আশরাফ-ফখরুল বৈঠকে যে আলোচনা হয়েছে

0
58
Print Friendly, PDF & Email

শনিবার রাতে আশরাফ-ফখরুলের মধ্যে যে বৈঠক হয়েছে তা আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার না করলেও অনেকটা প্রমাণিত। মিডিয়ায় বৈঠকের পুরো খবরটিই চলে এসেছে। ওই আলোচনাটি ছিল মূলত আনুষ্ঠানিক সংলাপের প্রাথমিক পর্যায়। এজন্য কোনো পক্ষই বিষয়টি মিডিয়ার সামনে আনতে চাননি। তবে অনুসন্ধানী কয়েকজন সাংবাদিকের নজর এড়াতে পারেনি ‘অতি গোপনীয়’ এই বৈঠকটি।

বিভিন্ন দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে, শনিবার রাতের ওই বৈঠকে মির্জা ফখরুল একটি লিখিত প্রস্তাব দিয়েছেন সৈয়দ আশরাফকে। একই সঙ্গে সমঝোতার আগ পর্যন্ত নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা না করার জন্য বিএনপির পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়। বিএনপির অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিতেই সোমবার তফসিল ঘোষণার সিদ্ধান্ত থাকলেও ইসি তা থেকে সরে আসে। অপরদিকে সৈয়দ আশরাফ আলোচনার পরিবেশ সৃষ্টি করার জন্য বিএনপি যাতে আন্দোলনের নতুন কোনো কর্মসূচি না দেয়, সে জন্য মির্জা ফখরুলকে অনুরোধ করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতেই বিরোধী দল সোমবার থেকে কর্মসূচি দেয়ার কথা থাকলেও তা দেয়নি।

ওই বৈঠকে দুই পক্ষের একাধিক প্রস্তাব থাকলেও মূল আলোচনা ঘুরপাক খায় নির্বাচনকালীন সরকারের প্রধান কে হবেন, তা নিয়ে। আওয়ামী লীগের তরফ থেকে বলা হয়েছে, শেখ হাসিনাই নির্বাচনকালীন সরকারের প্রধান থাকবেন। আর, বিএনপি শেখ হাসিনা ছাড়া অন্য কাউকে সরকারপ্রধান হিসেবে দেখতে চায়।

সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে আলোচনা করে আওয়ামী লীগের অবস্থানের কথা জানিয়ে শিগগির আশরাফ-ফখরুল আবারো বৈঠকে বসতে পারেন।

সূত্র আরো জানায়, রোববার রাতে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে একান্ত আলোচনা করেছেন সৈয়দ আশরাফ। তিনি এ সময় শনিবার রাতের বৈঠকের বিষয়বস্তু সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করেন। অবশ্য মির্জা ফখরুল শনিবার রাতেই আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে তার আলোচনার বিষয়বস্তু বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়াকে অবহিত করেন।

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, বিরোধী দল নির্বাচনে যাওয়ার জন্য একটা সন্মানজনক পথ খুঁজছে। কীভাবে বিরোধী দলকে নির্বাচনে নেয়া যায়, সে ব্যাপারে সরকারি দলের নেতারাও নিজেদের মধ্যে কথাবার্তা বলছেন। দুই দলই ইতিবাচক হলে আশা করা যায়, শিগগির একটি সমাধান বের হয়ে আসবে।

শেয়ার করুন