চীনের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সফর পেছাল

0
34
Print Friendly, PDF & Email

চীনের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিও ঝেনমিনের সফর কিছুটা পিছিয়ে গেছে। আগামী শনিবার ঢাকায় এসে পরদিন (রোববার) ঢাকা ত্যাগ করবেন তিনি।চীনের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সফর পেছাল।

 

বাংলাদেশ ও চীনের কূটনীতিকরা বুধবার সমকালকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

এর আগে ঢাকায় চীনা দূতাবাস জানিয়েছিল, লিও বৃহস্পতিবার দু’দিনের সফরে ঢাকায় আসবেন। তিনি রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে অবহিত হবেন।

 

সূত্র জানিয়েছে, লিও ঝেনমিনের প্রস্তুতি সম্পন্ন না হওয়ায় ঢাকার অনুরোধে এই সফর পিছিয়েছে। সফরকালে তিনি বাংলাদেশি পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হকের সঙ্গে ১০ম রাউন্ড কূটনৈতিক আলোচনায় যোগ দেবেন।

 

পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হকের আমন্ত্রণে এই সফরে আসছেন চীনের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী। সফরকালে লিও ঝেনমিন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধী দলীয় নেতা খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 

এছাড়াও পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করতে পারেন তিনি।

 

ঢাকার কর্মকর্তারা বলছেন, চীনের উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বিস্তারিত সফরসূচি প্রণয়নের কাজ এখনও চলছে। শিগগিরই তা চূড়ান্ত হবে।

 

পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ে অনুষ্ঠেয় বৈঠকে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের সামগ্রিক দিক বিশেষ করে আগামী দিনের সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা হবে। বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে বেশ কিছু বড় ইস্যু ঝুলে আছে। এ সবের মধ্যে রয়েছে চীন থেকে সামরিক বাহিনীর জন্যে দু’টি সাবমেরিন ক্রয়, চীনের সহায়তায় বঙ্গোপসাগরে গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণ, মিয়ানমার হয়ে ত্রিদেশীয় সড়ক ও রেল যোগাযোগ স্থাপন। কূটনৈতিক আলোচনায় এ সব বিষয় প্রাধান্য পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

 

এছাড়া রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে আগামী ৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠেয় দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে রাজনৈতিক সঙ্কট নিয়ে আলোচনা হবে বলে কূটনৈতিক সূত্রের ধারণা।

 

চীন বরাবর বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ ইস্যুতে প্রকাশ্যে কোনও মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকলেও এবারই প্রথম দেশটি রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও নির্বাচন সম্পর্কে খোলামেলা অভিমত ব্যক্ত করছে। প্রধান দুই রাজনৈতিক দলকে সংলাপের মাধ্যমে সঙ্কটের নিষ্পত্তি করে অংশগ্রহণমূলক ও বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন করার আহ্বান জানিয়েছে তারা। পাশাপাশি সহিংসতা পরিহারের কথাও বলছে।

 

এখন বিরোধী দলের অংশগ্রহণ ছাড়াই আগামী ৫ জানুয়ারি নির্বাচন করার বিষয়ে সরকার সুস্পষ্ট অবস্থান ব্যক্ত করার পর লিও ঝেনমিনের সফরে চীনের এখনকার অবস্থান স্পষ্ট হবে ধারণা করা হচ্ছে।

 

পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক ১১ সদস্য বিশিষ্ট প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিয়ে ১৮ ও ১৯ ডিসেম্বর চীনের ইউনান প্রদেশের রাজধানী কুনমিং সফর করেন। সেখানে বাংলাদেশ, চীন, ভারত, মিয়ানমার (বিসিআইএম) অর্থনৈতিক করিডোরের প্রথম আনুষ্ঠানিক বৈঠক হয়। সেখানে এই অর্থনৈতিক জোটের বিষয়ে যৌথ সমীক্ষার সিদ্ধান্ত হয়।

 

সফরকালে চীনের কর্তৃপক্ষ উপ পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিও ঝেনমিনের আসন্ন সফরের বিষয়টি বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিবকে জানায়।

শেয়ার করুন