বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচেই যোগ্যতা দেখাতে মুখিয়ে আছে ব্রাজিল

0
37
Print Friendly, PDF & Email

কাল ব্রাজিল ও ক্রোয়েশিয়ার মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে পর্দা ওঠছে ফিফা বিশ্বকাপের ২০ তম আসরের। আর উদ্বোধনী ম্যাচটিতেই নিজেদের দাপট দেখানোর মাধ্যমে বিশ্ববাসীর সামনে স্বাগতিক ব্রাজিল প্রমাণ করতে চায়, কাগজে কলমে নয়, বাস্তবেই তারা শিরোপা জয়ের দাবিদার। এজন্য মুখিয়ে রয়েছে গোটা দলটি। যার মাধ্যমে স্বাগতিক হিসেবে শ্বাসরুদ্ধকর চাপ থেকেও মুক্তি পাবে তারা।
এই দলটি নিয়েই গত বছর অনুষ্ঠিত কনফেডারেশন কাপের ফাইনালে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন স্পেনকে ৩-০ গোলে হারিয়ে দারুন এক চমক দেখিয়েছিলেন কোচ লুইস ফেলিপ স্কলারি। শক্তিশালী এবং ধারাবাহিকতার মধ্যে থাকা দলটির মুল কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছেন বার্সেলোনা সুপার স্টার নেইমার। পাঁচবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা কোনোরকম সমস্যা ছাড়াই গ্র“প পর্বের বৈতরণী পার হবে বলে ধারনা করা হলেও বার্সেলোনা ডিফেন্ডার দানি আলভেজ মনে করেন স্নায়ুচাপ থেকে মুক্তি পেতে তারা উদ্বোধনী ম্যাচটির জন্য দারুন আগ্রহ ভরে অপো করছে।
তিনি বলেন, ‘আমি সব সময় বলে থাকি, যদি উদ্বেগ বোধ না থাকে তাহলে পেশাদারিত্ব থাকবেনা। তাই উদ্বোধনী ম্যাচটি হবে গুরুত্বপুর্ন ও কঠিন।
বিশ্বকাপের মত বৃহৎ আসরে সবার জন্যই উদ্বোধনী ম্যাচ হচ্ছে সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ন ম্যাচ। আমরা বৃহস্পতিবারই জানতে পারব সবকিছু ঠিক আছে কিনা। এই মুহুর্তে আমাদের মধ্যে দারুন আত্মবিশ্বাস রয়েছে এবং আসল মুহুর্তটির জন্য আগ্রহ ভরে অপো করছি। আমরা বিশ্বকাপ আসরকে উপভোগ করতে চাই। সেই সঙ্গে নিজেদের একটি ভাল ভাবমুর্তি গড়ে তুলতে চাই।’
নব নির্মিত কোরিন্থিয়ান্স এরিনায় অনুষ্ঠিতব্য উদ্বোধনী ম্যাচে তারকা ফুটবলারে ভরপুর টুর্ণামেন্ট ফেভারিট ব্রাজিলীয় একাদশে অস্কার ও তার চেলসি সতির্থ উইলিয়ান একত্রে মাঠে নামতে পারবে কিনা সেটিই এখন দেখার বিষয়।
তবে ২০০২ সালে ব্রাজিলকে শিরোপা পাইয়ে দেয়া স্কলারি হয়তো ১৮তম র‌্যাংকের অধিকারী ক্রেয়েশিয়ার বিপক্ষে পরীক্ষিত ম্যাচ জয়ী ফর্মুলাটির প্রতিই স্থির থাকবেন। যদিও গত সপ্তাহে সার্বিয়ার বিপক্ষে ওই প্রদর্শনী ম্যাচে মাত্র ১-০ গোলে জয়লাভ করেছিল বিশ্বকাপ ফেভারিটরা। তাও আবার বদলি খেলোয়াড় ফ্রেডের গোলে ভর করে।
মঙ্গলবার অনুশীলন শেষে অতিরিক্ত স্ট্রাইকারের তালিকায় থাকা জো বলেছিলেন যে ক্যাম্পে বর্তমানে নিরবতা এবং উদ্বোধনী ম্যাচে ভুমিকা রাখার জন্য সবার মধ্যে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে।
তিনি বলেন, ‘এই মুহূর্তে সবার মধ্যে নিরবতা বিরাজ করছে। সবাই অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে, কখন সাওপাওলোতে যাবে এবং বল দখলের লড়াইয়ে নামবে। যেখানে থাকবে উত্তেজনা ও উদ্বেগ। তবে আমাদের দেশে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচটি অন্যদের কাছে ভিন্ন চিত্রের।’
স্কোয়াডের আরেক সদস্য বার্নার্ড বলেন, নিজেদের মাটিতে প্রথমবারের মত শিরোপা জয়ের ল্য নিয়ে বিশ্বকাপের মিশনে নামতে যাওয়া ব্রাজিলের জন্য টুর্ণামেন্টের উদ্বোধনী ম্যাচটি হবে খুবই গুরুত্বপুর্ন। স্বাগতিক ওই ওয়েঙ্গার বলেন,‘ এখানে কোন ম্যাচই সহজ হবেনা। আর সার্বিয়ার বিপক্ষের ম্যাচটি ছিল খুবই জটিল। তারা মোটামুটি ভারসাম্যপূর্ণ একটি দল। আমার মনে হয় ক্রেয়েশিয়ার বিপক্ষের ম্যাচটিও একই রকম হবে। এখন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে উদ্বোধনী ম্যাচের প্রতি মনোযোগ দেয়া। পূর্ণ তিন পয়েন্ট নিয়েই আমাদের শুরু করতে হবে।’
এদিকে বায়ার্ন মিউনিখের স্ট্রাইকার ম্যারিও মানজুকিচকে ছাড়াই উদ্বোধনী ম্যাচে মাঠে নামতে হবে ক্রেয়েশিয়াকে। কারণ গত নভেম্বরে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত ম্যাচে তিনি লাল কার্ড দেখে মাঠ থেকে বিতাড়িত হয়েছিলেন। তবে রিয়াল মাদ্রিদের লুকা মড্রিচ দলটির সেরা একাদশে থাকবেন। যা দলটিকে মানষিক সাহস যোগাবে। তার মতে মধ্যমাঠের লড়াই হবে ম্যাচের মুল আকর্ষন। তবে নিজেদের মাটিতে ব্রাজিলের মত দেশের বিপে লড়াই করাটা বেশ কঠিন হবে। লুকা বলেন,‘ সচরাচর প্রতিটি ম্যাচেরই পরিণতি নির্ধারিত হয় মধ্যমাঠ থেকে।আশা করছি আমরা মানসম্পন্ন খেলা উপহার দিয়ে ব্রাজিলকে হারাতে পারব। তবে অবশ্যই সেটি বেশ কঠিন হবে।’
রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে চ্যাম্পিয়নশিপের শিরোপা জয়ের মাধ্যমে দারুন আত্মবিশ্বাসী মড্রিচ নেইমারকে খুবই বিপজ্জনক এবং ব্রাজিলের তিনিই মুখ্য খেলোয়াড় উল্লেখ করে বলেন, ‘চলতি মৌসুমে বার্সেলোনার হয়ে নেইমার যদিও খুব একটা ভালো করতে পারেননি। তবে তিনি যখন ব্রাজিলের হয়ে খেলেন তখন তার চেহারাই পাল্টে যায়। আমার বিশ্বাস তাকে থামানোর কোন উপায় আমরা খুঁজে পাব।’
কোরিন্থিয়ান্স এরিনার ৬১ হাজার ৬শ’ দর্শক ধারণ মতা সম্পন্ন স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে উদ্বোধনী ম্যাচটি। দুর্ঘটনাজনিত কারণে যেটি প্রস্তুত করতে বিলম্বিত হয়েছে। ওই দুর্ঘটনায় তিনজন শ্রমিক নিহত হয়।

শেয়ার করুন