নেইমারের গোলে মান বাঁচালো বার্সা

0
59
Print Friendly, PDF & Email

মঙ্গলবার লিওনেল মেসির জন্য বিস্মরণযোগ্য একটা রাত কেটেছে। বল পায়ে নিজের জাত চেনাতে পারেননি আর্জেন্টাইন ফুটবল যাদুকর। বারবার আটকে গেছেন অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদের ডিফেন্ডারদের পায়ের দঙ্গলে। শুধু মেসি কেন, এদিন বার্সার বিখ্যাত আক্রমণভাগ’ই বারবার হোঁচট খেয়েছে দিয়াগো গডিন ও ফিলিপ্পো লুইসদের সামনে। এই সুযোগে চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম পর্বের খেলায় স্পেন চ্যাম্পিয়ন দলটিকে পেছনে ফেলে এগিয়ে গিয়েছিল অ্যাটলেটিকো। শেষ পর্যন্ত অবশ্য নেইমারের গোলে ১-১ ড্র করে মান বাঁচিয়েছে আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা-জাভি হার্নান্দেজ ও আলেক্সিজ সানচেজরা।  

দিয়াগো কস্তা ইনজুরি নিয়ে মাঠ ছাড়লে তার পরিবর্ত হিসেবে নেমে নায়ক বনে গিয়েছিলেন দিয়াগো রিবাস। অল্পের জন্য তা হতে দেননি নেইমার। মঙ্গলবার নু ক্যাম্পে চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম দফায় ঘরের মাঠের দর্শকদের প্রত্যাশা মেটাতে ব্যর্থ মিক্স (মেসি, ইনিয়েস্তা ও জাভি)। প্রথমার্ধ নিস্ফলাই থাকে হাইভোল্টেজ অল স্প্যানিশ লড়াই। তবে বিরতি থেকে ফিরে খেলার ৫৬ মিনিটে সফরকারী অ্যাটলেটিকোকে এগিয়ে নেন রিবাস। গ্যাবির পাস থেকে বার্সার তেকাঠি স্পর্শ করেন তিনি। তাও ৩০ গজ দুর থেকে। এর ১৯ মিনিট বাদে নেইমারের গোলে সমতা ফেরায় বার্সা। ইনিয়েস্তার ডিফেন্স চেরা পাস থেকে দুর্দান্ত ফিনিশিং দেন ব্রাজিলিয়ান সেনসেশন।

তবে পজেশন, পাসিং ও প্রেসিং সব খানেই দাপট দেখিয়েও ৯ এপ্রিল চ্যাম্পিয়নস লিগের ফিরতি লেগে চাপে থাকবে বার্সেলোনা। কারণ, অ্যাওয়ে গোল অ্যাটলেটিকোকে এগিয়ে রাখবে। বিষয়টি স্বীকার করে নিয়েছেন বার্সার মাঝ মাঠের কান্ডারি জাভি হার্নান্দেজও। তিনি বলেন, ‘অ্যাটলেটিকোকে আমরা হালকা ভাবে নিইনি। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রতিটি ম্যাচই ওরা দারুণ খেলছে। তবে ওদের গোলটা আমাদের কাছে লজ্জার। আমরা সুযোগ গুলো কাজে লাগাতে পারিনি। অ্যাওয়ে ম্যাচে আমাদের গোল করতে হবে। সুতরাং এদিনের ফলাফল আমাদের কাছে মোটেই খুশির নয়।’

এদিন ম্যাচ শুরুর পাঁচ মিনিটের মাথায় দারুণ সুযোগ পেয়েছিলেন অ্যাথলেটিকোর ডেভিড ভিলা। কিন্তু, তার নেয়া শটকে দারুণ নিপুনতায় ঠেকিয়ে দেন বার্সা গোলকিপার ম্যানুয়েল পিন্টো। মিনিটখানেক পরেই বার্সাকে এগিয়ে দেওয়ার সুযোগ হাতছাড়া করেন মেসি। ২৪ মিনিটে মাথায় দলকে এগিয়ে দেওয়ার সুযোগ ছিল নেইমারের সামনেও। কিন্তু, ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকারের দুর্বল হেডার আটকাতে বেগ পেতে হয়নি অ্যাটেলিকো গোলকিপারকে।

শেয়ার করুন