কালো টাকা বিনিয়োগের সুযোগ দেওয়া হবে না

0
108
Print Friendly, PDF & Email

আগামী ২০১৪-১৫ অর্থবছরের বাজেটে কালো টাকা বা অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগের সুযোগ দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।
 
বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) পরামর্শক কমিটির ৩৫তম সভায় তিনি একথা বলেন।
 
ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ, এক্সিম ব্যাংক ও এনসিসি ব্যাংকের সহযোগিতায় এনবিআর ও এফবিসিসিআই যৌথভাবে এ সভার আয়োজন করে।
 
অর্থমন্ত্রী বলেন, বাজেটে কালো টাকা বিনিয়োগের অনেক সুযোগ দেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে অনেক কথা হয়েছে। এবারের বাজেট থেকে কালো টাকা বিনিয়োগের আর কোনো সুযোগ দেওয়া হবে না।
 
রাজস্ব বিষয়ে আব্দুল মুহিত বলেন, রাজস্ব আয় ৩ শতাংশ বাড়াতে ২৭ বছর লেগেছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী আগামী ৫ বছরে রাজস্ব আয় ৫ শতাংশ বাড়িয়ে ১৬ শতাংশে উন্নীত করা হবে।
 
মন্ত্রী বলেন, উৎপাদন পর্যায়ে যে প্রণোদনা দেওয়া হয় তা এবারের বাজেটেও অব্যাহত থাকবে। তবে খাত দেখে দেখে তা দেওয়া হবে।
 
১০ বছরের পরিকল্পনা অনুযায়ী বাজেটে সর্বনিম্ন আয়কর সীমা সহনীয় পর্যায়ে রাখা হবে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে ২ লাখ ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত করমুক্ত রয়েছে। আমেরিকাতে এ সীমা ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা। বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করে ব্যক্তি করমুক্ত আয়েরসীমা এমন একটি পর্যায়ে রাখা হবে, যাতে আগামী ১০ বছরে এতে হাত দেওয়া না লাগে।
 
মন্ত্রী আরও বলেন, বাজেটে গাড়ি আমদানির জটিলতা ও সিম ট্যাক্স জটিলতা নিরসন করা হবে। বাড়ানো হবে তামাকের শুল্কের পরিমাণ।
 
এছাড়াও বাজেটে আরও বেশকিছু দৃশ্যমান নতুন পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানান মন্ত্রী।  
 
এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত ও বিশেষ অতিথি অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান। এছাড়াও বিনিয়োগ বোর্ডের চেয়ারম্যান শেখ মোল্লা ওয়াহিদুরজ্জামান, এনবিআর চেয়ারম্যান গোলাম হোসেনসহ রাজস্ব বোর্ডের সদস্য ও বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
 
সভায় ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে এফবিসিসিআই এনবিআরয়ের কাছে আয়কর, মূল্যসংযোজন কর (ভ্যাট) ও আমদানি শুল্কের বিষয়ে মোট ৬১৭টি প্রস্তাব দিয়েছে।

শেয়ার করুন