‘দ্রুত নির্বাচন না দিলে দুর্যোগ’

0
48
Print Friendly, PDF & Email

বুধবার সকালে এক মানববন্ধন কর্মসূচিতে তিনি বলেন, “সরকারকে বলব এখনো সময় আছে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আলোচনা করে দ্রুত নির্বাচন দিন। লুটপাট-গুন্ডামি বন্ধ করুন। অন্যথায় দেশে যে দুর্যোগ নেমে আসবে, তা থেকে আপনারা রক্ষা পাবেন না।”

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ঈদের পর আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করবেন বলেও জানান দুদু।

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক দলের উদ্যোগে গণমাধ্যমের ওপর ‘কালো আইন’ প্রণয়নের উদ্যোগের প্রতিবাদে এই মানবন্ধন হয়।

তৎকালীর রাষ্ট্রপতি বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ প্রিন্টিং প্রেসেস অ্যান্ড পাবলিকেশনস অ্যাক্ট-১৯৭৩ এর সংবাদপত্র বাতিলে জেলা ম্যাজেস্ট্রেটের ক্ষমতা রহিত করেন।

১৯৯১ সালে তৎকালীন অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি বিচারপতি সাহাবুদ্দীন আহমদ সাংবাদিকদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে প্রকাশনার আইনের ওই ধারা বাতিল করেন। তবে সেই আইনটি ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে বলে গণমাধ্যমে খবর এসেছে।

১৯৭২-৭৫ সালের শাসনামলের ঘটনা তুলে ধরে শামসুজ্জামান দুদু বলেন, “সুশাসন বন্ধ করে স্বৈরাশাসনের মতো দেশ পরিচালনার পরিণতি কি হয়ে, তার বড় উদাহরণ ৭২-৭৫ সাল। ওই ইতিহাস অবশ্যই আওয়ামী লীগের জানা থাকার কথা।”

দেশের বর্তমান পরিস্থিতিকে ‘সংকটজনক’ বলেও আখ্যায়িত করেন তিনি।

দুদু বলেন, “সরকার জোর করে অবৈধভাবে ক্ষমতায় বসে আছে। ৫ জানুয়ারি এদেশের জনগণ ভোট দেয়নি। তারপরও সরকারের লজ্জা নেই। লুটপাট করে অর্থের বিশাল সম্পদ গড়ছে।”

সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ওসামান গনির সভাপতিত্বে মানবন্ধন কর্মসূচিতে স্বাধীনতা ফোরামের সভাপতি আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, সংগঠনের সৈয়দ মোজাম্মেল হোসেন শাহিন, এস এম মিজানুর রহমান, কালাম ফয়েমী, শহীদুর রহমান শহিদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

শেয়ার করুন