এখনো ‘অবরুদ্ধ’ বিএনপি কার্যালয়

0
60
Print Friendly, PDF & Email

হরতাল চলাকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কার্যালয়ের সামনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা যে অবস্থানে ছিল এখনো অনেকটা তেমনি রয়েছে। হরতালের মতোই দলটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অবস্থান করছে পোশাকধারী ও সাদা পোশাকের বিপুলসংখ্যক পুলিশ। ভেতরে ঢুকতে পারছেন না সাংবাদিক ও কার্যালয়ের দায়িত্বরত কর্মচারী ছাড়া কেউ।

অন্যান্য হরতালের মতো গত রোববার হরতালের শুরু থেকেই অঘোষিত অবরুদ্ধ করে রাখা হয় বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়। সাধারণত হরতাল শেষে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অবস্থান সরিয়ে নিলেও এবারের চিত্র ভিন্ন। কারণ, নাশকতার আশঙ্কার কথা বলে হরতালের মতোই এখানে দায়িত্ব পালন করছেন তারা।

নয়াপল্টনে দায়িত্বরত নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন পুলিশ কর্মকর্তা নতুন বার্তা ডটকমকে জানান, ২৪ ঘণ্টাই এখানে দায়িত্ব পালন করছেন তারা। তিনি বলেন, “উপরের নির্দেশে দায়িত্ব পালন করতে হচ্ছে।”

সরেজমিনে দেখা গেছে, হরতালের পর থেকে তালাবদ্ধ রয়েছে কার্যালয়ের মূল ফটক। ফটক ঘেষে দাঁড়িয়ে আছে সাদা পোশাকের পুলিশ। দুই পাশে পোশাকধারী পুরুষ ও নারী পুলিশ সদস্যরা বসে আছেন। সাংবাদিকরা প্রবেশ করছেন। প্রয়োজন হলে কার্যালয়ের কর্মচারীরা বিনা বাধায় বাইরে যাচ্ছেন। তবে নেতাকর্মীদের ঢোকা নিষেধ। এছাড়া গ্রেফতার আতঙ্ক থাকায় কেউ কাছাকাছিও আসছেন না।

কার্যালয়ের ঠিক সামনে রাখা হয়েছে গোয়েন্দা পুলিশের একটা সাদা মাইক্রোবাস। পূর্ব দিকে রাখা হয়েছে একটি ওয়াটার ক্যানন, প্রিজনভ্যান আর একটি রায়টকার। কোনো ধরনের অপ্রীতিকর অবস্থা না ঘটায় এগুলো ব্যবহারেরও প্রয়োজন পড়ছে না।

কার্যালয়ের ভেতরে অবস্থান করছেন যথারীতি দলের যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। তাকে সহায়তা করছেন নির্বাহী কমিটির সদস্য বেলাল হোসেন। এছাড়া কার্যালয়ের কয়েকজন কর্মচারী ছাড়া কেউ নেই।

রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করে নতুন বার্তা ডটকমকে বলেন, “একদলীয় নির্বাচনের ‘কৃত্রিম’ উৎসবে আওয়ামী লীগ দলীয় কার্যালয় মুখর রাখলেও আমাদের কার্যালয়ে কাউকে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। এটা দুঃখজনক। মনে হয় একটি পুলিশি বেষ্টনীর মধ্যে আমরা বসবাস করছি।”

শেয়ার করুন