অবৈধ সরকারকে হটিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে : খালেদা জিয়া

0
51
Print Friendly, PDF & Email

আইনজীবীদের সাথে এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, বর্তমান সরকার অবৈধ। শিগগিরই এই অবৈধ সরকারকে হটিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। অবৈধ নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসেই এই সরকার বিরোধী দল নির্মূলের এজেন্ডা হাতে নিয়েছে। সারা দেশে বিরোধী নেতাকর্মীদের ওপর মামলা-হামলা চালাচ্ছে। এ অবস্থা থেকে বাঁচতে হলে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরাতে হবে।
গত রাত ৮টা ৪৫ মিনিটে বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে এ মতবিনিময় শুরু হয়। শেষ হয় রাত ৯টা ১০ মিনিটে। ঢাকা বার অ্যাসোসিয়েশনের আসন্ন নির্বাচনে জাতীয়তাবাদী প্যানেল নির্ধারণ উপলে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। আগামী ২৬ ও ২৭ ফেব্রুয়ারি এ নির্বাচন হওয়ার কথা।
বৈঠক সূত্রে জানা যায়, মতবিনিময়কালে গত ২৯ ডিসেম্বর ‘মার্চ ফর ডেমোক্র্যাসি’তে আইনজীবীদের ভূমিকার প্রশংসা করে তাদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন বেগম খালেদা জিয়া। একই সাথে আগামীতেও যেকোনো কর্মসূচিতে আইনজীবীদের সম্পৃক্ত থাকার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তিনি। এ ছাড়া বৈঠকে ১৯ দলীয় জোটের আটক নেতাকর্মীদের ছাড়িয়ে আনার আইনি প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলেও সূত্রটি নিশ্চিত করেছে।
মতবিনিময়ে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদিন, সুপ্রিম কোর্ট বারের সভাপতি অ্যাডভোকেট এ জে মোহাম্মদ আলী, দলের যুগ্ম মহাসচিব ও সুপ্রিম কোর্ট বারের সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, সিনিয়র আইনজীবী আবদুর রেজ্জাক খান, অ্যাডভোকেট লুৎফে আলম, বিএনপির গণশিাবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার, ঢাকা বারের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোরশেদ মিয়া আলম, অ্যাডভোকেট মকবুল হোসেন ফকির, অ্যাডভোকেট আবদুল্লাহ মাহমুদ হাসান, অ্যাডভোকেট মোহাম্মাদ মহসিন মিয়া, অ্যাডভোকেট বোরহান উদ্দিন, অ্যাডভোকেট গোলাম মোস্তফা খান, অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন, অ্যাডভোকেট মল্লিক শফিউদ্দিন আহমেদ, অ্যাডভোকেট শাহ মোহাম্মদ শাহাবুদ্দিন, অ্যাডভোকেট এ কে এম সোহরাব, অ্যাডভোকেট শামীমা আক্তার শাম্মী, অ্যাডভোকেট আজিজুল ইসলাম খান বাচ্চু, অ্যাডভোকেট আবদুল খালেক, অ্যাডভোকেট আবুল কালাম খান, অ্যাডভোকেট এখলাসুর রহমান, অ্যাডভোকেট আবদুস সামাদ, অ্যাডভোকেট খন্দকার দিদারুল ইসলামসহ ১৫০ জনের মতো আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন। তাদের মধ্যে আটজন আইনজীবী বক্তব্য রাখেন।

শেয়ার করুন