বিএনপির প্রতিক্রিয়া সমঝোতার পথ আর থাকল না ‘বাংলার ছেলের গায়ে হাত দিয়ে দেখুন’ মোদিকে হুঁশিয়ারি মমতার

0
110
Print Friendly, PDF & Email

নির্বাচনী প্রচারে এসে পশ্চিমবঙ্গের মাটি থেকে বাংলাদেশি খেদাওয়ের যে জিগির তুলেছিলেন নরেন্দ্র মোদি তার তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। আজ শনিবার পশ্চিমবঙ্গের মেদিনীপুর জেলার নন্দীগ্রামে এক নির্বাচনী জনসভা থেকে মোদির বিরুদ্ধে বাঙালি-অবাঙালি ভাগ করার অভিযোগ তুলে মমতা বলেন, এত বড় সাহস। বাংলার মাটিতে দাঁড়িয়ে বলছে বাঙালি অবাঙালি করে দাও। বলছে, সবাইকে পাঠিয়ে দাও সেদেশে, বাংলাদেশে সবাইকে প্যাক করে পাঠিয়ে দাও।

বিজেপিকে অপদার্থের দল বলে অভিহিত করে মমতা বলেন, ১৯৭১ সালে যারা এসেছে তাদের বলছে পাঠিয়ে দাও। তিনি কি দেশের ইতিহাস জানেন, ভুগোল জানেন? মমতা বলেন, যারা সেখান থেকে ১৯৭১ সালে এ রাজ্যে এসেছেন তারা নেহেরু-লিয়াকত এবং ইন্দিরা-মুজিব চুক্তি অনুযায়ী এদেশে এসেছেন। তারা সবাই দেশের নাগরিক। জাতিসঙ্ঘের নিয়ম অনুযায়ী কেউ বিপদে পড়ে আশ্রয় চাইলে দিতে হয়। এটাই ধর্ম।

মমতা এদিন সাফ জানিয়ে দেন, পশ্চিমবঙ্গে এই বিভেদ রাজনীতির খেলা চলবে না। নাম না করে মোদিকে উদ্যেশ্য করে মমতা বলেন, একদলকে বাদ দিয়ে কখনও দেশের নেতা হওয়া যায় না। যে ধর্মনিরপেক্ষতা মানে না, তার প্রধানমন্ত্রী হওয়ার কোন অধিকার নেই বলেও জানিয়ে দেন মমতা। সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষদেরকে ‘ভাই-বোন’ সম্বোধন করে তাদের কাছে মমতার আবেদন, চিন্তা করার বা ভয় পাওয়ার কোন কারণ নেই। আমরা আছি, আমরা আধখানা রুটি খেলে আপনাদের আধখানা রুটি দেব, ভাববার কোন কারণ নেই।

বিজেপিকে আক্রমণ করে মমতা বলেন, ওদের একটা ভোটও দেবেন না। একসময় মোদিকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, একটা বাংলার ছেলের গায়ে হাত দিয়ে দেখুন তার রেজাল্ট কি হতে পারে? যদি কেউ বলে বাংলার মাটি থেকে তাড়িয়ে দেব, আমি তাদের বলি সাহস থাকা ভাল কিন্তু দুঃসাহস থাকা ভাল নয়। মোদি তথা বিজেপিকে কাগুজে বাঘ বলে বর্ণনা করে বলেন, আগে রয়েল বেঙ্গল টাইগারের মুখোমুখি হও তারপর কথা বলো। মোদিকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, কিসের প্রধানমন্ত্রী? বাচ্চাই জন্মাল না তার আগে বৌভাতের দিন ঠিক হয়ে গেল। বুঝুন!

গত ২৭ এপ্রিল পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলার শ্রীরামপুরে এক নির্বাচনী জনসভা থেকে মমতাকে আক্রমণ করে বলেছিলেন, মমতা বিহারি, রাজস্থানী, মাড়োয়ারিদের পছন্দ করছেন না, পছন্দ করছেন বাংলাদেশিদের। ওই বাংলাদেশিরা পুঁটলি বেঁধে রাখুন। ১৬ মে-এর পর তাদের যেতে হবে। মোদির ওই বক্তব্যের পর দেশজুড়ে সমালোচনার ঝড় ওঠে। যথেষ্ট আতঙ্কে ভুগতে থাকেন ভারতে বসবাসরত বাংলাদেশিরা। বাংলাদেশিদের নিয়ে বিজেপির প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী নরেন্দ্র মোদির সেই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে এদিন সভার শুরু থেকেই মমতার এই আক্রমণ।

শেয়ার করুন