ক্রিকেটে স্বর্ণে মোড়ানো কলংকে জড়ানোর বছর

0
272
Print Friendly, PDF & Email

সাফল্য, উচ্ছ্বাস, বিতর্ক, চ্যালেঞ্জ এবং কেলেংকারি। বিদায়ী বছরে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে এর চেয়ে ভালোভাবে আর আখ্যায়িত করা যায় না। নতুন বছর শুরু হতে যাচ্ছে। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সামনে পাহাড়সমান সমস্যা। ২০১৩ সালকে বলা যায় বাংলাদেশের ক্রিকেট স্বর্ণে মোড়ানো আর কলংকে জড়ানো।
গত বছর ক্রিকেটে বাংলাদেশের শুরুটা হয়েছিল পাকিস্তানে দল পাঠানোর অনিশ্চয়তা নিয়ে। এরপর শ্রীলংকার বিপক্ষে হোম সিরিজ, এশিয়া কাপ ও টি ২০ বিশ্বকাপ আয়োজনের তোড়জোড়। শ্রীলংকায় টেস্ট-সাফল্যের পর জিম্বাবুয়ে সফরে ব্যর্থতা। আশরাফুলের মতো বাংলাদেশের প্রথম সুপারস্টার ফিক্সিংয়ে জড়িয়ে নিষিদ্ধ হন। বিসিবির নির্বাচনের চ্যালেঞ্জ অতিক্রম এবং নিউজিল্যান্ডকে হোয়াইটওয়াশ। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল), ঢাকা প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগ নিয়ে নতুন নিয়মে খেলোয়াড়দের পাওনা না মেটানোর মতো বিতর্কও দেখা গেছে এ বছর।
জানুয়ারিতে বিপিএলের নিলাম, উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দিয়ে শুরু হয় ঘরোয়া ক্রিকেটের পথচলা। মার্চে বাংলাদেশের শ্রীলংকা সফর। শ্রীলংকা-আতংক মার্চের অতীত হয়ে গেল। সমুদ্রঘেরা শ্রীলংকায় তখন মুক্ত বাংলাদেশ। তিন ম্যাচের ওডিআই সিরিজ ড্র। গল টেস্টে প্রথম ইনিংসে রানের চাপায় পিষ্ট হতে যাওয়ার আশংকা উড়িয়ে দিয়ে ৬৩৮ রান করে উল্টো স্বাগতিকদের চাপে ফেলার সাহসিকতা। এরপর মুশফিকের ডাবল সেঞ্চুরি ও মোহাম্মদ আশরাফুলের ডাবল সেঞ্চুরি ছুঁই ছুঁই ইনিংস। গল টেস্ট ড্র। সিরিজ শেষে কুমার সাঙ্গাকারাও বলতে বাধ্য হয়েছেন, বাংলাদেশের অনেক উন্নতি হয়েছে। তবে সাফল্য ধরে রাখাই আসল চ্যালেঞ্জ। কিন্তু সেটা আর হল কই। এপ্রিল-মেতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টে হার, সিরিজ ড্র। এরপর ওডিআই সিরিজে হার। ক্ষোভে-দুঃখে নেতৃত্ব ছাড়ার ঘোষণা দিলেন মুশফিকুর রহিম। বোর্ডের অনুরোধে সিদ্ধান্ত বদল করলেন দেশে ফিরে। এরপর ২০১৫ সাল পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানো হল মুশফিকের অধিনায়কত্বের। তবে জিম্বাবুয়েতে ব্যর্থতার পর সাফল্য আরও বড় আকারে ধরা দিয়েছে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হোম সিরিজে। শ্রীলংকা সফরে মুশফিক রহিমের ডাবল সেঞ্চুরির চেয়েও বড় রেকর্ড গড়লেন সোহাগ গাজী। বিশ্বের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে সেঞ্চুরি এবং হ্যাটট্রিকসহ ছয় উইকেট।
নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে বাংলাদেশ একাধিক পারফরমার খুঁজে পায়। সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবালের ওপর নির্ভরতা কমে। নিউজিল্যান্ড সিরিজ চলাকালীন বিসিবি প্রথম নির্বাচিত সভাপতি পেয়েছে। ঢাকা প্রিমিয়ার লীগ নিয়ে আন্দোলনে নেমেছেন খেলোয়াড়রা। নতুন নিয়মে খেলোয়াড় বাছাই হয়েছে। খেলোয়াড় ও ক্লাবগুলোর অসন্তুষ্টির পরও শেষ হয়েছে ঢাকা লীগ। বিদায়ী বছরে বাংলাদেশের ক্রিকেটে কলংক লেগেছে। ২০১২ সালে ভারতের একটি টিভি চ্যানেলের গোপন ক্যামেরায় ধরা পড়া আম্পায়ার নাদির শাহ ২০১৩ সালে ১০ বছরের জন্য নিষিদ্ধ হয়েছেন। ২ ও ১২ ফেব্র“য়ারি বিপিএলের দুটি ম্যাচ থেকে বেরিয়ে এলো বাংলাদেশের কলংকজনক এক অধ্যায়। মে মাসে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে (আইপিএল) শ্রীশান্তসহ তিন ক্রিকেটার স্পট ফিক্সিংয়ে ধরা পড়ার পর বাংলাদেশে আবার ফিক্সিং তদন্তের জন্য আসে আকসু। ফিক্সিংয়ে জড়িত থাকার কথা আকসুর কাছে স্বীকার করেন আশরাফুল। সাময়িকভাবে নিষিদ্ধ হন আশরাফুলসহ মাহবুবুল আলম ও মোশাররফ হোসেন। জড়িত থাকার প্রমাণ মেলে সাবেক ক্রিকেটার মোহাম্মদ রফিকের বিরুদ্ধেও। আশরাফুলদের বিচারের জন্য গঠন করা হয়েছে প্যানেল।
রাজনৈতিক অস্থিরতায় চট্টগ্রামে ওয়েস্ট ইন্ডিজ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হোটেলের সামনে ককটেল বিস্ফোরণকে কেন্দ্র করে বিসিবির চ্যালেঞ্জ শুরু। নিরাপত্তার ঘাটতির কারণ দেখিয়ে দেশে ফিরে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ যুবারা।

শেয়ার করুন