শেখ হাসিনার নেতৃত্বে লক্ষ্য অর্জিত হবে

0
41
Print Friendly, PDF & Email

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ১৯৭২ সালে আমরা তৈরি পোশাক শিল্পের যাত্রা শুরু করেছিলাম। তখন এ খাত থেকে আমাদের আয় ছিল ৩৪৮ মিলিয়ন ডলার। বর্তমানে তৈরি পোশাক খাতে আমাদের আয় ৩০ বিলিয়ন ডলারের বেশি। ২০২১ সালের মধ্যে তৈরি পোশাক খাতে আয় ধরা হয়েছে ৫০ বিলিয়ন ডলার। আশা করি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে সক্ষম হবো। রোববার সকালে বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী সম্মেলন কেন্দ্রে তিন দিনের ঢাকা অ্যাপারেলস সামিটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। রোববার সকাল ১১টায় বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরামের (বিবিএফ) সহযোগিতায় সম্মেলন শুরু হয়। দেশি-বিদেশি ব্র্যান্ড নিয়ে আয়োজিত এ সম্মেলন উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধনী অধিবেশনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিজিএমইএ সভাপতি আতিকুল ইসলাম বলেন, তৈরি পোশাক বাংলাদেশের অর্থনীতির অন্যতম চালিকাশক্তি। ৩০ লাখের বেশি নারী শ্রমিক এতে কর্মরত। তিনি বলেন, বিশ্ববাজারে তৈরি পোশাক খাতে চীনের পরেই বাংলাদেশের অবস্থান। আগামী ৭ বছরে এই খাত থেকে বাংলাদেশ ৫০ বিলিয়ন ডলার আয় করতে সক্ষম হবে। আর তখন লাখ লাখ লোকের কর্মসংস্থান হবে। আতিকুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের পোশাক কারখানাগুলোকে নিরাপদ করতে বিজিএমইএ আইএলওর গাইডলাইন অনুসারে কাজ করছে। তিনি বিজিএমইএর নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কথাও এসময় তুলে ধরেন। গতকাল শনিবার দুপুরে বিজিএমইএর কনফারেন্স রুমে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বিজিএমইএ। এতে বলা হয়, সম্মেলনের পাশাপশি বাংলাদেশ গার্মেন্টস ম্যানুফ্যাকচার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিজিএমইএ) উদ্যোগে এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। এতে অংশগ্রহণ করবে বিশ্বসেরা বিশেষজ্ঞ, সাংবাদিক, বিনিয়োগকারী, আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড ও নীতিনির্ধারকরা। এবারের সম্মেলনের প্রতিপাদ্য ‘বাংলাদেশ পোশাকশিল্প ২০২১: ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বাংলাদেশের ৫০তম জন্মবার্ষিকীতে।’ আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘তিন দিনের এ সম্মেলনে বিশ্বসেরা বিশেষজ্ঞ, সাংবাদিক, বিনিয়োগকারী, আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড ও নীতিনির্ধারকরা একত্রিত হবেন এবং লাখ লাখ কর্মজীবী ও উদ্যোক্তা দেশের সত্যিকারের স্পিরিট তুলে ধরবেন।’ তিনি জানান, শনিবার সকাল পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের ২২টি ব্র্যান্ড, ইউরোপীয় ইউনিয়নের ৪৪টি ব্র্যান্ড তাদের অংশগ্রহণের প্রস্তাব জমা দিয়েছে। এছাড়া সম্মেলনের সেমিনারে অংশগ্রহণের জন্য ২ হাজারের বেশি সদস্য নিবন্ধিত হয়েছে।

শেয়ার করুন