরা হয়েছে ৫০ বিলিয়ন ডলার। আশা করি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে সক্ষম হবো। রোববার সকাল ১১ টায় বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের (বিবিএফ) সহযোগিতায় সম্মেলন শুরু হয়। উদ্বোধনী অধিবেশনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিজিএমইএ সভাপতি আতিকুল ইসলাম বলেন, তৈরি পোশাক বাংলাদেশের অর্থনীতির অন্যতম চালিকাশক্তি। ৩০ লাখের বেশি নারী শ্রমিক এতে কর্মরত রয়েছেন। তিনি বলেন, বিশ্ববাজারে তৈরি পোশাক খাতে চীনের পরেই বাংলাদেশের অবস্থান। আগামী ৭ বছরে এই খাত থেকে বাংলাদেশ ৫০ বিলিয়ন ডলার আয় করতে সক্ষম হবে। আর তখন লাখ লাখ লোকের কর্মসংস্থান হবে। আতিকুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের পোশাক কারখানাগুলোকে নিরাপদ করতে বিজিএমইএ আইএলও’র গাইডলাইন অনুসারে কাজ করছে। তিনি বিজিএমইএর নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কথাও এসময় তুলে ধরেন। শনিবার দুপুরে বিজিএমইএর কনফারেন্স রুমে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বিজিএমইএ। এতে বলা হয়, সম্মেলনের পাশাপশি বাংলাদেশ গার্মেন্টস ম্যানুফ্যাকচার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিজিএমইএ) উদ্যোগে এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। এতে অংশগ্রহণ করবে বিশ্বসেরা বিশেষজ্ঞ, সাংবাদিক, বিনিয়োগকারী, আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড ও নীতিনির্ধারকরা। এবারের সম্মেলনের প্রতিপাদ্য ‘বাংলাদেশ পোশাকশিল্প ২০২১: ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বাংলাদেশের ৫০তম জন্মবার্ষিকীতে।’

শেয়ার করুন