দিল্লির শাসক দল আম আদমি পার্টিতে ফাটলের আশঙ্কা

0
70
Print Friendly, PDF & Email

দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের আম আদমি পার্টিতে ফাটলের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে ৷ একমাস বয়সের সরকারের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগের আঙুল তুলেছেন দলীয় বিধায়ক বিনোদ কুমার বিন্নি। তিনি বলেন, কেজরিওয়াল আম জনতাকে ধোঁকা দিয়েছেন ৷নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি পালন করছেন না বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

ক্ষমতায় আসার এক মাসের মধ্যেই অরবিন্দ কেজরিওয়ালের দিল্লি আম আদমি পার্টি (আপ) সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনার তাপ ক্রমশই বাড়ছে দলের ভেতরে ও বাইরে ৷ কীভাবে এটা সামলানো যায়, সেটাই হবে এখন দলের সামনে বড় চ্যালেঞ্জ। অভিযোগ তুলেছেন দলের অন্যতম বিধায়ক বিনোদ কুমার বিন্নি।

প্রকাশ্যে সাংবাদিক সম্মেলন করে তিনি জানান, কেজরিওয়াল সরকার ও জনগণকে ধোঁকা দিচ্ছেন। নির্বাচনী প্রতিশ্রুতির কোনোটাই এখনো পর্যন্ত পালন করতে পারেননি। মিডিয়া এ বিষয়ে জনমত যাচাই করে দেখতে পারে। যে ইস্যুকে ভিত্তি করে আম আদমি পার্টি ক্ষমতায় এসেছে সেই দুর্নীতি দমনে জনলোকপাল বিল ১৫ দিনের মধ্যে বিধানসভায় আনার কথা ছিল, কিন্তু আনতে পারেননি।

২০১২ সালের ১৬ ডিসেম্বর দিল্লির বাসে একজন মেডিকেল ছাত্রীর গণধর্ষণ কালে গোটা দেশে যে আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছিল, তাতে শামিল হয়ে মহিলাদের নিরাপত্তায় সোচ্চার হয়েছিল যে আম আদমি পার্টি, আজ দিল্লির পথেঘাটে সেই দলের সরকারের চোখের সামনে নির্বিবাদে চলেছে ধর্ষণ ও গণধর্ষণ ৷এমনকি, গণধর্ষণ থেকে রেহাই পাচ্ছেন না বিদেশিরাও। কোথায় গেল মহিলাদের নিরাপত্তার জন্য বিশেষ কমান্ডো বাহিনী গঠনের প্রতিশ্রুতি? কেন শিথিল হয়ে গেল আম আদমি পার্টির মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়ালের লৌহমুষ্টি? অভিযোগ দলীয় বিধায়ক বিন্নির।

ধর্ষণের শিকার যখন বিদেশি নারীরা…

অতি সম্প্রতি অল্প সময়ের ব্যবধানে তিনজন বিদেশি নারী ধর্ষণের শিকার হন। দিল্লিতে ৫০ বছর বয়সী এক ডেনিশ মহিলা গণধর্ষণের শিকার হন রাতে দিল্লি স্টেশনের অদূরে। তাঁর টাকা পয়সা, আই-ফোন কেড়ে নেয় দুষ্কৃতকারীরা। পুলিশ অবশ্য ৬-৭ জনকে আটক করেছে যাদের কয়েকজন মাদকাসক্ত। তাদের জেরা চলছে। ঐ পর্যটক মহিলা শারীরিক ও মানসিকভাবে বিধ্বস্ত হয়ে ডেনমার্ক ফিরে যান।

চেন্নাইগামী একটি ট্রেনের স্লিপার কামরায় ধর্ষিতা হন এক জার্মান মহিলা। তিনি পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেন দু’দিন বাদে। ঐ জার্মান মহিলা একটি বেসরকারি সংস্থায় কাজ করেতেন। পুলিশ ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে।

খোদ রাজধানী দিল্লিতেই একজন পোলিশ মহিলা তাঁর শিশুকন্যাকে নিয়ে ট্যাক্সিতে যাবার সময় ধর্ষণের হাত থেকে নিজেকে বাঁচাতে পারেননি। মহিলাদের নিরাপত্তা নিয়ে শীলা দীক্ষিতের সাবেক কংগ্রেস সরকারকে তুলোধোনা করেছিল এই আম আদমি পার্টির নেতারা।

আম আদমি পার্টির বিধায়কের অভিযোগ সম্পর্কে দলের মুখপাত্র যোগেন্দ্র যাদব সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ঐ সব অভিযোগ ভিত্তিহীন। তাঁর ব্যক্তিস্বার্থ পূরণ না হওয়ায় এটা ঐ বিধায়কের ক্রোধের বহিঃপ্রকাশ।

কারণ, প্রথমে তিনি মন্ত্রী হতে চেয়েছিলেন, সেটা হতে পারেননি। তারপর আসন্ন সংসদীয় ভোটে আম আদমি পার্টির প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন, কিন্তু তাঁকে তা দেওয়া হয়নি। এই বিদ্রোহ দমনে দল কড়া হাতে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে। দলের শৃঙ্খলাভঙ্গ কোনোমতেই বরদাস্ত করা হবে না।

শেয়ার করুন