মঠবাড়িয়ায় প্রেমিক যুগলের আত্মহনন !

0
293
Print Friendly, PDF & Email

পিরোজপুর: রুঢ় বাস্তবতার সমীকরণ বুঝে উঠতে না উঠতেই হৃদয়ে ওদের ভর করেছিল অবুঝ প্রেম। ভালবাসার সাত সমুদ্দুর পাড়ি দেয়ার স্বপ্ন দেখেছিল ওরা। কিন্তু না। কয়েকদিন যেতে না যেতেই বেঁকে বসে একটি পরিবার। সেকারণেই অবুঝ প্রেমের অথৈ সাগরে ডুবে গেছে ভালবাসার সাম্পান। বাবা-মা, আত্মীয়-স্বজন আর লোক সমাজের প্রতি অভিমান নিয়ে গত শনিবার দিবাগত রাতে আত্মহত্যা করে অনিতা ও সুমন। ঘটনাটি ঘটেছে গত শনিবার দিবাগত রাতে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া উপজেলার টিকিকাটা ইউনিয়নের কুমিরমারা গ্রামে। থানা ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, মোবাইল ফোনে পরিচয়ের সুত্র ধরে কলেজ ছাত্রী অনিতা হালদার(১৮) ও যুবক সুমন বেপারীর(২০)সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বিষয়টি জানাজানি হয়ে গেলে অনিতার পরিবার এ সম্পর্কে বাঁধ সাধে। সুমনের পরিবার হতে উভয়ের বিয়ের ব্যাপারে প্রস্তাব দিয়ে সাঁড়া না মেলায় অনিতা ও সুমন মানসিক কষ্টে একই দড়িতে আম গাছের সাথে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

নিহত যুবক সুমন মঠবাড়িয়া উপজেলার ধানীসাফা ইউনিয়নের চিত্রাপাতাকাটা গ্রামের পান বিক্রেতা চিত্ত রঞ্জন বেপারীর ছেলে। সুমন এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার পর অকৃতকার্য হলে লেখা পড়া ছেড়ে দেয়। অপরদিকে নিহত কলেজ ছাত্রী অনিতা কুমিরমারা গ্রামের দিনমজুর নিরঞ্জন হালদারের ছোট মেয়ে। সে পাশ্ববর্তী ডৌয়াতলা ওযাজেদ আলী খান ডিগ্রী কলেজ হতে এবার অনুষ্ঠিত এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়। এ ঘটনায় নিহত দুই পরিবারে এখন শোকের মাতম চলছে।

থানা ও নিহতদের পরিবার সূত্রে জানাগেছে, শনিবার দিবাগত রাতে দিকে অনিতার বাবা ও মা মেয়েকে একা ঘরে রেখে প্রতিবেশী এক বাড়িতে ধর্মীয় কির্তন অনুষ্ঠানে যায়। রাত সাড়ে দশটার দিকে তারা ঘরে ফিরে ঘরের দরজা খোলা পান। ঘরে অনিতাকে না পেয়ে পরিবারের সদস্য ও প্রতিবেশী লোকজন টর্চ লাইট দিয়ে অনিতাকে খুঁজতে থাকেন। এক পর্যায়ে বাড়ির পার্শ্বস্থ একটি বাগানে আমগাছে একই দড়িতে অনিতা ও সুমনের ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান। রাতেই গ্রামে এ আত্মহত্যার খবর ছড়িয়ে পড়লে শত শত গ্রামবাসি ঘটনাস্থলে ভীর করেন। পুলিশ খবর পেয়ে গতকাল রবিবার ভোরে ঘটনাস্থল হতে দুইজনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে।

এ ব্যাপারে মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. নাসির উদ্দিন মল্লিক জানান, প্রেমের সম্পর্ক মেনে না নেওয়ার কারণে পরিবারের প্রতি অভিমান করে একই রশিতে ফাঁস লাগিয়ে প্রেমিক যুগল আত্মহত্যা করেছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃতু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

শেয়ার করুন