যে কেউই জিততে পারে: অশ্বিন

0
125
Print Friendly, PDF & Email

বিশ্বকাপ শুরু হবার আগেও চিত্রটা ছিল ভিন্ন রকম। টানা ব্যর্থতার দায়ভার নিয়েই বাংলাদেশে এসেছিল ভারত। অথচ মহেন্দ্র সিং ধোনির নেতৃত্বাধীন দলটিই এখন সেমিফাইনালে। ধারণা করা হচ্ছে, মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সেমিফাইনাল বলেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে কিছুটা হলেও এগিয়ে থাকবে ভারত। কিন্তু দলটির সদস্য রবীচন্দ্রন অশ্বিন এমনটা মানতে রাজি নন। বরং সেমিফাইনালে নামার আগে গতকালকের সংবাদ সম্মেলনে এসে জানিয়ে দিলেন যে কেউই জিততে পারে ম্যাচটি।

আপনারা সবগুলো ম্যাচ খেলেছেন এখানে। আর দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচগুলো ছিল চট্টগ্রামে। এটা কি কিছুটা হলেও আপনাদের এগিয়ে রাখবে?

রবীচন্দ্রন অশ্বিন: আমরা জানি উইকেট কিভাবে কাজ করে। কিন্তু এটাও মনে রাখতে হবে এটা সেমিফাইনাল। আর টুর্নামেন্টের এই পর্যায়ে এসে অনেক কিছুই ঘটতে পারে। তাই ঠিক এগিয়ে আছি বলা যায় না। যে কেউই জিততে পারে। ম্যাচের দিনে যে ভাল খেলবে ভাগ্য তারই সহায় হবে। তারপরও এখানে ম্যাচ খেলার সুবিধাটা আমরাই পাবো।

দক্ষিণ আফ্রিকার অনুশীলনে এসেছিলেন শেন ওয়ার্ন…

রবীচন্দ্রন অশ্বিন: আমি আসলে জানি না, ঠিক কোন কারণে দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যানেজমেন্ট তাকে ডেকেছে। এটা বিজ্ঞাপনের জন্য হতে পারে বা স্পিনারদের টিপস দেয়ার জন্যও হতে পারে। হয়তো ইমরান তাহির ওয়ার্নের কাছ থেকে কিছু শিখে থাকতে পারে। আসলে সেখানে কি হয়েছে, দূর থেকে অনুমান করা কষ্টকর। হয়তো উনি মিরপুরের উইকেট সম্পর্কে ধারণা দিয়েছেন।

দলে তিন জন স্পিনার রয়েছে। দল সাজানোর জন্য সেটা কতটা গুরুত্বপূর্ণ ?

রবীচন্দ্রন অশ্বিন:আসলে দল সাজানোর কাজটা মূলত করা হয় দিনের শেষে। আর কাজটা করে অধিনায়ক আর নির্বাচক কমিটি। হ্যাঁ এটা ঠিক যে আমাদের দলে দারুণ কিছু স্পিনার আছে। স্পিনাররা ভাল করছে। আমার মনে হয়, ওরাও দু’জন স্পিনার নিয়ে খেলবে। খুব সম্ভব অ্যারন ফ্যাঙ্গিসোকে সুযোগ দেয়া হবে।

টুর্নামেন্টের মূল স্ট্র্যাটেজিটা কি? যত সম্ভব চাপ কম নেয়া?

রবীচন্দ্রন অশ্বিন: দলের কম-বেশি সবাই চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি খেলেছে। দলটাও বেশ নবীন। এছাড়া অন্য দলের মতো আমাদের বাড়তি কোন বোঝা নেই। অনেক বড় টুর্নামেন্টে আমরা খুব কমই হেরেছি। তাই আমাদের বড় কোন অভিশাপ নেই। হারাবারও কিছু নেই। আর এই টুর্নামেন্টে আমরা কখনওই ফেবারিট হয়ে আসিনি। ফেবারিট হয়ে থাকতে চাইনিও কখনও। আমরা শুধু খেলা থেকে আনন্দ নিতে চাই।

ওয়ানডে বিশ্বকাপ, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি— ক্রিকেটের মূল তিনটা বড় আসরেরই শিরোপা জেতা হয়ে গেছে ভারতের। এবার আপনাদের সম্ভাবনা কতটুকু?

রবীচন্দ্রন অশ্বিন: আমি কখনওই এসব নিয়ে খুব বেশি কথা বলা পছন্দ করি না। চারটা দল সেমিফাইনালে খেলছে। প্রতিটি দলেরই শতকরা ২৫ ভাগ সুযোগ আছে। এটা সংখ্যার খেলা।

বড় টুর্নামেন্টে দক্ষিণ আফ্রিকার রেকর্ড কখনওই খুব একটা ভাল না। এবার তাদের নিয়ে আপনাদের মূল্যায়ন কি?

রবীচন্দ্রন অশ্বিন: এটাকে ওরা আমাদের থেকে পিছিয়ে থাকার একটা কারণ হিসেবে দেখাতে পারে। কিন্তু আগে কি হয়েছে সেটা নিয়ে আমি একদমই ভাবি না।

শেয়ার করুন