নিহতদের বাড়িতে আইনজীবী নেতৃবৃন্দ

0
187
Print Friendly, PDF & Email

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির একটি দল শুক্রবার নিহত অ্যাডভোকেট চন্দন সরকারের বাড়ি গিয়ে স্বজনদের সমবেদনা জানান।

ড. শাহদীন মালিক, জেড আই খান পান্না ও হামিদা হোসেনের নেতৃত্বে আইনজীবীদের এ দল নিহত কাউন্সিলর নজরুল ইসলামের বাড়িও যান।

চন্দন সরকারের বাড়িতে থাকাকালে ড. শাহদীন মালিক নারায়ণগঞ্জ থেকে র‌্যাবের সব সদস্যদের প্রত্যাহার দাবি করেন। এরপর তারা নজরুল ইসলাম এবং তার সঙ্গে নিহত তার সহযোগীদের বাড়ি যান।

এর আগে বৃহস্পতিবার বার কাউন্সিলের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট খন্দকার মাহাবুব হোসেন এবং সুপ্রিম কোর্ট বারের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব উদ্দিন খোকনও নিহত চন্দন সরকারের জালকুঁড়ি এলাকার বাসভবনে যান এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারকে সমবেদনা জানান।

ওই সময় নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানসহ নারায়ণগঞ্জের আইনজীবী নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

ঘটনার পর থেকে চন্দন সরকারের স্ত্রী অর্চনা সরকার বাকরুদ্ধ হয়ে গেছেন। কেউ সমবেদনা জানাতে গেলে তিনি শুধু ফ্যালফ্যাল করে চেয়ে থাকেন। কাঁদতেও যেন তিনি ভুলে গেছেন।

গত রোববার (২৭ এপ্রিল) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ আদালত থেকে একটি মামলায় হাজিরা শেষে ফেরার পথে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র ও ২ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম, তার বন্ধু তাজুল ইসলাম, লিটন, মনিরুজ্জামান স্বপন এবং গাড়ির চালক জাহাঙ্গীর অপহৃত হন।

একই সময় আদালত থেকে নিজের গাড়িতে করে বের হয়ে চালক ইব্রাহিমসহ অপহৃত হন নারায়ণগঞ্জ আদালতের সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট চন্দন কুমার সরকার।

ঘটনার রাতেই গাজীপুরের রাজেন্দ্রপুর শালবনে কাউন্সিলর নজরুল ইসলামের প্রাইভেট কার পাওয়া যায়। পরদিন সোমবার (২৮ এপ্রিল) রাতে গুলশানের নিকেতন এলাকা থেকে অ্যাডভোকেট চন্দন সরকারের প্রাইভেট কার উদ্ধার করে পুলিশ।

বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের বন্দরের শান্তিনগর এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদী থেকে একে একে উদ্ধার হয় নিহত সাত জনের মরদেহ।

চন্দন সরকারের খুনিদের গ্রেপ্তারের দাবিতে রোববার হরতাল এবং মঙ্গলবার থেকে অনির্দিষ্টকালের আদালত বর্জনের ঘোষণা দিয়েছে জেলা আইনজীবী সমিতি।

এছাড়া সোমবার ফুল কোর্ট রেফারেন্স, মঙ্গল থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত কালো ব্যাজ ধারণ এবং মঙ্গলবার থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য আদালত বর্জনের ঘোষণা দেওয়া হয়।

আইনজীবীদের এই কর্মসূচির সঙ্গে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন একাত্মতা প্রকাশ করেছে।

শেয়ার করুন