কালবৈশাখীর তান্ডব, লন্ডভন্ড ইবি \ সহস্রাধিক পাখির মৃতু্য

0
177
Print Friendly, PDF & Email

কালবৈশাখীর ঝড়ে লন্ডভন্ড হয়ে গেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস৷ গতকাল বুধবার মধ্যরাতে প্রকৃতির তান্ডবলীলায় বিশ্ববিদ্যালয়ে উপড়ে গেছে বিভিন্ন গাছ, ভেঙ্গে গেছে বৈদ্যুতিক খুটি৷ এতে ক্যাম্পাসের ব্যাপক ৰয়ৰতি হয়েছে৷ এছাড়া প্রবল ঝড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে সহস্রাধিক পাখির মৃত্যু হয়েছে৷ এতে চির সবুজ, পাখি ডাকা, ছায়া ঘেড়া, ক্যাম্পাস তার প্রকৃতির সৌন্দর্য হারিয়ে গেছে৷
বুধবার রাত দেড়টার দিকে প্রথমে দমকা বাতাস প্রবাহ শুরম্ন হয়৷ এর কিছুৰণ পরেই প্রকৃতি তার তান্ডব লিলা চালায়৷ শুরম্ন হয় ধ্বংসযজ্ঞ৷ প্রায় ৫ মিনিট দীর্ঘস্থায়ী এ ঝড়ে ক্যাম্পাসের প্রায় অর্ধশতাধিক গাছ ভেঙ্গে যায়৷ উপড়ে যায় বেশকিছু সংখ্যক বৈদ্যুতিক খুটি৷ এছাড়া ক্যাম্পাসের বিভিন্ন দোকান-পাট তছনছ হয়ে গেছে৷ এতে ক্যাম্পাসের ব্যাপক ৰয়ৰতি হয়েছে৷ কালবৈশাখীর ঝড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ জিয়াউর রহমান হলের পিছনের মেহগনি বাগানের অধিকাংশ গাছ উপড়ে যায়৷ এতে গাছগুলোতে থাকা প্রায় সহস্রাধিক পাখির মৃত্যু হয়েছে৷ মারা যাওয়া পাখির মধ্যে রয়েছে শালিক, চড়ুই, কাঠঠোকরা, বুলবুলি, গাঙ শালিক, ঘুঘু, কাক, মাছরাঙা, কোকিল প্রভৃতি৷ সকালে মেহগনি বাগানে এসব পাখির নিথর মৃতু্য দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়৷
কালবৈশাখীর ঝড়ে বৈদ্যুতিক খুটি উপড়ে যাওয়ায় বৃধবার মধ্যরাত থেকে বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যনত্ম বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় বৈদ্যুতিক সংযোগ বন্ধ থাকে৷ বৈদ্যুতিক খুটিগুলো মেরামত করার পর বৃহস্পতিবার দুপুরে বৈদ্যুতিক সংযোগ দেওয়া হয়৷ বিশ্ববিদ্যালয়ের লালনশাহ হলের ছাত্র শাহাদাত হোসেন তিমির জানান, বুধবার রাত দেড়টার দিকে প্রচন্ড শনশন শব্দ শুরম্ন হওয়ার কিছুৰণ পরেই শুরম্ন ঝড়৷ এসময় মনে হলো যেন ক্যাম্পাস তছনছ হয়ে যাবে৷’
এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে ক্যাম্পাস পরিদর্শনে আসেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমান৷ তিনি ৰতিগ্রসত্ম জায়গাগুলো ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং দ্রম্নত ক্যাম্পাসে বৈদ্যুতিক সংযোগ দিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল অফিসের কর্মকতর্াদের নির্দেশ দেন৷

শেয়ার করুন