আ. লীগকে গণতন্ত্রের পথে আসার ডাক ফখরুলের

0
55
Print Friendly, PDF & Email

দ্রুত নির্বাচনের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগকে গণতন্ত্রের পথে ফিরে আসার আহ্বান জানিয়েছে বিএনপি।

সোমবার আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিনে এই আহ্বান জানান বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তিনি বলেন, “গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠার আদর্শ নিয়ে একদিন আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো। সেই দর্শন থেকে দলটি এখন দূরে সরে গেছে। ৫ জানুয়ারি ভোটবিহীন নির্বাচনের মাধ্যমে তারা অতীতে মতো একদলীয় শাসনে দেশ চালাচ্ছে।

“দলটি প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে আমরা আশা করবো, অতিদ্রুত সব দলের অংশগ্রহণের ভিত্তিতে একটি সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা করে তারা গণতন্ত্রের পথে ফিরে আসবে।”

আওয়ামী লীগের ৬৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ২৩ জানুয়ারি। ১৯৪৯ সালের এদিনে পুরান ঢাকার রোজ গার্ডেনে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা হয়েছিলো।

সকালে ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (এ্যাব ) নবগঠিত কমিটির সভাপতি আ ন হ আখতার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক হারুন অর রশীদসহ নেতাকর্মীদের নিয়ে শেরে বাংলা নগরে জিয়াউর রহমানের কবরে পুস্পমাল্য অর্পন করে মির্জা ফখরুল। পরে তার আত্মার শান্তি কামনা করে মোনাজাত করেন তারা ।

মির্জা ফখরুল বলেন, “যে নীতি-আদর্শ ও ঐতিহ্য নিয়ে আওয়ামী লীগের একদিন যাত্রা শুরু করেছিল, তারা সেই গণতন্ত্রের ঐতিহ্যকে লালন করে না। ১৯৭৫ সালে এক দলীয় বাকশাল প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে তারা গণতন্ত্রকে হত্যা করেছে। ৫ জানুয়ারি একতরফা নির্বাচন করে এবারো দলটি একদলীয়ভাবে দেশ পরিচালনা করছে।”

তিনি বলেন, “দেশে কোনো বৈধ সরকার নেই। জোর করে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় বসে আছে। আমরা আশা করবো, তাদের শুভ বুদ্ধির উদয় হবে। অবিলম্বে সবার অংশগ্রহণে নির্বাচনের ব্যবস্থা করবে।”

রমনা বটমূলে বোমা মেরে হত্যা করার মামলার রায়ের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, “আদালত রায় দিয়েছে। এনিয়ে কোনো বক্তব্য নেই। আওয়ামী লীগের আমলেই এই রমনা বটমূলে বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছিল। তারা ক্ষমতায় আসলেই জঙ্গিবাদের উত্থান ঘটেছে।

“কেবল রমনার বটমূল নয়, যশোরে উদীচী, পল্টনে সিপিবি‘র সমাবেশে বোমা হামলার ঘটনা আওয়ামী লীগের আমলে ঘটেছিলো। আর বিএনপি ওইসব জঙ্গিবাদ নির্মূল করেছে। ওইসব বোমা হামলার ঘটনার তদন্ত ও বিচার বিএনপির আমলেই শুরু হয়েছে।”

শেয়ার করুন