দেশে দেশে এপ্রিল-ফুলের আচার-সমাচার

0
84
Print Friendly, PDF & Email

হাস্য-কৌতুকে সবাই মিলে আনন্দ, নাকি একে অপরকে বোকা বানিয়ে আনন্দ পাওয়া? খরার শেষে কৃষি মৌসুম শুরুর উদযাপন আর বসন্তের উত্সব, নাকি নববর্ষ পালনের দিন ভুলে যাওয়ায় তামাশার পাত্র বনে যাওয়া? নানান সংস্কৃতিতে ভিন্ন ভিন্ন ঐতিহ্য থেকে পালন করা হলেও এপ্রিল মাসের প্রথম দিন বা বছরের এ সময়টিকে বিশেষভাবে উদযাপনের ইতিহাস দীর্ঘদিনের। আধুনিক বিশ্বে ‘এপ্রিল ফুল’ পালন যেমন সব দেশে একইভাবে হয় না, তেমনি এই উত্সবের উত্স বা ইতিহাস নিয়েও গবেষক-লেখকদের মধ্যে ভিন্নমত রয়েছে। তবে প্রাচীন পারস্য ও রোমান সাম্রাজ্য থেকে শুরু করে আধুনিক ইউরোপে এমন একটি হাস্য-কৌতুকের উত্সব পালনের রীতি বরাবরই ছিল।

২০০১ সালে ‘কোপেনহেগেন মেট্রো’র নির্মাণকাজ উদযাপন করতে সাবওয়ের একটি পুরোনো গাড়ি দিয়ে ‘দুর্ঘটনার ঘটনা’ সাজানো হয়। ছবি: উইকিপিডিয়া।২০০১ সালে ‘কোপেনহেগেন মেট্রো’র নির্মাণকাজ উদযাপন করতে সাবওয়ের একটি পুরোনো গাড়ি দিয়ে ‘দুর্ঘটনার ঘটনা’ সাজানো হয়। ছবি: উইকিপিডিয়া।এপ্রিল ফুল কীভাবে শুরু হয়েছিল
কোনো একটি সংস্কৃতির একটি নির্দিষ্ট উত্সব বা একক রীতি থেকে আধুনিক ‘এপ্রিল ফুল’ শুরু হয়েছিল বলে মনে করেন না অনেক ইতিহাস গবেষকই। প্রাচীনকাল থেকেই সাম্রাজ্য ও ধর্ম বিস্তার এবং ক্ষমতার পালাবদলের সঙ্গে সঙ্গে একদিকে যেমন ভিন্ন ভিন্ন সংস্কৃতির মধ্যে আদান-প্রদান বেড়েছে, তেমনি নানান জাতিগোষ্ঠীর ওপর ভিন্ন সংস্কৃতি চাপিয়ে দেওয়ারও চেষ্টা করা হয়েছে। আবার প্রতিক্রিয়া হিসেবে পালটা বা প্রতিরোধী সংস্কৃতিরও জন্ম দিয়েছে নানান সময়ের নানান জাতি-জনগোষ্ঠী। কালের বিবর্তনে ভিন্ন ভিন্ন সংস্কৃতির ভিন্ন মাত্রার নানান উপাদানও একত্রে মিশে যেতে পারে। কালে কালে রূপ বদলাতে পারে আচার-অনুষ্ঠান উত্সবের। এপ্রিল ফুল উদযাপনের বিষয়টিও তেমনি নানাভাবে আবর্তিত-বিবর্তিত হয়ে বর্তমান রূপ ধারণ করেছে বলে মনে করা হয়।

শেয়ার করুন