ছাত্রলীগের নৃশংসতা : শিবির নেতার বুকে গুলি : গোড়ালী থেকে পা বিচ্ছিন্ন

0
60
Print Friendly, PDF & Email

পুলিশ সাংবাদিক এবং শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সামনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) রাসেল আহমেদ নামে ছাত্রশিবিরের এক নেতার ডান পা কেটেছে দিয়েছে ছাত্রলীগের ক্যাডাররা। এসময় তার বুকের দুই পাশে তিনটি গুলি করে। সোমবার বিকেল ৪টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় শহীদুল্লাহ কলা ভবনের সামনে এ ঘটনা ঘটে। রাসেল বিশ্ববিদ্যালয় নবাব আব্দুল লতিফ হল শাখা শিবিরের সাধারণ সম্পাদক ও ফাইনান্স এন ব্যাংকিং বিভাগের ৪র্থ বর্ষের শিার্থী। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে। এদিকে রাজশাহীতে এ ঘটনার প্রতিবাদে আজ সকাল ৬টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত হরতাল ডেকেছে রাবি শাখা ছাত্রশিবির। অবশ্য এ ঘটনার দায় অস্বীকার করেছে ছাত্রলীগ।

যেভাবে ঘটনার সূত্রপাত
সোমবার দুপুর ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় আরবি বিভাগের ৪র্থ বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা চলছিল। পরীক্ষা শুরু হওয়ার পর পরই শহীদুল্লাহ কলা ভবনের সামনে পূর্ব এবং পশ্চিম গেটে তালা ঝুলিয়ে দেয় ছাত্রলীগ ক্যাডাররা। এসময় ওই বিভাগের শিবির নেতাকর্মীদের আটক করতে পুলিশ ও ছাত্রলীগ ওই ভবনের সামনে অবস্থান নেয়। সে সময় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তৈহিদ আল তুহিনের নেতৃত্বে দলীয় ক্যাডাররা পুলিশের সামনে আগ্নে অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিতে থাকে। বেলা সাড়ে তিনটার দিকে ওই বর্ষের পরীক্ষা চলাকালে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রশিবিরের মানব সম্পদ উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক জিয়াউদ্দিন বাবলুকে আটক করে পুলিশ ছাত্রলীগ।
এর আগে দুপুর পৌনে ১টার দিকে শিবির নেতা রাসেলকে বিশ্ববিদ্যালয় শহিদুল্লাহ কলা ভবনের সামনে থেকে আটক করে ছাত্রলীগ। পুলিশের সামনে তিন ঘন্টা আটকে রাখার পর বিকেল ৪টা ৭ মিনিটে পুুলিশ, সাংবাদিক এবং শিক্ষক শিক্ষার্থীদের সামনে শহীদুল্লাহ কলা ভবনের ভিতরে রাসেলকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে আহত করে তার ডান পা কেটে নেয় ছাত্রলীগ ক্যাডররা। পরে তার বুকে তিনটি গুলি করে ছাত্রলীগ দ্রুত সটকে পরে। পরে পুলিশ তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে জরুরী বিভাগ থেকে তাকে ৩১ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়।
অস্ত্রপচারের জন্য তাকে হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটাওে (ওটি) নেয়া হয়। হাসপাতাল পুলিশ বক্সের ইনচার্জ এসআই প্রদীপ কুমার এ তথ্য নিশ্চিত করেন। আহত রাসেলের অবস্থা আশংকাজনক বলে দায়িত্বরত চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে তিনি জানান।

ঘটনার সাথে যারা সম্পৃক্ত
রাবি ছাত্রলীগের যুগ্ম সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক ফয়সাল আহমেনদ রুনু, কৌশিক আহমেদ, সহ-সভাপতি তন্ময় আনন্দ অভি এবং ছাত্রলীগ নেতা সুসময়, ডন, রিনেট শিবির নেতা রাসেলকে শহীদুল্লাহ কলা ভবনের ভিতরে নিয়ে এলোপাথারি কুপিয়ে তার পা বিচ্ছিন্ন করে দেয়। এ সময় ছাত্রলীগ নেতা রুনু এবং কিবরিয়া অগ্রনী ভূমিকা রাখে বলে প্রত্যাক্ষদর্শীরা জানায়।

প্রতিবাদে কাল আধাবেলা হরতাল
এদিকে শিবির নেতা রাসেলকে কুপিয়ে ডান পা বিচ্ছিন্ন করে দেয়ার প্রতিবাদে মঙ্গলবার রাজশাহীতে আধাবেলা হরতাল ডেকেছে ছাত্রশিবির। সোমবার বিকেলে রাবি শিবিরের প্রচার সম্পাদক লাবিব আব্দুল্লাহ এ তথ্য নিশ্চিত করছেন।

বিভিন্ন মহলের বক্তব্য
রাবি ছাত্রলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান রানা ও সাধারণ সম্পাদক তৌহিল আল তুহিন বলেন, শিবিরের অভ্যন্তরীন কোন্দলে রাসলকে কুপিয়ে আহত করা হয়েছে। ছাত্রলীগ কোন নৃশংস হামলার সাথে জড়িত নয় বলে তারা দাবি করেন।
এ ঘটনায় রাবি শিবিরের সাংগঠনিক সম্পাদক শোয়েব শাহরিয়ার বলেন, ছাত্রলীগ ক্যাডাররা পুলিশের সামনে পরিকল্পিতভাবে রাসেলকে কুপিয়ে প্রথমে তার ডান পা আলাদা করে এরপর তার বুকে গুলি করে। বর্তমানে তার অবস্থা আশঙকা জনক। তিনি হামলাকারী ছাত্রলীগ ক্যাডারদের শাস্তির দাবি করেন।
রাজশাহী মহানগর পুলিশের সহকারী কমিশনার (পূর্ব জোন) তানভীর আলম চৌধুরী বলেন, বিকেলে শিবির নেতা বাবলুকে আটকের পর কে বা কারা আরেক শিবির নেতা রাসলকে কুপিয়ে পা কেটে দিয়েছে তা জানা যায়নি। ক্যাম্পাস পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলে তিনি জানান।
এ ব্যাপারে রাবি প্রক্ট্রর প্রফেসর ড. তারিকুল হাসানের সাথে ফোনে বারবার যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নাই। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র উপদেষ্ঠা প্রফেসর ড. ছাদেকুল আরেফিন মাতিন বলেন, আমি বিষয়টি শুনেছি। তবে কে বা করা ঘটিয়েছে তা সঠিক ভাবে জানি না। বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর বিষয়টি জানেন। তোমরা প্রক্টরের সাথে যোগাযোগ করো বলে জানান তিনি।

শেয়ার করুন