সমুদ্রসীমা রায়ে অধিকার বঞ্চিত হয়েছে বাংলাদেশ : বিএনপি

0
106
Print Friendly, PDF & Email

ভারতের সঙ্গে নুতন সমুদ্রসীমা নির্ধারণের আন্তর্জাতিক সালিশ আদালতের রায়ে অসঙ্গতি রয়েছে বলে জানিয়েছে বিএনপি। এতে বঙ্গোপসাগরে একচ্ছত্র অর্থনৈতিক অঞ্চলের ওপর নিরঙ্কুশ অধিকার প্রতিষ্ঠা পায়নি। এই রায়ে তালপট্টি দ্বীপের অধিকার থেকেও বাংলাদেশ বঞ্চিত হয়েছে বলে মনে করে দলটি।
রায়ের প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে দলের ভাইস চেয়ারম্যান সাবেক পানি সম্পদ মন্ত্রী হাফিজ উদ্দিন আহমেদ সাংবাদিকদের বলেছেন, সালিশ আদালতের রায়ে আমি কিছু অঙ্গতি দেখতে পারছি। সমুদ্রের এক্সকুসিভ ইকনোমিক জোনে বাংলাদেশের নিরঙ্কুশ প্রতিষ্ঠা পায়নি।
তিনি বলেন, বাংলাদেশের দাবি ছিল, বঙ্গোপসাগর ও ভূমির মূলবিন্দু থেকে সমুদ্রের দিকে ১৮০ ডিগ্রির সোজা রেখা যাবে। ন্যায্যতার ভিত্তিতে সমুদ্র সীমানা নির্ধারণই বাংলাদেশ চেয়েছিলো। অন্যদিকে ভারত দাবি ছিলো- সমুদ্রতট বিবেচনায় এ রেখা হবে ১৬২ ডিগ্রি থেকে। অর্থাৎ সমদূরত্বের ভিত্তিতে। আন্তর্জাতিক সালিশ আদালতের রায়ে বাংলাদেশের প্রাপ্তি এসেছে ১৭৭ দশমিক ৩ ডিগ্রি। আমাদের প্রাপ্য দাবি ১৮০ ডিগ্রি পেলে সঠিক ন্যায় বিচার (জাস্টিস) আমরা পেতাম।
সাবেক পানি সম্পদ মন্ত্রী বলেন, আমরা মনে করি, এই রায়ে বাংলাদেশ একছত্র (এক্সকুসিভ) অর্থনৈতিক অঞ্চলে নিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠার স্বীকৃতি পায়নি। অন্যদিকে ওই রায়ে ভারতের সমুদ্র সীমানায় মহিসোপান ও একছত্র ইকনোমিক জোনে তাদের কর্তৃত্ব নির্ধারণ করেছে। এট অসঙ্গতিপূর্ণ।
তালপট্টি দ্বীপের বিষয়ে বাংলাদেশের দাবির কথা তুলে ধরে সাবেক এই পানি সম্পদ মন্ত্রী বলেন, প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আমল থেকে এই দ্বীপটির আমাদের ভুখন্ডের অংশ হিসেবে দাবি করে আসছে। অথচ রায়ে এই দ্বীপটি আমাদের সমুদ্র সীমানায় মধ্যে পড়েনি।
বঙ্গোপসাগরের বিরোধপূর্ণ সাড়ে ২৫ হাজার কিলোমিটার এলাকার মধ্যে প্রায় সাড়ে ১৯ হাজার কিলোমিটার এলাকা বাংলাদেশকে দিয়ে ভারতের সঙ্গে নতুন সমুদ্রসীমা নির্ধারণ করে দিয়েছে আন্তর্জাতিক সালিশি আদালত।

শেয়ার করুন