খালেদা জিয়ার হাতে বিএনপি এবং ছাত্রদলের গুম-খুনের তালিকা

0
55
Print Friendly, PDF & Email

গত ৫ জানুয়ারি জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে এবং পরে মোট ৫ মাসে ছাত্রদলের ৩১২ জন নেতা-কর্মী খুন ও গুম হয়েছে বলে বিএনপি দাবি করেছে। এর মধ্যে ২৪৭ জন খুন এবং ৬৫ জন গুম হয়েছেন বলে দাবি করা হয়েছে। এর আগে বিএনপি অনুরূপ একটি তালিকা করে যে, ঐ একই সময়ে তাদের ও জামায়াতের ২৬১ জন খুন ও ৬০ জন গুম হয়েছেন।

গত শনিবার রাতে চেয়ারপারসনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ছাত্রদলের সাবেক নেতা শহীদুল ইসলাম বাবুলের নেতৃত্বে গঠিত ৮ সদস্যের তদন্ত কমিটি বেগম খালেদা জিয়ার কাছে দেয়া এক প্রতিবেদনে নিহত ও গুম হওয়া ছাত্রদল নেতা-কর্মীদের নামের পাশাপাশি তাদের আলোকচিত্র, পূর্ণাঙ্গ ঠিকানা, পারিবারিক পরিচিতি তুলে ধরে। শহীদুল ইসলাম বাবুল ইত্তেফাককে জানান, বিএনপির চেয়ারপার্সনের নির্দেশে দেশব্যাপী নির্বাচনপূর্ব ও নির্বাচনোত্তর সময়ে সংঘটিত খুন, গুম, হামলা-মামলা ও সংখ্যালঘু নির্যাতনের মতো ঘটনাবলী তদন্ত করে প্রতিবেদনটি প্রণয়ন করেন তারা।

প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, ঢাকায় গত ৫ মাসে সবচেয়ে বেশি গুমের শিকার হয়েছেন নেতা-কর্মীরা। রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় ছাত্রদলের ২৫ জন নেতা-কর্মী গুম হয়েছেন। যাদের কোন হদিস আজো মেলেনি। এরমধ্যে বংশাল থানা এলাকায় গুম হন ৫ জন। যাত্রাবাড়ী থানা এলাকায় ৩ জন, তেজগাঁও এলাকায় ৩ জন, বিমান বন্দর থানা এলাকায় ৩ জন, সবুজবাগ থানা এলাকায় ২, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় ২ জন। প্রতিবেদনে ছাত্রদলের সাবেক নেতারা বলেন, যেসব নেতা-কর্মী নিহত হয়েছেন তাদের বেশিরভাগ আন্দোলন করতে গিয়ে পুলিশ অথবা প্রতিপক্ষের গুলিতে মারা গেছেন। কাউকে কাউকে আইন-শৃংখলা বাহিনীর নামে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। পরে লাশ পাওয়া গেছে। শহীদুল ইসলাম বাবুল জানান, বেগম খালেদা জিয়া শিগগিরই সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে এই তালিকা এবং প্রতিবেদন জাতির সামনে তুলে ধরবেন।

শেয়ার করুন