ঠোঁটকাটা কারিনা!

0
71
Print Friendly, PDF & Email

ঠোঁটকাটা কারিনা! মনে যা আসে তা অনায়াসে বলে ফেলেন বলিউডের প্রভাবশালী কাপুর পরিবারের মেয়ে ও পতৌদির নবাব পরিবারের পুত্রবধূ কারিনা। পাছে কে কি মনে করল, তাতে যেন তাঁর কিছুই যায়-আসে না। বলা চলে, ঠোঁটকাটা স্বভাবের জন্য কুখ্যাতিই আছে বলিউডের অভিনেত্রী কারিনা কাপুর খানের। এখন পর্যন্ত বহুবার বলিউডের একাধিক নির্মাতা, অভিনেতা ও অভিনেত্রী সম্পর্কে চাঁচাছোলা মন্তব্য করে আলোচনা ও সমালোচনার জন্ম দিয়েছেন ৩৪ বছর বয়সী এ তারকা অভিনেত্রী। তাঁর মন্তব্যগুলো কেবল সাহসীই নয়, তা খানিক আনন্দও দেয় বটে। সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে বিভিন্ন সময়ে করা কারিনার এমন ১০টি স্পষ্ট আর সাহসী মন্তব্যের কথা জানিয়েছে ওয়ান ইন্ডিয়া। ‘সালমান খুবই বাজে একজন অভিনেতা’ আমি একদমই সালমান-ভক্ত নই। তাঁকে পছন্দই করি না। সালমান খুবই বাজে একজন অভিনেতা। আমি তাঁকে বলেছি, তিনি সব সময় অতিরঞ্জিত অভিনয় করেন। সঞ্জয় লীলা বানশালীর কোনো নীতি ও আদর্শ নেই সঞ্জয় লীলা বানশালী একজন বিশৃঙ্খল পরিচালক। তিনি এমন একজন মানুষ, যিনি কথা দিয়ে কথা রাখেন না। তাঁর কোনো নীতি ও আদর্শ নেই। কাল যদি তিনি রাজ কাপুর কিংবা গুরু দত্তের সমপর্যায়ের নির্মাতা হন আর আমার ছবি যদি ভালো না চলে এবং আমি যদি ফ্লপ অভিনেত্রীর তালিকায় নাম লেখাই তার পরও কখনোই আমি তাঁর সঙ্গে কাজ করব না। অন্যদের কাজের সুযোগ করে দিতে আমি গর্ব অনুভব করি অন্যদের কাজের সুযোগ করে দিতে আমি আনন্দ ও গর্ব অনুভব করি। আমার প্রত্যাশা, আমার ছেড়ে দেওয়া বড় কলেবরের ছবিতে অভিনয় করে তাঁরা (অভিনেত্রীরা) তারকায় পরিণত হোক। ডেভিড ধাওয়ানের সঙ্গে কাজ করব না আমার বোন হয়তো তাঁর সঙ্গে কাজ করেই ক্যারিয়ার গড়েছে। কিন্তু আমি তা চাই না। আমি অন্য রকম কাজ করার জন্য সাহসী হব। অন্তত আগামী চার বছরের মধ্যে আমি ডেভিড ধাওয়ানের সঙ্গে কাজ করব না। তিনি যে ধরনের সিনেমা বানান, সে ধরনের সিনেমায় কাজ করতে আমি একদমই আগ্রহী নই। আমি কেবলমাত্র ভালো নির্মাতাদের সঙ্গেই কাজ করতে চাই। কাজের তাগিদে তিন-চার মাসের জন্য বাইরে থাকতে পারব না আমি জীবনের এমন একটি অধ্যায়ে প্রবেশ করেছি, যেখানে আমার অগ্রাধিকারের বিষয়গুলো ভিন্ন…আমি বিবাহিত এবং আমি আমার পরিবারকেই সময় দিতে চাই। কাজের তাগিদে তিন-চার মাসের জন্য বাইরে থাকতে পারব না আমি। মূলত এ কারণেই জয়ার ‘দিল ধাড়াক নে দো’ সিনেমায় কাজ করার প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছি। আমি কেবল সেই ছবিতেই কাজ করব, যে ছবির শুটিং শিডিউল আমার সুবিধা অনুযায়ী নির্ধারণ করা হবে। আমি স্পষ্ট করে জানিয়ে দিতে চাই, এখন থেকে আমি তাঁদের সঙ্গেই কাজ করব, যাঁরা আমার প্রয়োজন অনুযায়ী তাঁদের শিডিউল মিলিয়ে নেবেন। ঐতিহাসিক কোনো ব্যবসাসফল ছবি নেই শ্রীদেবীর দখলে আমার চলচ্চিত্র নির্মাতারা আমাকে গ্রহণ করেছেন। তাঁরা জানেন, আমি আমার নিজের মতো। নয় বছর কাজ করার পর প্রথম ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিয়েছিলেন মাধুরী দীক্ষিত। আর ঐতিহাসিক কোনো ব্যবসাসফল ছবি নেই শ্রীদেবীর দখলে। তার পরও তাঁরা তাঁদের সময়ের প্রথম সারির অভিনেত্রী ছিলেন। কারণ তাঁরা প্রচণ্ড মেধাবী। আমার অবস্থাও তাঁদের মতোই। ‘হিরোইন’ লেখাই হয়েছিল আমার জন্য মাধুর ভান্ডারকার ও তাঁর চলচ্চিত্র প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের প্রচণ্ড ইচ্ছে ছিল আমি যেন ‘হিরোইন’ ছবিতে থাকি। আসলে ‘হিরোইন’ লেখাই হয়েছিল আমার জন্য। ‘হিরোইন’ ছবিটি ‘ফ্যাশন’ ছবির চেয়ে অনেক বড় কলেবরের ও উন্নতমানের। কারিশমার মতো এত সুন্দরভাবে নিজেকে তুলে ধরা অন্য কোনো অভিনেত্রীর পক্ষেই সম্ভব নয় সবার প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই বলছি, গ্ল্যামারবিহীন রূপে কারিশমার মতো এত সুন্দরভাবে নিজেকে তুলে ধরা অন্য কোনো অভিনেত্রীর পক্ষেই সম্ভব নয়। ওবামাও জানেন সাইফ-কারিনা বিয়ে করতে যাচ্ছে মিস্টার ওবামাও বোধ হয় এই বিয়ে নিয়ে আলোচনা করছেন। আমি নিশ্চিত, ওবামাও জানেন সাইফ-কারিনা বিয়ে করতে যাচ্ছে। কারণ পুরো ভারত এই বিয়ে নিয়ে কথা বলছে। বিষয়টি খুবই বিরক্তিকর। এখন আমরা আমাদের বিয়ে নিয়ে কথা বলা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা আমাদের সম্পর্ক নিয়ে একে অন্যের প্রতি দায়বদ্ধ। আমরা কবে বিয়ে করব, তা কেবল আমি আর সাইফই জানব। ২০১৪ সালটা স্বামীর সঙ্গে সময় কাটানোর বছর আমার জন্য ২০১৪ সালটা সুখী ও পরিতৃপ্ত থাকার একটি বছর। স্বামীর সঙ্গে সময় কাটানোর বছর। ছবিতে অভিনয়ের ক্ষেত্রে বন্ধুদের ‘না’ বলার একটি বছর। অতীতে কখনোই আমি এমন করিনি।

শেয়ার করুন