বাংলাদেশে বাজার বাড়াতে সচেষ্ট ভারতীয় বস্ত্র ব্যবসায়ীরা

0
66
Print Friendly, PDF & Email

ভারতীয় বস্ত্র ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশে তাঁদের বাজার সম্প্রসারণের জন্য জোরেশোরে মাঠে নেমেছেন। বাংলাদেশে চীন থেকে বস্ত্র বা টেক্সটাইল আমদানি কয়েক বছর ধরে বেড়ে যাওয়ায় ভারতীয় রপ্তানিকারকেরা পিছিয়ে পড়েছেন। খবর ইকোনমিক টাইমস-এর।

ভারতীয় ব্যবসায়ীদের মতে, বাংলাদেশের বাজার তাঁদের জন্য বরাবরই একটি সম্ভাবনাময় বাজার। কিন্তু গত দুই বছরে চীনের বস্ত্র ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশে তাঁদের অবস্থান সুসংহত করতে শুরু করেছেন।

বাংলাদেশের তৈরি পোশাকের জন্য যে বস্ত্রসামগ্রী প্রয়োজন হয়, তার বড় অংশই আসে চীন ও ভারত থেকে। ভারতীয় ব্যবসায়ীরা মনে করেন, ভৌগোলিক দিক থেকে একেবারে কাছে থাকায় পণ্য পরিবহনের দূরত্ব ও ব্যয় অনেক কম। আর তাই বাংলাদেশের বাজারে তাঁদের পিছিয়ে পড়ার কোনো অবকাশ নেই।

সম্প্রতি ভারতের গোয়ায় অনুষ্ঠিত ইন্টারন্যাশনাল এথেনিক উইকের আয়োজন করা হয় বিভিন্ন দেশের নৃতাত্ত্বিক পোশাক ও বস্ত্রসামগ্রী তুলে ধরতে। এতে এক হাজারের বেশি ভারতীয় ও ৪০০ বিদেশি প্রতিনিধি যোগ দেন। বিদেশিদের মধ্যে বাংলাদেশ থেকেই ১৩০ জনের একটি দল যোগদান করে বলে জানান কলকাতার এফএম টেক্সটাইল প্রাইভেট লিমিটেডের অংশীদার সঞ্জয় মুরাকা। তিনি আরও জানান যে শুধু সুরাট থেকেই বছরে এক হাজার কোটি রুপির বস্ত্র রপ্তানি হয় বাংলাদেশে।

বাংলাদেশের জয়েন্ট ইমপেক্স ট্রেড কোম্পানির শহীদুল আলম বলেন যে তাঁরা এই প্রদর্শনীতে এসেছেন ফেব্রিক ও সেলাইবিহীন সামগ্রী দেখতে।

বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা সুরাট, আহমেদাবাদ ও দিল্লি থেকে বস্ত্রসামগ্রী সংগ্রহের বিষয়ে সেখানকার ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আলাপ করেছেন।

উল্লেখ্য, প্রধানত রপ্তানিমুখী তৈরি পোশাকশিল্পের চাহিদা মেটানোর জন্য বিপুল পরিমাণ বস্ত্র আমদানি করতে হচ্ছে।

বাংলাদেশ এখন বিশ্বের অষ্টম বৃহৎ বস্ত্র আমদানিকারক দেশ হয়ে উঠেছে।

শেয়ার করুন