সাত খুনের ঘটনার তদন্ত চূড়ান্ত পর্যায়ে : স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

0
72
Print Friendly, PDF & Email

নারয়ণগঞ্জে সাতজনকে অপহরণ ও হত্যার ঘটনায় অভিযোগের তদন্ত চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। যেকোনো সময় অভিযুক্তদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। আর তালিকা অনুযায়ী অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আজ বুধবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিজ কক্ষে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি সাংবাদিকদের এ কথা জানান। নারায়ণগঞ্জে অপহরণ ও সাত খুনের ঘটনায় র‌্যাবের তিন কর্মকর্তাকে অবসরে পাঠানোর বিষয়ে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, উপযুক্ত অভিযোগের ভিত্তিতেই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।
সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, র‌্যাবের আরো কেউ যদি জড়িত থাকেন, তাহলে তাদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, সরকার এ বিষয়ে কঠোর। অভিযোগের তদন্ত চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। যেকোনো সময় অভিযুক্তদের তালিকা প্রকাশ করা হবে। মূল আসামি ধরতে সারা দেশে রেড এলার্ট জারি করা হয়েছে। সীমান্ত এলাকা এবং বিমানবন্দরেও সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এ ঘটনায় র‌্যাবের সুনাম ক্ষুণ্ন হওয়ার বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ ধরনের একটি ঘটনা র‌্যাবের সফলতার ওপর কোনো প্রভাব পড়বে না।
গত ২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের (নাসিক) প্যানেল মেয়র ও ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম ও আইনজীবী চন্দন সরকারসহ পৃথকভাবে সাতজনকে প্রকাশ্য দিন-দুপুরে অপহরণ করে দুবৃর্ত্তরা। ওই দিন সন্ধ্যায় অপহৃত নজরুল ইসলামের গাড়ি গাজীপুর থেকে উদ্ধার করা হয়। এরপর রাজধানীর গুলশানের নিকেতন থেকে অ্যাডভোকেট চন্দন সরকারের গাড়ি উদ্ধার করে পুলিশ। ৩০ এপ্রিল দুপুরের পর থেকে শীতলক্ষ্যা নদী থেকে অপহৃত ছয়জন এবং ১ মে সকালে বাকি একজনের মরদেহ একই নদী থেকে উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মহাসড়ক অবরোধ ও ৪৮ ঘণ্টার কর্মবিরতিসহ রবিবার নারায়ণগঞ্জে হরতাল পালন করে জেলা আইনজীবী সমিতি।
অপহরণ ও হত্যার জন্য স্থানীয় র‌্যাব-১১কে দায়ী করেন নিহত প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলামের শ্বশুর শহীদুল ইসলাম ওরফে শহীদ চেয়ারম্যান। তিনি অভিযোগ করেন, ছয় কোটি টাকার বিনিময়ে সাতজনকে অপহরণ করে হত্যা করা হয়েছে। প্রধান আসামি কাউন্সিলর নূর হোসেন র‌্যাব-১১কে ওই টাকা দিয়ে অপহরণ ও খুন করান বলে অভিযোগ করেন তিনি। তাঁর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে একটি তদন্ত কমিটি গঠিত হয়। মঙ্গলবার অভিযুক্ত তিন র‌্যাব সদস্যকে চাকরিচ্যুত করা হয়। এ ঘটনায় এ পর্যন্ত মোট ১৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শেয়ার করুন