জোর কূটনৈতিক উদ্যোগ

0
113
Print Friendly, PDF & Email

নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর রাজনৈতিক সংকট নিরসনে শেষ মুহূর্তেও চলছে নানামুখী ব্যাপক কূটনৈতিক তৎপরতা। নির্বাচন সামনে রেখে অব্যাহত সহিংসতার মধ্যে জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুনের বিশেষ দূত অস্কার ফার্নান্দেজ তারানকো চার দিনের সফরে আগামী ৬ ডিসেম্বর ঢাকায় আসছেন। রাজনৈতিক সমঝোতা ছাড়াই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার প্রতিবাদে বিরোধী দলের টানা অবরোধের ডাক দেওয়ায় সহিংস পরিস্থিতির মধ্যে তার এ সফর তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। সময়-স্বল্পতার যুক্তি দেখিয়ে নির্বাচনের তফসিল পরিবর্তন চায় জাতিসংঘ। একই সঙ্গে নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার পর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশের পক্ষ থেকে জরুরি ভিত্তিতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে সংলাপে বসার আহ্বান জানানো হচ্ছে। অবাধ, সুষ্ঠু ও বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন করার উপায় খুঁজে বের করার আহ্বান জানাচ্ছে তারা। মঙ্গলবার মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডবি্লউ মজীনার সঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের একটি বৈঠক হয়েছে বলে জানা গেছে। বিরোধী ১৮ দলীয় জোটের অবরোধে সহিংসতায় দু’দিনে ১৪ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।জোর কূটনৈতিক উদ্যোগ

এদিকে, পর্দার আড়ালে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যেও চলছে আলোচনা। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের সঙ্গে শনিবার গোপন বৈঠকে দেওয়া প্রস্তাবের অগ্রগতি জানতে চেয়ে চিঠি দিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সৈয়দ আশরাফ বিএনপির প্রস্তাব প্রধানমন্ত্রী খতিয়ে দেখছেন বলে জানিয়েছেন ফখরুলের প্রতিনিধিকে। রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে উৎকণ্ঠার কথা জানিয়েছেন দেশের বিশিষ্ট ছয় নাগরিক। সংকট নিরসনে রাষ্ট্রপতিকে উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তারা। অবশ্য সাংবিধানিক সীমাবদ্ধতার মধ্যে থেকেই চেষ্টা করবেন বলে জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি। রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বিশিষ্ট নাগরিকদের সাক্ষাতের পেছনেও কূটনীতিকদের অনুরোধ ছিল বলে জানা গেছে।

সূত্র জানায়, মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডবি্লউ মজীনা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ও বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলছেন। মঙ্গলবার মার্কিন রাষ্ট্রদূত মজীনার সঙ্গে দুই নেতার একটি বৈঠক হয়েছে বলে সূত্র দাবি করেছে। অন্যদিকে, দুই মহাসচিবের সঙ্গে মজীনার বৈঠক হয়েছে বলে কোনো পক্ষই স্বীকার করছে না।

গতকাল বুধবার জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়কারী নেইল ওয়াকার নির্বাচন কমিশনে গিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীনের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এ কূটনীতিক নির্বাচন কমিশনকে জানান, নির্বাচনী তফসিলে এক সপ্তাহের সময় দিয়ে আগামী ২ ডিসেম্বরের মধ্যে মনোনয়নপত্র দাখিলের যে দিনক্ষণ নির্ধারণ করা হয়েছে, তা যথেষ্ট নয়। একই দিনে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র কিন গ্যাং এক বিবৃতিতে বাংলাদেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় শান্তিপূর্ণ সংলাপের মাধ্যমে রাজনৈতিক সংকট নিরসনের আহ্বান জানিয়েছেন।

মার্কিন রাষ্ট্রদূত ড্যান ডবি্লউ মজীনা মন্তব্য করেছেন, নির্বাচনী তফসিল ঘোষণার প্রক্রিয়ায় সংলাপ আরও বেশি জরুরি হয়ে পড়েছে। তবে তিনি যে কোনো অজুহাতে সহিংসতা করার বিরুদ্ধে ওয়াশিংটনের কড়া বার্তাও বিভিন্ন মহলে পেঁৗছে দিয়েছেন। মজীনা মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীর দফতরে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানিবিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহীর সঙ্গে বৈঠক করেন। সেখানে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে জ্বালানি খাতের সহযোগিতার বিষয়ে আলোচনা হয় বলে জানা গেছে। দুপুর দেড়টায় এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হলেও বিকেল ৪টায় প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তে আরও কয়েকজন উপদেষ্টার সঙ্গে তৌফিক-ই-ইলাহীও পদত্যাগ করেন। মজীনা ওই বৈঠকে রাজনৈতিক পরিস্থিতি এবং আগামী নির্বাচন নিয়েও কথা বলেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মজীনা আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ে অনানুষ্ঠানিক কথাবার্তা বলছেন বলে জানা গেছে। তবে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের পক্ষে সবার অংশগ্রহণে নির্বাচন অনুষ্ঠানের অবস্থান দৃশ্যত পরিবর্তন হয়েছে। এখন বিশ্বসম্প্রদায় অবাধ, সুষ্ঠু ও বাংলাদেশের জনগণের চোখে বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন আয়োজনের কথা বললেও ‘সবার অংশগ্রহণের’ বিষয়টি উল্লেখ করছে না। যদিও এ নির্বাচন অনুষ্ঠানের বিষয়ে প্রধান দুই দলের মধ্যে সংলাপের আহ্বান জানানো হচ্ছে।উদ্ভূত পরিস্থিতিতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির পক্ষে বিদেশি কূটনীতিকদের সঙ্গে যোগাযোগ বৃদ্ধি করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর বোন শেখ রেহানা সম্প্রতি ভারতীয় হাইকমিশনার পঙ্কজ শরণের সঙ্গে বৈঠক করেছেন। সেখানে কী কথা হয়েছে, সে বিষয়ে কোনো মন্তব্য না করে ভারতীয় হাইকমিশনার সম্প্রতি সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘কোনো ব্যক্তির সঙ্গে আলাপের বিষয়ে আমরা মন্তব্য করি না। তবে আমরা মনে করি, আগামী নির্বাচনের মাধ্যমে বাংলাদেশে গণতন্ত্র এবং গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া আরও সুসংহত হবে।’ অস্ট্রেলিয়ার হাইকমিশনার গ্রেগরি উইলকক বুধবার নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন। সাক্ষাতের পর তিনি সাংবাদিকদের বলেন, সহিংস পরিস্থিতির বিষয়ে তার দেশের উদ্বেগ রয়েছে।জাতিসংঘ দূতের আসন্ন সফর :তারানকো জাতিসংঘের রাজনীতি-সংক্রান্ত আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল। মহাসচিব বান কি মুন আগেই তারানকোকে নির্বাচন সামনে রেখে বাংলাদেশ-সংক্রান্ত বিশেষ দূত নিযুক্ত করেছেন। তিনি এর আগেও বাংলাদেশ সফর করেন।

শেয়ার করুন