যে পাঁচ কারণে ব্রাজিলকে হারাতে পারে কলম্বিয়া

0
38
Print Friendly, PDF & Email

ব্রাজিল-কলম্বিয়া কোয়ার্টার ফাইনালে কে জিতবে? এ প্রশ্নে বোধ হয় বেশির ভাগ উত্তরই আসবে ব্রাজিলের পক্ষে। দলীয় শক্তিতে স্পষ্টতই এগিয়ে ব্রাজিলীয়রা। এগিয়ে পরিসংখ্যানেও। এ পর্যন্ত দুই দল মোট ২৫ বার মুখোমুখি হয়েছে। এর মধ্যে মাত্র দুটি ম্যাচে জয় পেয়েছে কলম্বিয়া, ব্রাজিল জিতেছে ১৫ ম্যাচে। আটটি ম্যাচে কেউ কাউকে হারাতে পারেনি। বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ১০ লড়াইয়ে ব্রাজিলের জয় ১০টি। এখানে একবারও জয়ের মুখ দেখেনি কলম্বিয়া। বিশ্বকাপের চূড়ান্তপর্বে এই প্রথম মুখোমুখি দুই দল। কলম্বিয়া কি পারবে পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের পরাস্ত করতে? কঠিন হলেও ব্যাপারটা অসম্ভব নয়। কালকের ম্যাচকে সামনে রেখে বার্তা সংস্থা এএফপির ক্রীড়া বিভাগ এমন পাঁচটি বিষয় উল্লেখ করেছে, যে কারণে ব্রাজিলকে হারানোর আশা করতেই পারে কলম্বিয়া।

১. ‘রাজা’ রদ্রিগেজ: বিশ্বকাপের আগে তাঁকে নিয়ে খুব একটা আলোচনা হয়নি। আলোচনার কেন্দ্রে ছিলেন কেবল তিনজন—লিওনেল মেসি, নেইমার ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। তবে পাঁচ গোল করে হামেস রদ্রিগেজ ছাড়িয়ে গেছেন সবাইকেই। আরও দুটি গোলে সহায়তা করেছেন। বিশ্বকাপের ‘রাজা’ রদ্রিগেজ হতে পারেন ব্রাজিল-বধের মূল অস্ত্র।

২. নেইমারের ফিটনেস সমস্যা: দ্বিতীয় রাউন্ডে চিলির বিপক্ষে ম্যাচে বাজেভাবে ফাউলের শিকার হন নেইমার। হ্যামস্ট্রিংয়ে তাঁর সমস্যা এখনো আছে, ঊরু ফুলে আছে বেশ কিছুটা। হাঁটুর ব্যথা তো আছেই। লুইস ফেলিপে স্কলারি ভক্তদের অভয় দিলেও এটা স্পষ্ট, ব্রাজিলের আক্রমণভাগের প্রধান অস্ত্র পুরোপুরি ফিট নন। এই সুযোগটা কাজে লাগাতে পারে কলম্বিয়া।

৩. নিষ্প্রভ ফ্রেড ও জো: বিশ্বকাপের চার ম্যাচে এখনো নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি ব্রাজিলের আক্রমণভাগের অন্যতম স্তম্ভ ফ্রেড ও জো। ফ্রেড একটি গোল পেলেও জো-র ঝুলি এখনো ফাঁকা। দুই ব্রাজিলীয় ফরোয়ার্ডের নিষ্প্রভতায় আশাবাদী হতেই পারে কলম্বিয়া।

৪. ব্রাজিলীয়দের মানসিক অবস্থা: চিলির বিপক্ষে টাইব্রেকারে পেনাল্টি ঠেকিয়ে গোলরক্ষক হুলিও সিজার হু হু করে কেঁদেছেন। ভাগ্যের জোরে বিশ্বকাপে টিকে থাকায় আবেগে কেঁদেছেন ডেভিড লুইজ, থিয়াগো সিলভা, নেইমারসহ অনেকেই। খেলোয়াড়দের মনের অবস্থাটা বুঝতে পেরে গতকাল ব্রাজিলের অনুশীলন শিবিরে মনোবিজ্ঞানী রেগিনা ব্রান্দাওকে ডেকে এনেছিলেন কোচ স্কলারি। তাতে কতটুকু কাজ হয়েছে কে জানে!

৫. মাঝমাঠে নেই গুস্তাভো: পরপর দুই ম্যাচে হলুদ কার্ড পাওয়ায় কালকের ম্যাচে খেলতে পারবেন না লুইজ গুস্তাভো। তাঁর অনুপস্থিতি ব্রাজিলের মাঝমাঠে শূন্যতা সৃষ্টি করতে পারে। ডিফেন্ডার মার্সেলো ও ফরোয়ার্ড দানি আলভেজের মাঝখানে বড় একটা অংশ জুড়ে খেলতেন গুস্তাভো। রক্ষণভাগেও সহায়তা করতেন তিনি। গুস্তাভো না থাকায় ব্রাজিলের রক্ষণ ভেঙে ফেলাটা জেমস রদ্রিগেজের জন্য কিছুটা হলেও সহজ হবে।
এএফপির উল্লেখ করা পাঁচটি দিক অবশ্যই কলম্বিয়ার জন্য স্বস্তির। এর পরও প্রশ্নটা থেকে যায়, কলম্বিয়া কি পারবে ব্রাজিলের স্বপ্নভঙ্গ করতে? এবারের বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ গোলদাতা রদ্রিগেজ কি পারবেন দেশের মাটিতে ব্রাজিলীয়দের আবারও শোকের সাগরে ভাসাতে?

শেয়ার করুন