ভারতে কারাভোগের পর দেশে ফিরলেন ২১ বাংলাদেশি

0
46
Print Friendly, PDF & Email

ভালো চাকুরির আশায় হিলি সীমান্ত দিয়ে ভারতে গিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়ার পর ২১ বাংলাদেশি যুবক সাড়ে ৪ বছর সাজাভোগ শেষে দেশে ফিরেছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে পুলিশ ইমিগ্রেশনের কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করেছে ভারতীয় ইমিগ্রেশন পুলিশ কর্মকর্তারা। এ সময় বিজিবি কর্মকর্তারা ও উপস্থিত ছিলেন।   
বেনাপোল চেকপোস্ট পুলিশ ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আসলাম খাঁন জানান, ভালো চাকরির আশায় বাংলাদেশের হিলি সীমান্ত দিয়ে ভারতে গিয়ে জম্মু কাশ্মির এলাকায় অবৈধভাবে বসবাস করার সময় সে দেশের গোয়েন্দা পুলিশের হাতে আটক হন তারা। সেখান থেকে তাদের পাঠানো হয় জেলহাজতে। অবৈধভাবে বসবাস করার অপরাধে আদালত তাদের ৪ বছরের সাজা দেয়। পরে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় এদের নাম ঠিকানা জোগাড় করে বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয় ঢাকায় পাঠায়। পরে দুই দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের চিঠি চালাচালির পর তাদের দেশে ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়। বৃহস্পতিবার সকালে তাদের ভারতের পেট্রাপোল চেকপোস্টে আনা হয়। পরে তাদের হস্তান্তর করা হয় বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে। ইমিগ্রেশন কর্মকর্তারা তাদের বেনাপোল পোর্ট থানায় হস্তান্তর করে।
বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অপূর্ব হাসান জানান, ভারত থেকে ফেরত আসা ২১ বাংলাদেশি যুবকদের তাদের অভিভাবকদের কাছে হস্তান্তর করবে।   
ফেরত আসা যুবকরা হলেন- সুনামগঞ্জের ইমরান মিয়া (৩২), জসিম উদ্দিন (৩৩), নজরুল ইসলাম (৩১), ইমির হোসেন (৩৪), লুৎফর রহমান (৩৬), বদরুল হক (২৮), আলী আমজাদ (২৮), একলাস মিয়া (৩৫), জহির আলম (৩৬), বশির আহম্মদ (৩২), মোক্তার হোসেন (৩৩), আবুল খায়ের (৩৭), আলী হায়দার (৪০), আবু শহিদ (২৯), আশিক মিয়া (৩৮), ঢাকার লিটন মিয়া (৩৪), টাঙ্গাইলের সাইফুল ইসলাম (৩৮), খুলনার মামুন হাওলাদার (৩৬), ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রফিকুল ইসলাম (৩২), নোয়াখালীর হেদায়েতুল্লাহ (৪১) ও রাজবাড়ীর দলুমিয়া (৩০)।
ফেরত আসারা জানান, দালালরা ভারতের জম্মু কাশ্মির এলাকায় ভালো চাকরি দেয়ার নাম করে তাদের কাছ থেকে ২ থেকে ৩ হাজার টাকা করে নিয়ে ভারতে পাচার করে। দীর্ঘ সাড়ে চার বছরের দুর্ভোগ শেষে তারা দেশে ফিরেছে। দেশে ফিরতে পেরে ভাল লাগছে বলে জানান তারা।

শেয়ার করুন