সোমবার বন্দর ও নলডাঙ্গা উপজেলা নির্বাচন

0
54
Print Friendly, PDF & Email

উপজেলা নির্বাচনের শেষ পর্যায়ে নারায়ণগঞ্জ বন্দর ও নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলায় সোমবার ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণের জন্য যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নির্বাচন কমিশন। ভোটের দিন এদুই উপজেলায় সাধারন ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।
একেবারে শেষ সময়ে এসে জমে উঠেছে নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলা নির্বাচন। এ উপজেলায় আটজন চেয়ারম্যান, সাতজন ভাইস চেয়ারম্যান ও তিনজন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টি থেকে চেয়ারম্যান পদে একাধিক প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে বিএনপির প্রার্থী হয়েছেন আতাউর রহমান মুকুল ও নুরুদ্দিন। আওয়ামী লীগ থেকে থানা আওয়ামী লীগ সভাপতি এম এ রশিদ, বন্দর থানা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও মদনপুর র্ইউপি চেয়ারম্যান এম এ সালাম, জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক আবু জাহের ও কলাগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান জাপা নেতা দেলেোয়ার হোসেন দেলু, ইসলামী্ আন্দোলনের নেতা হাজী মোহাম্মদ আলী এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী জহিরুল ইসলাম প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এদিকে শনিবার এক চিঠিতে দলের যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী হাজী নুরুদ্দীনকে দলের সিদ্ধান্ত ভঙ্গের অভিযোগে বহিস্কার করেন। বিএনপি থেকে বর্তমান চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মুকুলকে সমর্থন দেয়া হয়েছে। বিএনপি থেকে দুজন প্রার্থী নির্বাচন করায় ভোটাররাও দ্বিধাদ্বন্দ্বে ভুগছেন। এ উপজেলায় ৫টি ইউনিয়নে ভোটার সংখ্যা ৯৮ হাজার ১২৩ জন। নির্বাচন নিরপেক্ষভাবে আয়োজনের জন্য প্রশাসন সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিয়েছে।
নাটোরের নব গঠিত নলডাঙ্গা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দুজন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হলেন, থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম ফিরোজ বিএনপির নেতৃত্বাধীন ১৮ দল সমর্থিত প্রার্থী নলডাঙ্গা থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন। ভাইস চেয়ারম্যান পদে আক্তার হোসেন, জামায়াত নেতা ও জেলা ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি প্রভাষক মাওলানা জিয়াউল হক জিয়া, জাতীয় পাটির নেতা বাবলু প্রামাণিক ও স্বতন্ত্রপ্রার্থী রিয়াজুল ইসলাম নির্বাচন করছেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিএনপির সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মহুয়া পারভীন লিপি এবং আওয়ামী লীগের অ্যাডভোকেট আঞ্জুমান আরা রতœা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন ।
নলডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার শারমিন আক্তার জাহান বলেন, উপজেলার ৯২ হাজার ৭৪৫ জন ভোটারের জন্য ৪৩টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের সব প্রস্তুতি ইতোমধ্যে শেষ করা হয়েছে। ৪৩টি কেন্দ্রের মধ্যে ২০টি কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচনায় রেখে অধিক  নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন