আশরাফ-ফখরুল গোপন বৈঠক, প্রেসিডেন্টের অধীনে ১৮ দল নির্বাচনে যাবে কি না?

0
62
Print Friendly, PDF & Email

নানা নাটকীয়তা শেষে চলমান সংকট নিয়ে আলোচনা করতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের সঙ্গে একান্ত বৈঠক করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

তবে বৈঠকের বিষয়ে উভয়ের পক্ষ থেকে কঠোর গোপনীয়তা রক্ষা করা হচ্ছে। এমনকি বিএনপির পক্ষ থেকে সরাসরি এ ধরনের বৈঠকের খবর অস্বীকার করা হয়েছে।

তবে সংশ্লিষ্টরা আরটিএনএন-কে নিশ্চিত করেছেন, শনিবার রাতে বিএনপির এক সংসদ সদস্যের বনানীর ১৬ নম্বর রোডের এ ব্লকের একটি বাসায় এ বৈঠক হয়েছে। সেখানে আগে থেকে উপস্থিত হন সৈয়দ আশরাফ। আর পরে নিজের গাড়ি দূরে রেখে পায়ে হেঁটে মিলিত হন মির্জা ফখরুল।

প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের মহাসচিব পর্যায়ের আলোচিত এই বৈঠক সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে শুরু হয়ে রাত ৮টা পর্যন্ত চলে বলে সূত্র নিশ্চিত করেছে। বৈঠক শেষে আগে সৈয়দ আশরাফ একা বেরিয়ে যান। পরে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে মির্জা ফখরুল গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার কাছে যান।

জানা গেছে, ‘সৈয়দ আশরাফ ও মির্জা ফখরুল তাদের একান্ত বৈঠকে নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে আলোচনা করেন। সে সময় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সর্বদলীয় সরকারের অংশ নিতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিবকে অনুরোধ করেন।’

জবাবে মির্জা ফখরুল আশরাফকে জানান, ‘প্রধানমন্ত্রীর অধীনে তারা কোনো নির্বাচনে অংশ নিবেন না, এটা এখন চূড়ান্ত। এ থেকে পেছনে আসার সুযোগ নেই।’

এরপর সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম একটি বিকল্প ভাবনার কথা বলতে চাইলে মির্জা ফখরুল মনোযোগ সহকারে শোনেন। তখন আশরাফ বলেন, নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকারের প্রধান হিসেবে যদি রাষ্ট্রপতি অথবা স্পিকারের কেউ থাকেন, তাহলে বিএনপির অবস্থান কী হবে?

আশরাফের এমন বক্তব্যে তাৎক্ষণিক কোনো জবাব দেননি ফখরুল। তবে তিনি বিএনপি চেয়ারপারসনের সঙ্গে কথা বলে খুব শিগগিরই এ বিষয়ে তাকে জানাবেন বলে আশ্বস্ত করেন।

সূত্র জানায়, বৈঠকের পরে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের এমন প্রস্তাব নিয়ে গুলশানে যান। সেখানে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করেন।

তবে আওয়ামী লীগের এমন প্রস্তাবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কী মনোভাব প্রকাশ করেছেন তা তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি।

এছাড়া বৈঠকে চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও নির্বাচন কমিশনের কর্মকাণ্ড নিয়েও আলোচনা হয়। বৈঠকে নির্বাচনকালীন সরকার প্রধান শেখ হাসিনার আন্তর্জাতিক নীতির বিষয়ে দরকষাকষি করে থাকেন এমন কাছের এক উপদেষ্টাও উপস্থিত ছিলেন বলে জানা গেছে।

বিএনপির একাধিক সূত্র বৈঠকের বিষয়ে সত্যতা নিশ্চিতও করেছেন। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এসব নেতারা সংকট নিরসনে একটি উদ্যোগের বিষয়ে এখনই প্রকাশ হোক তা চান না।

এদিকে, শনিবার মধ্যরাতে গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বৈঠকের বিষয় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অস্বীকার করেছেন।

তিনি বলেন, ‘বৈঠককের খবর গুজব। আমার সঙ্গে সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের কোনো ধরনের বৈঠক হয়নি। এ ধরনের বৈঠক হলে গণমাধ্যমকে জানানো হবে।’

শেয়ার করুন