রাজশাহীতে পুলিশ নিহতের ঘটনায় সিটি মেয়রসহ ৪শ জনকে আসামি করে মামলা

0
58
Print Friendly, PDF & Email

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজশাহী নগরীতে পুলিশের চলন্ত ভ্যানে ককটেল নিক্ষেপে পুলিশ সদস্য সিদ্ধার্থ সরকার নিহতের ঘটনায় বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলসহ ৪শ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। পুলিশ বাদি হয়ে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে নগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করে। 

শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউর রহমান জিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, পুলিশ সদস্য হত্যা, পুলিশের উপর হামলা, বিস্ফোরণ ও সরকারি কাজে বাধা দানের অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়। থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রফিকুল ইসলাম বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। 

ওই মামলায় আসামি করা হয়েছে ৪শ জনকে। এর মধ্যে এজাহারে নাম উল্লেখ করা হয়েছে ৮৮ জনের। এদের মধ্যে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও রাজশাহী নগর ১৮ দলের আহবায়ক মিজানুর রহমান মিনু, সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও ১৮ দলের সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, নগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারী আসম মামুন শাহীন, মাইনুল ইসলাম ও মাহবুব হাসান বুলবুলসহ নগর ১৮ দলের শীর্ষ নেতারা রয়েছেন। বাকি ৩শ থেকে সাড়ে ৩শ জন অজ্ঞাত। এরা সকলেই রাজশাহী ১৮ দলের নেতাকর্মী। 

এই মামলায় এখন পর্যন্ত বেশ কয়েক জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আজ দুপুরের পরে তাদের আদালতে পাঠানোর কথা রয়েছে। তাদের প্রত্যেকের অন্তত: সাত দিন করে রিমান্ড চাওয়া হতে পারে বলে জানান ওসি। একই সাথে বাকি আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলেও জানান। 

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে ফেরার পথে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নগরীর লোকনাথ স্কুল মার্কেটের সামনের সড়কে পুলিশ ১৮ নেতাকর্মীদের আটকের চেষ্টা করলে পুলিশের চলন্ত ভ্যান লক্ষ্য করে ককটেল হামলা চালানো হয়। এতে ওই গাড়িতে থাকা পুলিশের ৯ সদস্য আহত হন। ককটেলে ক্ষত-বিক্ষত হন পুলিশের তিন সদস্য। 

এদের মধ্যে সিদ্ধার্থ সরকারকে এয়ার এ্যম্বুলেন্সে করে রাত ৭ টা ২০ মিনিটে ঢাকায় নেয়া হলে রাত ৯টার দিকে সিএমএইচএ তার মৃত্যু হয়। নিহত ওই পুলিশ সদস্যের বাড়ি রংপুরের কাউনিয়া উপজেলায় বলে জানা গেছে। তার স্ত্রী দিপ্তীও রাজশাহী মহানগর পুলিশের কনস্টেবল হিসেবে কর্মরত।

এ ঘটনায় আহত বাকি ৮ পুলিশ সদস্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৮ ও ২৫ নম্বর ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন। পুলিশের দাবি, ১৮ দল কর্মীরা ওই হামলা চালিয়েছে। এছাড়া এঘটনায় বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে করে ১৮ দলের কর্মী সন্দেহে ৫৩ জনকে আটক করে পুলিশ।

শেয়ার করুন