ভোটার শূন্য রাজশাহীর ভোট কেন্দ্রগুলো, ককটেল বিস্ফোরণ

0
87
Print Friendly, PDF & Email

রাজশাহীর দুটি সংসদীয় আসনের অধিকাংশই ভোটার শূন্য। দুপুর পর্যন্ত কাঙ্ক্ষিত ভোটারের দেখা মেলেনি। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, অধিকাংশ কেন্দ্রের আশেপাশে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। তবে সাধারণ ভোটারদের তেমন চোখে পড়েনি।

ভোটকেন্দ্রগুলোতে নেই লম্বা লাইন। কাজ-কর্ম না থাকায় অলস বসে রয়েছেন কেন্দ্রের নির্বাচনী কর্মকর্তারা । দুপুর ১২টার দিকে পবা দুয়ারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে ভোটার নেই। এজেন্টরাও বসে আছেন হাত গুটিয়ে।

কেন্দ্রটির প্রিজাইডিং কর্মকর্তা এনামুল হক জানান, ওই কেন্দ্রে ভোটার ৩৫৯৩ জন। তবে বেলা ১২টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ১৭৩ ভোট। সকালে ভোটকেন্দ্রের আশে পাশের এলাকায় কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটেছে বলে জানান তিনি।

অন্যদিকে, ভোট শুরুর কিছুক্ষণ পরে পবার বড়গাছি কেন্দ্রে ভোট শুরুর আগে সাড়ে ৫টার দিকে একটি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। ফলে ভোটারদের উপস্থিতি নেই বললেই চলে।

এছাড়া বেলা ১০টা পর্যন্ত চারঘাটের মাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কোনো ভোট পড়েনি। ওই এলাকার তাতারপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুটি বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। ওই কেন্দ্রে কোনো ভোটার দেখা যায় নি।

একই চিত্র লক্ষ্য করা গেছে রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) ও রাজশাহী-৬ (চারঘাট-বাঘা) আসনের ভোটকেন্দ্রগুলোতে। জেলার চারঘাটের রাওথা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও চারঘাট মডেল স্কুল কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে পুরোটাই ফাঁকা। এর মধ্যে রাওথা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মোট ভোটার রয়েছে ২০৭৬ জন এবং চারঘাট মডেল স্কুল কেন্দ্রে ভোটার রয়েছে ২৭৪৯।

এসব ভোটকেন্দ্রে নারীদের কোনো উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়নি। এ ছাড়া সকাল সাড়ে ৯টা পর্যন্ত কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। আগের দিন রাতে কয়েকটি কেন্দ্রে বোমা নিক্ষেপের পর দুটি সংসদীয় আসনে ভোটারদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে। এছাড়া রাজশাহী-৩ আসনের অধিকাংশ ভোটকেন্দ্রে জাতীয় পার্টির প্রার্থীর পক্ষে নির্বাচনী এজেন্ট পাওয়া যায়নি।

এদিকে, রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনে প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগ সমর্থিত আয়েন উদ্দিন সকাল ৯টায় মোহনপুরের মহিষকুন্ডি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ভোট দেন। এরপর বেলা ১১টার দিকে পবার নওহাটা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দিয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা ও স্বতন্ত্রপ্রার্থী মেরাজ উদ্দিন মোল্লা।

একই সময়ে রাজশাহী-৬ আসনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শাহরিয়ার আলম ভোট দিয়েছেন চারঘাটের রুস্তমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে। ওই আসনের অপরপ্রার্থী আরেক আওয়ামী লীগ নেতা রায়হানুল আলম দুপুর ১২টা পর্যন্ত ভোট দেননি। তিনি চারঘাট সারদা সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম জানান, রাজশাহীর বিভিন্ন ভোটকেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ চলছে। ভোটারদের উপস্থিতি সকালের দিকে কিছুটা কম হলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাড়ছে। তবে নির্দেশনা না থাকায় ভোটগ্রহণের হার জানাতে রাজি হননি তিনি।

উল্লেখ্য, রাজশাহীর ৬টি আসনের মধ্যে মাত্র ২টিতে নির্বাচন হচ্ছে। এর মধ্যে রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আয়েনউদ্দীন, আওয়ামী লীগের সমর্থন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মেরাজউদ্দিন মোল্লা ও জেলায় জাতীয় পার্টির একমাত্র প্রার্থী হিসেবে শাহাবুদ্দিন বাচ্চু লড়ছেন। অন্যদিকে রাজশাহী-৬ আসনে আওয়ামী লীগের শাহরিয়ার আলমের সঙ্গে লড়ছেন একমাত্র স্বতন্ত্র প্রার্থী রায়হানুল হক।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, রাজশাহী-৩ (পবা-মোহনপুর) আসনে মোট ভোটার ৩ লাখ ১৯ হাজার ৬৯৮ জন এবং রাজশাহী-৬ (চারঘাট ও বাঘা) আসনে মোট ভোটার ২ লাখ ৭৩ হাজার। মোট ২১৭ কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

শেয়ার করুন