প্রতিবেশী দেশের ইন্ধনে দাঙ্গা বাধাতে চায় আ.লীগ, প্রতিহত করবে জামায়াত

0
52
Print Friendly, PDF & Email

প্রতিবেশী দেশের ইন্ধনে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার দেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টি করতে চাইছে বলে অভিযোগ করেছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর নেতারা। আওয়ামী লীগ এ দাঙ্গা সৃষ্টির দায় জামায়াতে ইসলামীর ওপর চাপাতে চাইছে বলেও একইসঙ্গে জামায়াত নেতারা অভিযোগ করেছেন।
সরকার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হলে জামায়াতে ইসলামী দেশপ্রেমিক জনতাকে সঙ্গে নিয়ে তাদের নিরাপত্তা বিধান করবে বলেও জানিয়েছেন জামায়াত নেতারা।
দেশে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা-নির্যাতনের প্রতিবাদে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল দেশব্যাপী বিক্ষোভ সমাবেশে জামায়াত নেতারা এসব কথা বলেন।
এসব বিক্ষোভ সমাবেশে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ওপর হামলা-নির্যাতন প্রতিহত করতে নেতাকর্মীদের সজাগ দৃষ্টি রাখতেও বলেন জামায়াত নেতারা। বিক্ষোভ সমাবেশে বিভিন্ন জায়গায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের লোকজনকেও উপস্থিত হতে দেখা যায়।
সংখ্যালঘুদের জান-মালের নিরাপত্তায় সজাগ থাকতে হবে—সিলেটের সমাবেশে নেতারা সিলেট অফিস জানায়, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী সিলেট মহানগর নেতারা বলেছেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত বাংলাদেশকে নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র চলছে। দীর্ঘদিন থেকে শতকরা ৯০ ভাগ মুসলমানের দেশে ভিন্ন ধর্মের মানুষরা শান্তিতে বসবাস করে আসছে। কিন্তু প্রতিবেশী দেশের ইন্ধনে দেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির মাধ্যমে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের ষড়যন্ত্র করেছিল আওয়ামী লীগ সরকার। তারা পরিকল্পিতভাবে দেশের সংখ্যালঘুদের ওপর এবং তাদের ধর্মীয় উপাসনালয়ে হামলা করে এর দায় বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর ওপর চাপাতে চেয়েছিল। পরধর্মে সহিষ্ণু রাজনৈতিক সংগঠন জামায়াতকে ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের প্রতিপক্ষ হিসেবে দাঁড় করাতে গিয়ে সরকার জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। জামায়াত নেতৃত্বের প্রতি বাংলাদেশের সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের আস্থা ও বিশ্বাস থাকার কারণে সরকারের কোনো ষড়যন্ত্রই সফল হয়নি।
গতকাল জামায়াতের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সিলেট মহানগর জামায়াত আয়োজিত সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের জান-মাল ও তাদের ধর্মীয় উপাসনালয়ে নিরাপত্তার দাবিতে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ মিছিল-পরবর্তী সমাবেশে নেতারা এসব কথা বলেন।
তারা বলেন, জণগণের দৃষ্টি ভিন্নদিকে ফিরিয়ে অবৈধ পথে পুনরায় ক্ষমতায় যেতে আওয়ামী লীগ সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ভাইবোনদের নিয়ে ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র করছে। তাই সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের জান-মাল ও তাদের ধর্মীয় উপাসনালয়গুলো রক্ষায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের পাশাপাশি দেশ ও জাতিকে সজাগ দৃষ্টি রাখতে হবে।
মহানগর জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির ডা. সায়েফ আহমদের সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি মো. ফখরুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তৃতা করেন নগর জামায়াতের নায়েবে আমির হাফিজ আবদুল হাই হারুন, সহকারী সেক্রেটারি মাওলানা সোহেল আহমদ ও মো. শাহজাহান আলী, জামায়াত নেতা মাওলানা আবদুল মুকিত, মুফতি আলী হায়দার, আবদুল্লাহ আল মুনিম, মাওলানা মুজিবুর রহমান, ছাত্রনেতা আবদুর রাজ্জাক প্রমুখ।
জামায়াত নেতারা আরও বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে দেশপ্রেমিক জনতার চলমান আন্দোলন বানচাল করতে গ্রেফতার-নির্যাতনের নগ্ন খেলায় মেতে উঠেছে সরকার। তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া বাংলার মাটিতে যে কোনো পাতানো নির্বাচন প্রতিহত করতে দেশবাসী আজ ঐক্যবদ্ধ।
তারা সরকারের প্রতি ৯০ ভাগ মুসলমানের দেশে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিল করতে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানান। অন্যথায় সরকার যদি তাদের জান-মালের নিরাপত্তা ও ধর্মীয় উপাসনালয়ে নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়, তাহলে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দেশপ্রেমিক জনতাকে সঙ্গে নিয়ে তাদের নিরাপত্তা বিধান করবে বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

রাজশাহীতে বিক্ষোভ সমাবেশ, সতর্ক পুলিশ
রাজশাহী অফিস জানায়, কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে রাজশাহীতে বিক্ষোভ ও সমাবেশ করেছেন জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীরা। গতকাল সকালে নগরীর কোর্ট এলাকায় এ কর্মসূচি পালিত হয়। এতে নগর জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীরা অংশ নেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল সাড়ে ১১টার দিকে নগরীর কোর্ট বাজার থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়। এতে নেতৃত্ব দেন নগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি মাহবুবুল হাসান বুলবুল। মিছিলটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। সমাবেশে নগর জামায়াত-শিবিরের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী অংশ নেন।
এদিকে খবর পেয়ে ওই এলাকায় পুলিশের একটি টহল দল উপস্থিত হয়। এর আগে জামায়াতের বিক্ষোভ ও সহিংসতা ঠেকাতে সকাল থেকেই নগরীতে কঠোর অবস্থান নেয় পুলিশ। নাশকতা এড়াতে নগরীজুড়ে নিরাপত্তা জোরদার করা হয় বলে রাজশাহী মহানগর পুলিশ (আরএমপি) সূত্র জানায়।

কয়রায় জামায়াতের বিক্ষোভ
খুলনা অফিস জানায়, খুলনা জেলার কয়রা উপজেলা জামায়াতের উদ্যোগে গতকাল বিকাল ৩টায় সংখ্যালঘুদের জান-মাল এবং উপাসনালয়ের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবিতে এক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের আয়োজন করা হয়।
মিছিলটি উপজেলার প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জামায়াত অফিস চত্বরে সমাবেশ করে। এতে বক্তৃতা করেন খুলনা দক্ষিণ জেলা জামায়াতের আমির মাওলানা আ.খ.ম. তমিজ উদ্দিন, কয়রা উপজেলা জামায়াত সেক্রেটারি মাওলানা মাসুদুর রহমান, বায়তুল মাল সম্পাদক মাওলানা মিজানুর রহমান, শিবির সভাপতি সাইফুদ্দিন ফিরোজ প্রমুখ।
সমাবেশে বক্তারা সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠীর জান-মাল ও উপাসনালয়ের নিরাপত্তা বিধান করার জন্য দলের নেতাকর্মীদের সজাগ থাকার আহ্বান জানান।

বগুড়ায় জামায়াতের বিক্ষোভ
বগুড়া অফিস জানায়, সারাদেশে অমুসলিম সম্প্রদায়ের ওপর সন্ত্রাসী হামলা, বাড়িঘর ভাংচুর, অগ্নিসংযোগের প্রতিবাদে এবং অমুসলিম নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবিতে গতকাল বিকালে বগুড়ায় বিক্ষোভ করেছে জামায়াত।
কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে শহর জামায়াতের উদ্যোগে বিকাল ৩টায় বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। শহর জামায়াত সেক্রেটারি মাজেদুর রহমান জুয়েলের সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও জেল

শেয়ার করুন