তদবির সংস্কৃতির কারণে দুর্নীতি প্রশ্রয় পাচ্ছে: তথ্যমন্ত্রী

0
32
Print Friendly, PDF & Email

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘তদবির সংস্কৃতির কারণে দুর্নীতি প্রশ্রয় পাচ্ছে। প্রশাসন ও গণমাধ্যমের প্রতি আহ্বান, মুখ দেখে, দল দেখে কাউকে প্রশ্রয় দেবেন না, দুর্নীতিকে ছাড় দেবেন না।’
বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট (পিআইবি) ও দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উদ্যোগে চালু করা ‘দুর্নীতি প্রতিরোধে গণমাধ্যম পুরস্কার বাংলাদেশ’ বিতরণ অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী এ কথা বলেন। আজ শনিবার রাজধানীর স্থানীয় একটি হোটেলে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, গণমাধ্যমে যে দুর্নীতির কথা ওঠে, প্রশাসনিক কর্মকর্তারা তা আমলে নেন না। এটা আমলে নিতে হবে। প্রতিবেদন লেখার পর বিষয়টি নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত লেগে থাকার জন্য সাংবাদিকদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।
অনুষ্ঠানে বিজয়ী পাঁচজন সাংবাদিকদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন তথ্যমন্ত্রী। পুরস্কার পাওয়া সাংবাদিকেরা হলেন জাতীয় দৈনিক পত্রিকা শ্রেণিতে প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রোজিনা ইসলাম, আঞ্চলিক সংবাদপত্র শ্রেণিতে যশোরের গ্রামের কাগজ-এর মোসাম্মাত্ খুরশীদ মহল, সাপ্তাহিক শ্রেণিতে নিউ এজ-এর সাপ্তাহিক সাময়িকীর সাদিকুর রহমান, টেলিভিশন শ্রেণিতে মাছরাঙা টেলিভিশনের মো. বদরুদ্দোজা ও টেলিভিশন ক্যামেরা পারসন শ্রেণিতে একই টেলিভিশনের মেহেদী হাসান। পুরস্কারপ্রাপ্তদের হাতে ক্রেস্ট ও সনদ তুলে দেওয়া হয়।

বিজয়ীরা পুরস্কারের অংশ হিসেবে ৩০ জুন থেকে ২ জুলাই পর্যন্ত জার্মানির বনে অনুষ্ঠেয় গ্লোবাল মিডিয়া ফোরামে অংশ নেবেন। পুরস্কার প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে সহযোগিতায় রয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ।

গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান অধ্যাপক গোলাম রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন দুদকের চেয়ারম্যান মো. বদিউজ্জামান, দুদকের কমিশনার নাসিরউদ্দীন আহমেদ, তথ্যসচিব মরতুজা আহমেদ, পুরস্কার প্রতিযোগিতার জুরি বোর্ডের সদস্য ও সাংবাদিক নেতা মনজুরুল আহসান বুলবুল, আইন মন্ত্রণালয়ের অধীন ‘জাস্টিস রিফর্ম ও করাপশন প্রিভেনশন’ প্রকল্পের পরিচালক আবু আহমেদ জমাদার, ভোরের কাগজ-এর সম্পাদক শ্যামল দত্ত  প্রমুখ

শেয়ার করুন