পণ্য বিপণনে প্রয়োজন সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা

0
83
Print Friendly, PDF & Email

দেশের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পোদ্যোক্তাদের (এসএমই) উত্পাদিত পণ্য বিপণন একটি বড় সমস্যা বলে মনে করেন এ খাতের উদ্যোক্তারা। বাংলাদেশ ছাড়া অন্যান্য দেশেও এ ধরনের সমস্যা রয়েছে বলে তারা মনে করেন। এসব সমস্যা সমাধানে মেলা ও প্রদর্শনীর আয়োজনের পাশাপাশি পণ্য বিপণনের জন্য ম্যাচ-মেকিং কর্মসূচি আয়োজন, তথ্য সেবা প্রদান, ই-ক্যাটালগ ও ওয়েবসাইট নির্মাণে সহায়তাদানসহ এসএমইখাতে বিভিন্ন উন্নয়নধর্মী কর্মসূচিতে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা বাড়ানোর তাগিদ দেন তারা।

শুক্রবার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এসএমই মেলা উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তারা এমন মত দেন। শিল্প মন্ত্রী আমির হোসেন আমু এতে প্রধান অতিথি ছিলেন। এসএমই ফাউন্ডেশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. সৈয়দ ইনসানুল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শিল্প সচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ, এসএমই ফাউন্ডেশনের মহাব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মুজিবুর রহমান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, দেশের মোট ১৬ কোটি মানুষের মধ্যে প্রায় ৩ কোটি লোক বেকার। তাদের জন্য সরকারিভাবে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা সম্ভব নয় তবে সমন্বিতভাবে উদ্যোগ গ্রহণ করে বেকার জনগোষ্ঠীকে শিল্প উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তোলা সম্ভব। তৃণমূল পর্যায়ে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের বিকাশ ঘটিয়ে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্য অর্জন প্রয়োজন বলে তারা মনে করেন।

অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী এসএমই উদ্যোক্তাদের উন্নয়নে সরকারের সহায়তা অব্যাহত থাকবে বলে জানান। সেই সঙ্গে উদ্যোক্তাবান্ধব বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণের জন্য এসএমই ফাউন্ডেশনের প্রতি পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, অর্থনৈতিক মন্দায় বিশ্বের উন্নত দেশগুলো নেতিবাচক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হলেও বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে আলোচিত হচ্ছে।

এসএমই খাতে নারীদের অংশগ্রহণ বাড়ানোর তাগিদ দিয়ে তিনি বলেন, দেশের অর্ধেক নারীকে বাদ দিয়ে অর্থনৈতিক উন্নয়নের লক্ষ্য অর্জন সম্ভব নয়। জাতীয় অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রার নারীদের অবদান মাত্র ১০ থেকে ১৫ ভাগ। ব্যবসায় নারীদের অংশগ্রহণ শতকরা ১ ভাগের সামান্য বেশি। আর এসএমই খাতে নারী উদ্যোক্তাদের অংশগ্রহণ ১০ ভাগ। কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে এ সংখ্যা যত দ্রুত বাড়নো প্রয়োজন।

উল্লেখ্য, গতকাল থেকে শুরু হওয়া এ মেলা চলবে আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত। মেলায় দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত দেড়শ’ জন উদ্যোক্তা স্টল দিয়েছেন। এসব স্টলে পাটজাত পণ্য, চামড়াজাত সামগ্রী, পোশাক, ডিজাইন ও ফ্যাশন ওয়্যার, হস্তশিল্প, কৃষি প্রক্রিয়াজাত পণ্য, গৃহস্থালী দ্রব্য, প্লাস্টিক ও সিনেথটিকস, ইলেকট্রিক্যাল ও ইলেকট্রনিক্স, হালকা প্রকৌশল দ্রব্যসহ এসএমইখাতে উত্পাদিত অন্যান্য দেশিয় পণ্য প্রদর্শন করা হচ্ছে। মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সকলের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। মেলা প্রদর্শনের জন্য কোনো প্রবেশ মূল্য দিতে হবে না।

শেয়ার করুন