ঢাকা কলেজে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে গোলাগুলী আহত ৩ ॥ আটক ২০

0
57
Print Friendly, PDF & Email

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে একজন গুলীবিদ্ধসহ ৩ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় পুলিশ ২০ জনকে আটক করেছে। রোববার রাত পৌনে ১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ঢাকা কলেজের একজন ছাত্র এ তথ্য জানান।

জানা গেছে, ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক সাকিব হাসান সুইনের অনুসারী রিংকু গ্রুপ ও ইলিয়াস হলের সোহেল গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। ছাত্রলীগের নতুন কমিটিতে পদ পেতে প্রভাব বিস্তাার নিয়েই এ সংঘর্ষ হয়েছে বলে জানা গেছে।

ঢাকা কলেজ ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতার ভাষ্য, কলেজের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক সাকিব হাসান সুইমের অনুসারী মাস্টার্স হলের রিংকু গ্রুপ ও ইলিয়াস হলের সোহেল গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষ হয়। আসন্ন কমিটিতে পদ পেতে আধিপত্য বিস্তার করতে এ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে রিংকু ও সোহেল গ্রুপ।

এদিকে সংঘর্ষের ঘটনায় ঢাকা কলেজ এলাকায় বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে গেলে তাদের লক্ষ্য করে অন্তত ১০ রাউন্ড গুলী ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয় । এ ছাড়া ৫টি মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগের খবর পাওয়া গেছে। রাত পৌনে ২টায়  পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয় পুলিশ।

রমনা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মারুফ হোসেন রাতে বলেন, ‘আমি এখন ঢাকা কলেজ মাঠে পুলিশ নিয়ে অবস্থান করছি। একটু আগেও ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা সংঘর্ষে লিপ্ত ছিল। পুলিশ এখন পুরো পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে। এখন পরিস্থিতি শান্ত। গোলাগুলী হয়েছে।

পুলিশের দেয়া তথ্য মতে, গুলীবিদ্ধ শিক্ষার্থীর নাম সাইফুল ইসলাম। তিনি রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র। অন্য দুজনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে। তাৎক্ষণিকভাবে তাদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। কলেজের সব কয়টি হলে তল্লাশি চালিয়ে তিনটি ককটেল, বিস্ফোরক তৈরির কিছু উপাদান, চারটি চাপাতি, ছয়টি রামদা, বিপুল পরিমাণ রড ও বাঁশের লাঠি উদ্ধার করা হয়েছে।

ডিএমপির যুগ্ম কমিশনার শাহাবুদ্দিন খান সাংবাদিকদের বলেন, একটি সংঘাতপূর্ণ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছিল। তা নিয়ন্ত্রণে আনা হয়েছে। হল সুপারদের উপস্থিতিতে হলে তল্লাশি চালানো হয়েছে। সন্দেহভাজন ১২/১৩ জনকে আটক করা হয়েছে। তিনি বলেন, দুষ্কৃতকারী ও অস্ত্রধারী যারাই হোক না কেন, তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। সংঘর্ষের বিষয়ে কলেজ কর্তৃপক্ষ বা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

ডিবি সূত্রে জানা গছে, মধ্যরাতে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনার পরেই পুলিশ ও ডিবি অভিযান চালায়। অভিযান শেষে অন্তত ২০ জনকে আটক করে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়। তাদের কাছ থেকে ছুরি, রামদাসহ নানা ধরনের দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।

ডিএমপির সহকারী পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) আবু ইউসুফ বলেন, ‘কয়েকজনকে আটক করে ডিবি কার্যালয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। তারা সবাই ছাত্র কিনা, সে বিষয়ে খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে।

শেয়ার করুন