আশরাফকে ফখরুলের চিঠি : গুজব ছড়ানো হচ্ছে যেভাবে

0
64
Print Friendly, PDF & Email

‘মিডিয়া বিএনপির পেছনে লেগেছে কেন? তাদের সঙ্গে তো আমাদের শত্রুতা নেই। তারা কেন বার বার ভিত্তিহীন সংবাদ প্রকাশ করছে?’ মির্জা ফখরুলের ঘনিষ্ঠ একজন প্রাইমনিউজ.কম.বিডিকে এ ধরণের প্রশ্ন ছুড়ে দেন।

মঙ্গলবার গভীর রাতে মোবাইল ফোনে মির্জা ফখরুলের ঘনিষ্ট ওই ব্যক্তির কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কি সৈয়দ আশরাফকে কোনো চিঠি দিয়েছেন? এর জবাবে তিনি বলেন, এটা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। মির্জা ফখরুল সৈয়দ আশরাফকে চিঠি দিলে তা গোপন কোনো বিষয় নয়।

তাহলে মিডিয়াগুলো যা প্রচার করছে তা কি সত্যি নয়? জবাবে তিনি বলেন, আমি জানি না। তারা এ ধরণের সংবাদ কোথা থেকে পাচ্ছেন।

জানতে চাইলে বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং কর্মকর্তা শায়রুল কবির খান বলেন, চিঠি দেওয়ার বিষয়টি সঠিক নয়। মির্জা ফখরুল সৈয়দ আশরাফুল ইসলামকে কোনো চিঠি দেননি।

এদিকে রাতে মির্জা ফখরুলের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করতে না পেরে তার একজন সহযোগির মাধ্যমে জানতে চাওয়া হয়েছিল। তিনি সৈয়দ আশরাফকে কোনো চিঠি দিয়েছেন কি না? আধা ঘন্টা পর ওই ব্যক্তি মির্জা ফখরুলের বরাত দিয়ে রাত সাড়ে বারোটার দিকে প্রাইমনিউজ.কম.বিডিকে জানান, এটা সম্পূর্ণ বানোয়াট। মির্জা ফখরুল কোনো চিঠি সৈয়দ আশরাফকে দেননি বলে তাকে মির্জা ফখরুল জানিয়েছেন।

রাত এগারোটায় একটি বেসরকারি টেলিভিশনের স্ক্রলে প্রথম এ খবরটি ছড়িয়ে দেয়া হয়। ওই চ্যানেলটি শুরু থেকেই বিএনপি বিরোধীবলে ধারণা করেন বিএনপি নেতা কর্মীরা। ওই চ্যানেলে কোনো সংবাদ প্রচার হলে তা বিশ্বাসও করতে চান না তারা। ওই চ্যানেলটির কোনো অনুষ্ঠানে বিএনপি নেতাদের যেতেও নিষেধাজ্ঞা রয়েছে হাই কমান্ড থেকে। তারপরও প্রায়ই ওই চ্যানেলের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে বিএনপি নেতাদের কথা বলতে দেখা যায়।

ওই চ্যানেলটির স্ক্রলে মির্জা ফখরুলের চিঠির খবর প্রচারিত হওয়ার পরপরই বেশ কয়েকটি অনলাইন নিউজ পোর্টালও সংবাদটি প্রচার করে। দুটি অনলাইন তাদের লিড নিউজ হিসেবে নিউজটি রাখলেও এতে সৈয়দ আশরাফ কিংবা মির্জা ফখরুলের সরাসরি কোনো মন্তব্য নেই। একটি অনলাইনে লেখা রয়েছে সৈয়দ আশরাফের ঘনিষ্ট একজনের কাছ থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

এর আগেও গত সপ্তাহে মির্জা ফখরুলের সঙ্গে সৈয়দ আশরাফের বৈঠকের খবর প্রকাশ করে বিভিন্ন চ্যানেল, অনলাইন ও পত্রিকা। মির্জা ফখরুল এ বৈঠকের কথা বরাবরই অস্বীকার করছেন। অপরদিকে সৈয়দ আশরাফ নিজে বৈঠকের কথা গণমাধ্যমের সঙ্গে স্বীকার করেছেন।

অন্যদিকে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুও সচিবালয়ে সাংবাদিকদের কাছে বলেছেন, সৈয়দ আশরাফের সঙ্গে মির্জা ফখরুলের বৈঠক হয়েছে।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. নাসিমও বিএনপির দিকে প্রশ্ন ছুড়েছেন বৈঠকের বিষয়টি প্রকাশে লজ্জা কেন।

অপরদিকে বিএনপি’র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এসব ঘটনা বারবারই অস্বীকার করেছেন। মঙ্গলবার রাতে চিঠি দেয়ার ঘটনাকেও ভিত্তিহীন উল্লেখ করে রিজভী বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কোনো চিঠি দেননি সৈয়দ আশরাফকে।

শেয়ার করুন