সমুদ্র জয় সরকার কূটনৈতিক দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে:হানিফ

0
85
Print Friendly, PDF & Email

ভারতের সঙ্গে সমুদ্রসীমা বিরোধ নিষ্পত্তি মামলার রায় প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেছেন, এর মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে বাংলাদেশের অধিকার আদায়ে বর্তমান সরকার প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। এ বিজয়ের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ সরকার কূটনৈতিক দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে।

মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর টিসিবি ভবনে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় এ কথা বলেন তিনি ।

ভারতের সঙ্গে সমুদ্রসীমা বিরোধ নিষ্পত্তি মামলার রায়কে বাংলাদেশের পুরো অর্জন বলে মনে করেন হানিফ।

তিনি বলেন, এই সমুদ্র বিজয়ের মধ্য দিয়ে প্রমাণ হয়েছে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার জনগণের সরকার। এই সরকারই পারে জনগণের অধিকারে আদায় করতে এবং এই সরকারই পারবে জনগণের অর্থনৈতিক মুক্তি এনে দিতে।

প্রসঙ্গত, মিয়ানমারের পর এবার ভারতের সঙ্গেও সমুদ্রসীমা বিরোধ নিষ্পত্তি মামলায় জয়ী হয়েছে বাংলাদেশ। নেদারল্যান্ডসের হেগ-এ অবস্থিত আন্তর্জাতিক সালিশি আদালতের (পিসিএ) রায়ে বিরোধপূর্ণ ২৫ হাজার ৬০২ বর্গকিলোমিটারের মধ্যে ১৯ হাজার ৪৬৭ বর্গকিলোমিটার সামুদ্রিক ভূখণ্ড পেয়েছে বাংলাদেশ।

আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, সমুদ্র সীমা নিয়ে অতীতে কেউ কথা বলেনি। আওয়ামী লীগই সমুদ্র সীমা নিয়ে কথা বলেছে। এর আগে আমরা মিয়ানমারের সঙ্গে সমুদ্র সীমা নিয়ে লড়াইয়ে জয়লাভ করেছি। এর পর আবার ভারতের সঙ্গে বিরোধপূর্ণ ২৫ হাজার ৬০২ বর্গকিলোমিটার এলাকার মধ্যে ১৯ হাজার ৪৬৭ বর্গকিলোমিটার এলাকা বাংলাদেশ পেয়েছে।

আন্তর্জাতিক আদালতে গিয়ে মিয়ানমার ও ভারতের সঙ্গে সমুদ্রসীমায় বিজয় অর্জন সম্ভব হয়েছে। এখন বাংলাদেশ কি তিস্তাসহ অন্যান্য নদীর পানির ন্যায্য হিস্যা আদায়ে আন্তর্জাতিক আদালতে যাবে? এমন প্রশ্নের জবাবে হানিফ বলেন, সেই সময় এখনো হয়েছে বলে আমি করি না। ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার তিস্তা চুক্তি নিয়ে অনেক আন্তরিক ছিলো। তবে তাদের অভ্যন্তরীণ সমস্যার কারণে এ চুক্তি করা সম্ভব হয়নি। ভারতে এখন নতুন সরকার ক্ষমতায় এসেছে আমরা মনে করি তাদের সঙ্গে আলোচনা করেই এসব সমস্যার সমাধান হবে।

হানিফ বলেন, বাংলাদেশের যতগুলো অর্জন সব আওয়ামী লীগের নেতৃত্বেই এসেছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান থেকে শুরু করে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের সরকারই বাংলাদেশের সকল অর্জনের নেতৃত্ব দিয়েছে।

শেয়ার করুন