দেশ রক্ষায় গণবিপ্লবের কোন বিকল্প নেই

0
66
Print Friendly, PDF & Email

দেশের বর্তমান অবস্থাকে ভয়াবহ উল্লেখ করে বিশিষ্টজনেরা বলেছেন, রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে একটি রাজনৈতিক দল তাদের নিজেদের স্বার্থ হাসিলের চেষ্টা করছে। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে দেশে গণবিপ্লবের কোন বিকল্প নেই।

শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে নাগরিক অধিকার রক্ষা কমিটি আয়োজিত ‘পুলিশী সন্ত্রাসে বিপন্ন নাগরিকতা’ শিরোনামের এক নাগরিক সংলাপে বক্তারা এসব কথা বলেন।

মুক্তিযোদ্ধা ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, মুক্তিযুদ্ধের মুল লক্ষ্য ছিল স্বাধীনতা; কিন্তু দেশে স্বাধীনসতা নেই। নাগরিক অধিকার বলতে কিছুই নেই। তাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে সকলে আন্দোলনে নামুন।

সাবেক বিচারপতি ও প্রধান নির্বাচন কমিশনার আব্দুর রউফ বলেন, পুলিশকে বর্তমানে মারপিট করার জন্য লাইসেন্স দেয়া হয়েছে। পুলিশ-আদালত এখন একাকার হয়ে গেছে। হঠাৎ করে সংবিধান পরিবর্তন করে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করছে সরকার। তাই এ সমস্যার সমাধানে সরকারকেই উদ্যেগ নিতে হবে।

ব্রাক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক পিয়াস করিম বলেন, সরকার পুলিশ ও প্রসাশনে দলীয় লোক নিয়োগ দিয়ে, তাদের দিয়ে সন্ত্রাস চালাচ্ছে। রক্ষকরাই এখন ভক্ষক হয়েছে। দেশে বর্তমানে পর্দার আড়ালে একটি অশুভ শক্তি কাজ করছে। এটাকে রুখতে হবে, না হলে দেশের ভবিষৎ অন্ধকার।

দেশে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস চলছে বলে মন্তব্য করেন বিশিষ্ট সাংবাদিক ও কলামনিস্ট সাদেক খান। তার মতে, দেশে আইনের শাসন বলতে আজ কিছুই নেই। প্রতিবাদ-প্রতিরোধ গ্রামে শুরু হয়েছে। এটাকে সুসংহত করে বেআইনী এ সরকারকে হটাতে হবে।

অন্যান্য বক্তারা বলেন, সরকার একদলীয় নির্বাচন করে দেশে স্বৈরতন্ত্র শ্বাসন কায়েম করতে চায়। ঘরে-বাইরে চাপ সৃষ্টি করে এ সরকারকে বিদায় করতে হবে।এ ছাড়া এ সরকারকে তাড়ানো আর কোন পথ নেই।

কবি ও দার্শনিক ফরহাদ মজহারের সভাপতিত্বে নাগরিক সংলাপে অন্যান্যের মধ্যে ছিলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানী ড. এমাজ উদ্দিন আহমেদ, মনিরুজ্জামান মিঞা, ঢাবি অধ্যাপক তাজমেরী এস ইসলাম, তাহমিনা আকতার, কল্যান পার্টির সভাপতি সৈয়দ মো: ইব্রাহীম, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কবি আব্দুল হাই শিকদার প্রমুখ।

শেয়ার করুন