গ্রামে না থাকলে চিকিত্সকদের চাকরির দরকার নেই: নাসিম

0
65
Print Friendly, PDF & Email

চিকিত্সকদের গ্রামে না থাকার ব্যাপারে ক্ষোভ প্রকাশ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, গ্রামে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা থাকার পরও চিকিত্সকেরা কেন থাকতে চান না? তিনি বলেন, নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত চিকিত্সকদের গ্রামে থাকতেই হবে। যদি কেউ না থাকতে চান, তাহলে তাঁর চাকরি করার দরকার নেই।

আজ রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে স্তন ও জরায়ু ক্যানসারবিষয়ক সেমিনার এবং ক্যানসার শনাক্তকরণ ক্যাম্পের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন। ওয়ালটন ও সহযোগী সেন্টার ফর ক্যানসার প্রিভেনশন অ্যান্ড রিসার্চের (সিসিপিআর) যৌথ সহায়তায় ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, গ্রামে যোগাযোগব্যবস্থা ভালো, পরিবেশ ভালো। স্কুল ও কলেজের অভাব নেই। গ্রামে চিকিত্সকদের জন্য যানবাহনের ব্যবস্থা করা হবে বলে জানান তিনি। মন্ত্রী গ্রামে থাকার জন্য চিকিত্সকদের প্রতি অনুরোধ জানিয়ে বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে এখন তদবির চলে না। নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত চিকিত্সকদের গ্রামে থাকতেই হবে।

মন্ত্রী সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, অনিয়ম বা নেতিবাচক সংবাদ প্রকাশ ও প্রচারে সাংবাদিকেরা বেশি আগ্রহী থাকেন। হাসপাতালের সামনে থেকে অবৈধ সব স্থাপনা সরানো হচ্ছে। এসব নিয়ে কেউ লেখেন না। তিনি আরও জানান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হাসপাতালে সাংবাদিকদের জন্য কমমূল্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষার সুযোগ দেওয়া হবে।

মোহাম্মদ নাসিম আরও বলেন, সমাজ থেকে রাজনৈতিক ক্যানসার দূর করতে হবে। স্বাস্থ্যসেবার ক্ষেত্রে দলবাজি করা চলবে না।

অনুষ্ঠানে ওয়ালটনের গেমস অ্যান্ড স্পোর্টসের অ্যাডিশনাল ডিরেক্টর এ এফ এম ইকবাল বিন আনোয়ার, জাতীয় ক্যানসার ইনস্টিটিউটের পরিচালক শেখ গোলাম মোস্তফা, জাতীয় ক্যানসার ইনস্টিটিউটের সহযোগী অধ্যাপক হাবিবুল্লাহ তালুকদার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর ডিআরইউয়ের নারী প্রতিবেদকদের বিনা মূল্যে স্তন ও জরায়ু ক্যানসার শনাক্তের প্রাথমিক পরীক্ষা করা হয়।

শেয়ার করুন