পাসওয়ার্ড ব্যবহারে সচেতন থাকুন

0
95
Print Friendly, PDF & Email

স্মার্ট ডিভাইসগুলোতে আমরা প্রয়োজনীয় সব তথ্যই সংরক্ষণ করছি। তথ্য সংরক্ষণের সময়ই আমরা বুঝতে পারি কোন তথ্যটি কতটুকু প্রয়োজনীয়। এ ছাড়া কিছু তথ্য থাকে ব্যক্তিগত। এসব তথ্য অন্যরা দেখুক তা আপনি চান না। তথ্য সংরক্ষণের জন্য বিভিন্ন ডিভাইস বা অনলাইন সার্ভারের কোনো বিকল্প নেই। আপনার ডিভাইসে অন্যদের প্রবেশ যেন না ঘটে, সেটা নিশ্চিত করার জন্যই ব্যবহার করা হয় পাসওয়ার্ড। অনলাইন বা অফলাইন সব ক্ষেত্রেই ব্যক্তিগত গোপনীয়তা রায় পাসওয়ার্ডের বিকল্প এখনো তৈরি হয়নি। লিখেছেন নাজমুল হোসেন

তথ্যপ্রযুক্তির কল্যাণে জীবনের প্রতিটি েেত্রই কম্পিউটার, ল্যাপটপ, স্মার্টফোন, ট্যাবলেট পিসির মতো ডিভাইসের ব্যবহার বাড়ছে প্রতিনিয়ত। এ ছাড়াও অনলাইন দুনিয়ায় বিভিন্ন সেবার বিপরীতে ব্যবহার করতে হচ্ছে ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট ও পাসওয়ার্ড। বর্তমানে প্রযুক্তি বিশ্বে পাসওয়ার্ড হ্যাকিংয়ের ঘটনাও এখন নিয়মিত ঘটছে। এ জন্যই আপনার পাসওয়ার্ডটি শক্তিশালী করা প্রয়োজন। তবে পাসওয়ার্ড শক্তিশালী করতে গিয়ে পাসওয়ার্ড ভুলে যাওয়ার ঘটনা কম বেশি সবার ক্ষেত্রেই ঘটে।
পাসওয়ার্ডকে শক্তিশালী করার প্রথম উপায় হচ্ছে পাসওয়ার্ডের দৈর্ঘ্য বাড়ানো। ওয়েবসাইট সমর্থন করলে ন্যূনতম ১৪ অরের পাসওয়ার্ড ব্যবহার করা উচিত। ৬, ৭ বা ৮ অরের পাসওয়ার্ড তুলনামূলক সহজে ভাঙতে পারে হ্যাকাররা। সে েেত্র ১৪ বা তার বেশি অরের পাসওয়ার্ড ভাঙাটা একটু কষ্টকর। এই কষ্টটা আরো বাড়িয়ে দেয়া যায় অরগুলোর মধ্যকার কয়েকটি বড় হাতের ব্যবহার করে। অর্থাৎ পাসওয়ার্ডের কিছু অর ছোট হাতের এবং কিছু অর বড় হাতের হলে সেটার শক্তি অনেকটাই বেড়ে যায়। এরপর যেটি করতে পারেন, সেটা হলো পাসওয়ার্ডের মাঝে সংখ্যা প্রবেশ করানো। এ েেত্র পাসওয়ার্ডের শুরুতে, মাঝে বা শেষে ব্যবহার করুন সংখ্যা। সে েেত্র একাধিক অরের সংখ্যা আপনার পছন্দ হলে সেটাকে ভেঙে দুই বা তিন ভাগে ভাগ করে কোনো একটি অংশ আগে জুড়ে দিন, কোনোটি মাঝে বা শেষে জুড়ে দিন। এর সাথে কিবোর্ড যে স্পেশাল ক্যারেক্টারগুলো রয়েছে, সেগুলোকেও ব্যবহার করতে পারেন অ্যাকাউন্ট সমর্থন করলে। এতে করে মোটামুটি নিশ্চিন্ত থাকতে পারবেন।
পাসওয়ার্ড সংরণ
বিভিন্ন অ্যাকাউন্টে সাইন-আপ বা রেজিস্ট্রেশন করার সময়ই একটি পাসওয়ার্ড দিতে হয়। এরপর প্রতিবার ওই অ্যাকাউন্টে পাসওয়ার্ড দেয়ার পর ওই পাসওয়ার্ড সংরতি হয় সংশ্লিষ্ট সার্ভিসের সার্ভারে। সার্ভারে সংরতি পাসওয়ার্ডের সাথে মিলিয়েই অ্যাকাউন্টে প্রবেশ করতে দেয়া হয়। তবে সার্ভারে সংরণের সময় বিশেষভাবে এনক্রিপশন করা হয় পাসওয়ার্ডগুলো। ফলে সাধারণভাবে এই পাসওয়ার্ড কেউ দেখতে পেলেও সরাসরি সেটা থেকে মূল পাসওয়ার্ড জানা যায় না। তবে পাসওয়ার্ড ক্স্যাকিং সফটওয়্যার ব্যবহার করে অনেক সময়েই মূল পাসওয়ার্ডটি বের করে ফেলে। এ েেত্র সফটওয়্যারগুলো সেকেন্ডে লাখ-কোটি পাসওয়ার্ড অনুমান করতে পারে।
পাসওয়ার্ড চুরি
আপনি যত শক্তিশালী পাসওয়ার্ডই দিন না কেন, সংশ্লিষ্ট ওয়েবসাইট থেকে সেই পাসওয়ার্ডটি চুরি হয়ে গেলে তা কোনো লাভ নেই। সাম্প্রতিক ওয়ার্ডপ্রেস, টুইটার, অ্যাপল, ফেসবুকসহ বেশ কিছু প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের কয়েক লাখ পাসওয়ার্ড চুরি গেছে। তবে এনক্রিপশন ব্যবস্থা এবং আপনার পাসওয়ার্ড শক্তিশালী হলে কিছুটা নিরাপদ বলা যায়।
পাসওয়ার্ড জমা রাখুন
বর্তমানে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের অসংখ্য অ্যাকাউন্ট থাকে। ইয়াহু, জিমেইল, আউটলুক, ফেসবুক, টুইটার, লিংকএডইন, ড্রপবক্সÑ এমন শত শত সার্ভিসে রয়েছে হাজারো অ্যাকাউন্ট। আর প্রতিটির জন্যই রয়েছে পাসওয়ার্ড। তথ্যের সুরায় প্রতিটি অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড আলাদা হওয়া প্রয়োজন। কিন্তু এত অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড মনে রাখা জটিল। এ েেত্র আপনার ওয়েব ব্রাউজারটি আপনাকে ভালো সহায়তা করতে পারবে। প্রতিটি ওয়েব ব্রাউজারেই পাসওয়ার্ড সংরণের ফিচার রয়েছে। এ েেত্র একবার পাসওয়ার্ড দিয়ে সেটা স্মরণ করে রাখতে বললেই ব্রাউজার আপনার সব অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড মনে রাখবে এবং সংরণ করেও রাখবে। সেখান থেকে আপনিও ভুলে গেলে দেখে নিতে পারবেন পাসওয়ার্ড। তবে আপনার পিসি যদি কারও সাথে শেয়ার করা হয়, তাহলে কিন্তু এটি যাদের সাথে শেয়ার করবেন, তাদের কাছে উন্মুক্ত করে দেবে সব পাসওয়ার্ড।
গুগল ক্রোম, ফায়ারফক্স, অপেরা, ইন্টরনেট এক্সপ্লোরারসহ সব ব্রাউজারেই পাসওয়ার্ড সংরণ করা যায়। আবার সরাসরি ব্রাউজারে পাসওয়ার্ড সংরণ না করে আলাদা অ্যাড-অন বা এক্সটেনশন ব্যবহার করেও পাসওয়ার্ড সংরণ করা যায়।
কম্পিউটার বা ল্যাপটপের মতো মোবাইল ডিভাইসেও এখন পাসওয়ার্ড সংরণ করা যায়। স্মার্টফোনগুলোতেও ওয়েব ব্রাউজারে রয়েছে পাসওয়ার্ড সংরণের সুবিধা। এ ছাড়া স্মার্টফোনের পাসওয়ার্ড সংরণের আলাদা অ্যাপ্লিকেশনও রয়েছে। অ্যান্ড্রয়েড, আইওএস কিংবা উইন্ডোজ প্ল্যাটফর্মের স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট পিসির জন্য রয়েছে এই ধরনের অ্যাপ্লিকেশন।
উন্নত প্রযুক্তির পাসওয়ার্ড
উইনফ্রাসফট নামের এক সংস্থা তৈরি করেছে এক উন্নত প্রযুক্তির পাসওয়ার্ড ফর্মুলা। যেখানে থাকবে চারটি বিভিন্ন রঙের গ্রিড। তার মধ্যে থাকবে সুডোকু পাজেলের মতো সাজানো নম্বর। ব্যবহারকারীরা যখন গ্রিড সিলেক্ট করবেন, তার মধ্যে যে নম্বর থাকবে সেটা হবে আপনার পাসওয়ার্ড। কিন্তু এই নম্বর প্রত্যেক মিনিটে পরিবর্তন হবে। অতএব হ্যাকারদের হ্যাক করা খুবই দুষ্কর হয়ে পড়বে।
আমরা সাধারণত খুব দুর্বল পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে থাকি। পাসওয়ার্ড সচেতনতার অভাবে হ্যাকারদের হাত ছিল অনেক লম্বা। তবে যত দিন না উইনফ্রাসফটের প্রযুক্তি হাতে পাচ্ছেন, চেষ্টা করুন হ য ব র ল পাসওয়ার্ড দিয়ে হ্যাকারদের শায়েস্তা করতে।

শেয়ার করুন