সমঝোতা না হলে গণতন্ত্র হুমকিতে পড়বে’

0
50
Print Friendly, PDF & Email

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ড. আকবর আলি খান বলেছেন, সংবিধানের সংশোধন রাজনীতিকে তেমন প্রভাবিত করে না। দেশে প্রকৃত গণতন্ত্র চর্চা করতে হলে রাজনৈতিক দলগুলোর মানসিকতার পরিবর্তন আবশ্যক। সংবিধানে লেখা থাকবে এক রকম কিন্তু রাজনৈতিক দলগুলো তাদের আদর্শধারণ করবে অন্য রকম, সে সংবিধান কোন ফল বয়ে আনবে না। দেশে এ পর্যন্ত যত ধরনের রাজনৈতিক ব্যর্থতা সৃষ্টি হয়েছে সকল ব্যর্থতা সংবিধানের ঘাড়ে চাপানো হয়েছে। তত্ত্বাবধায়ক বা নির্বাচনকালীন সরকার পদ্ধতি নিয়ে যদি বড় দলগুলোর মধ্যে সমঝোতা না হয় তাহলে আবারও দেশের গণতন্ত্র হুমকির মুখে পড়বে।

আজ শনিবার বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আর সি মজুমদার মিলনায়তনে ‘বাংলাদেশের সংবিধান পর্যালোচনা’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। গণতান্ত্রিক আইন ও সংবিধান আন্দোলন এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

ড. আকবর আলী খান বলেন, দেশে প্রকৃত গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য স্থানীয় সরকারকে শক্তিশালীকরণ, সরকারের জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে গণভোটের আয়োজন এবং সরকারের মেয়াদ ৩ বা ৪ বছর করা দরকার। দলগুলোর মধ্যে নিয়মিত নির্বাচন, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরন এবং পরিবারতান্ত্রিক রাজনীতি থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।

প্রবীণ রাজনীতিক হায়দার আকবর খান রনো বলেন, সংবিধানের কাটাছেড়া আমাদের পিছিয়ে দিয়েছে। দলীয় স্বার্থেও সংবিধানে পরিবর্তন জাতীয় সংকট তৈরি করেছে। সংবিধানকে আরো জনবান্ধব করতে উদ্যোগ নেয়া প্রয়োজন। তবে দলীয় ও গোষ্ঠী স্বার্থকে বিসর্জন দিতে হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দর্শন বিভাগের অধ্যাপক হারুন রশীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাংবাদিক মিজানুর রহমান খান, ব্যারিস্টার সাদিয়া রহমান, এডভোকেট জামিলুর রহমান খান, গণতান্ত্রিক আইন ও সংবিধান আন্দোলনের সমন্বয়কারী হাসনাত কাইয়ূম

শেয়ার করুন