ইসলামী ব্যাংকের টাকা ফেরত দিল সরকার

0
76
Print Friendly, PDF & Email

লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা’ অনুষ্ঠানের জন্য ইসলামী ব্যাংকের আর্থিক সহায়তা ৩ কোটি টাকা ফিরিয়ে দিয়েছে সরকার। রবিবার অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের যুগ্ম সচিব অরিজিৎ চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।
এর ফলে আগামী ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসে অনুষ্ঠিতব্য লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা অনুষ্ঠানের জন্য ইসলামী ব্যাংকের আর্থিক সহায়তা গ্রহণ নিয়ে যে বিতর্ক চলছিল তার অবসান হয়েছে।
বিবৃতিতে বলা হয়, প্রাপ্ত সহায়তা সমন্বয় করতে গিয়ে আমরা দেখতে পাই ইসলামী ব্যাংক লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা অনুষ্ঠানের জন্য তিন কোটি টাকা দিয়েছে। সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় এ অর্থ নিতে অস্বীকৃতি জানায়। আমরা সেই অনুযায়ী ইসলামী ব্যাংক থেকে এই আর্থিক সহায়তা গ্রহণ করছি না। বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ইসলামী ব্যাংক আইনগতভাবে নিবন্ধিত একটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান। তারা এ দেশে আইনগতভাবে তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। তাদের সমন্ধে কারও কারও তেমন ভাল ধারণা নেই এবং তাদের সহায়তা গ্রহণে আগেও অনেক প্রতিষ্ঠান অস্বীকৃতি জানিয়েছে। তাই দ্ব্যর্থহীনভাবে বলা যেতে পারে যে, লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা অনুষ্ঠানে ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের সহায়তা গ্রহণ করা হচ্ছে না।
গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে অন্তর্ভুক্তির জন্য ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসে রাজধানীর জাতীয় প্যারেড গ্রাউন্ডে লাখো কণ্ঠে গাওয়া হবে জাতীয় সঙ্গীত। তিন লাখের বেশি মানুষ এতে সরাসরি অংশ নেবেন। বিভিন্ন ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান ও ব্যাংক-বীমা এই অনুষ্ঠানের জন্য অনুদান দিচ্ছে। ইসলামী ব্যাংকও অনুদান দিয়েছে বলে কয়েক দিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে তীব্র সমালোচনা হচ্ছে। গত ১৮ মার্চ সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর জানান, লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা অনুষ্ঠানের জন্য ইসলামী ব্যাংকের কাছ থেকে অনুদান নেয়ার খবর সঠিক নয়। তবে একই দিনে বাংলা একাডেমিতে এক অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছিলেন, ইসলামী ব্যাংকের টাকায় জাতীয় সঙ্গীত হবে না। এই টাকা ফিরিয়ে দেয়া উচিত।
এছাড়া ইসলামী ব্যাংকের টাকা গ্রহণ করায় ইতোমধ্যে দেশের অন্যতম পুরনো সাংস্কৃতিক সংগঠন উদীচী লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা অনুষ্ঠানের বর্জনের ঘোষণা দেয়। এছাড়া ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটিও ইসলামী ব্যাংকের টাকা গ্রহণ করায় তীব্র নিন্দা জানায়।
বিশ্বের সর্ববৃহৎ মানব পতাকা গড়ে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে জায়গা নেয়ার পর লাখো কণ্ঠে জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমেও রেকর্ড গড়ার উদ্যোগ নেয়া হয়।
এ আয়োজনের পাশাপাশি টি২০ বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য গত ১৪ মার্চ গণভবনে বিভিন্ন টেলিকম প্রতিষ্ঠান, কর্পোরেট প্রতিষ্ঠান, বিদ্যুত উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান, রাষ্ট্রীয় ও বেসরকারী ব্যাংক এবং বীমা প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে আর্থিক সহায়তার চেক গ্রহণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বাংলাদেশ এ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকসের (বিএবি) নেতারাও ওইদিন প্রধানমন্ত্রীর হাতে সহায়তার চেক দেন, যাঁদের মধ্যে ইসলামী ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান ইঞ্জিনিয়ার মুস্তাফা আনোয়ারও ছিলেন।
যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবিতে আন্দোলনরত গণজাগরণ মঞ্চ কর্তৃক চিহ্নিত ‘যুদ্ধাপরাধীদের প্রতিষ্ঠান’ ইসলামী ব্যাংকের কর্মকর্তার ওই অনুষ্ঠানে থাকার খবর সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হলে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলোতে ব্যাপক সমালোচনা হয়।

শেয়ার করুন